স্তন ক্যানসারে চিকিৎসকের মৃত্যু! কীভাবে চিনবেন এই রোগ? চিকিৎসাই বা কী?

ঢাকাটাইমস ডেস্ক
| আপডেট : ২০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪:৫৪ | প্রকাশিত : ২০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪:৪৬

স্তন ক্যানসারে ভুগে মারা গেলেন রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট- আইইডিসিআর-এর সহযোগী অধ্যাপক ডা. এন কে নাতাশা। তার আরও একটি পরিচয়, তিনি বেসরকারি টিভি চ্যানেল মাছরাঙা টেলিভিশনের সংবাদ উপস্থাপিকা।

বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) দিবাগত রাত তিনটার দিকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ডা. নাতাশা। স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হলেও তিনি জীবনের সব কার্যক্রম স্বাভাবিক ভাবেই চালাতেন।

ডা. নাতাশা ডায়াবেটিস ও স্বাস্থ্য বিষয়ে পিএইচডি করেছেন। একইসঙ্গে জনস্বাস্থ্যবিষয়ক জাতীয় বুলেটিনের সম্পাদক ছিলেন। শুক্রবার সকালে তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন মাছরাঙা টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার মাহমুদ কমল।

প্রাণঘাতী স্তন ক্যানসার নিয়ে কিছু কথা

স্তন্য ক্যানসারে নারীদের মৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি। সাধারণত ৫০ বছরের বেশি বয়সীদের মধ্যে এই ক্যানসার হওয়ার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। তবে ৫০-এর কম বয়সীদেরও এই রোগ হতে পারে। যদি হয়, তাহলে কীভাবে চিনবেন যে স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত? এর প্রতিকারই বা কী?

স্তনের কিছু সমস্যা দেখে বুঝে নিতে পারেন যে আপনি স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত। যেমন- স্তনে চাকা অনুভব হওয়া (যাকে লাম্প বলা হয়), স্তন ব্যথা করা, স্তনে হালকা চাপ লাগলে ব্যথা অনুভব করা, স্তনের বোঁটা থেকে অস্বাভাবিক তরল পদার্থ নির্গত হওয়া (পরিষ্কার, সাদা, হলুদ, সবুজ অথবা লাল হতে পারে), বোঁটার স্বাভাবিক আকার বদলে যাওয়া এবং স্তনের চামড়ার অস্বাভাবিকতা, যেমন লালচে হওয়া অথবা কুঁচকে যাওয়া।

যেসব পরীক্ষা করা লাগতে পারে

লক্ষণের ওপর ভিত্তি করে চিকিৎসক যেসব পরীক্ষা করা লাগতে পারে, তা নির্ণয় করবেন। প্রচলিত কিছু পরীক্ষার কথা এখানে উল্লেখ করা হলো:

ব্রেস্ট আলট্রাসাউন্ড: এই পরীক্ষার দ্বারা খুব সহজেই শব্দতরঙ্গের মাধ্যমে আপনার স্তনের ভেতরের ছবি তৈরি করা যায়। অনেক সুবিধার মধ্যে একটা হলো, এর মাধ্যমে আমরা স্তনের ভেতরের চাকার ভেতরের পদার্থ ঘন না তরল, সেই ব্যাপারে একটা ধারণা করা যায়।

ম্যামোগ্রাম: এটি একধরনের বিশেষ এক্স–রে, যা চিকিৎসকদের স্তন ক্যানসার নির্ণয়ে সাহায্য করে।

ব্রেস্ট বায়োপসি (এফএনএসি/কোর বায়োপসি): বায়োপসির মাধ্যমে আপনার চিকিৎসক স্তনের টিউমার, লাম্প অথবা কোনো অস্বাভাবিক মাংসপিণ্ড থেকে ছোট ছোট নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষার মাধ্যমে সমস্যার মূল কারণ নির্ণয় করেন। পরীক্ষায় ক্যানসার ধরা পড়লে চিকিৎসার বিকল্প নেই।

কী চিকিৎসা স্তন ক্যানসারের?

স্তন ক্যানসারের সুচিকিৎসার জন্য আন্তবিভাগীয় সহযোগিতা প্রয়োজন। সার্জারি, ক্যানসার ও রেডিওথেরাপি বিশেষজ্ঞরা মিলে আপনার চিকিৎসাব্যবস্থা নির্ধারণ করবেন। মূলত দুই প্রকার সার্জারি করা হয়, যা টিউমারের আকার, আকৃতি ও বিস্তৃতির ওপর নির্ভর করে-

প্রথমত, টোটাল মাস্টেকটমি (স্তন অপারেশনের মাধ্যমে কেটে ফেলা)। দ্বিতীয়ত, ব্রেস্ট কনজারভিং সার্জারি (শুধু টিউমারটুকু কেটে ফেলা)। কিছু ক্ষেত্রে সার্জারির পর রেডিওথেরাপির প্রয়োজন হয়, যাতে শরীর থেকে ক্যানসার আরও ভালোভাবে নির্মূল করা যায়। টিউমারের ওপর ভিত্তি করে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকই একাধিক চিকিৎসা নির্ধারণ করবেন।

(ঢাকাটাইমস/২০জানুয়ারি/এজে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

স্বাস্থ্য এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :