বিটিসিএলের প্রকল্পে দুর্নীতি: আটজনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৯:০৫ | প্রকাশিত : ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৮:১০

বিটিসিএলের প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগে সংস্থাটির সাবেক মহাব্যবস্থাপক ও বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ আটজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন বাদী হয়ে মামলাটি করেন। মঙ্গলবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা আকতারুল ইসলাম।

দুদকের মামলা সূত্রে জানা গেছে, দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণে সহজ শর্তে জাইকার ১৬৪ কোটি ৫২ লাখ টাকার ঋণ থেকে সরকারকে বঞ্চিত করেছেন তারা।

মামলার আসামিরা হলেন- বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি লিমিটেডের (বিটিসিএল) সাবেক মহাব্যবস্থাপক (বর্তমানে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন-বিটিআরসির কমিশনার) আমিনুল হাসান, বিটিসিএলের সাবেক পরিচালক-১ (বর্তমানে বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক) মশিউর রহমান, বিটিসিএলের টিএনডি প্রকল্পের সাবেক ডিই-৫ মো. আতাউর রহমান (বর্তমানে অবসরে), সাবেক পরিচালক মো. শাহাব উদ্দিন (বর্তমানে টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক), সাবেক পরিচালক (বর্তমানে সাবমেরিন কেবল কোম্পানির মহাব্যবস্থাপক) মো. আজম আলী, সাবেক পরিচালক মাকসুদুর রহমান আকন্দ, টিএনডি প্রকল্প পরিচালক ও জিএম অশোক কুমার মন্ডল ও সাবেক এমডি মাহফুজ উদ্দিন আহমদ।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, মামলায় আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে নিজেদের উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন না করে সরকারি ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে ‘টেলিকমিউনিকেশন নেটওয়ার্ক ডেভেলপমেন্ট (টিএনডি) প্রকল্পের (লট বি) টেন্ডার প্রক্রিয়ায় সর্বনিম্ন দরদাতাকে বাদ দিয়ে নিজেদের পছন্দের ঠিকাদারকে কাজ পাইয়ের দেওয়ার অসৎ উদ্দেশ্যে প্রাক-যোগ্যতা মূল্যায়নের নির্ণায়ক পরিবর্তন করেছেন।

এছাড়াও মূল দরপত্র আহ্বানের দুই মাস পর প্রাক্কলন নির্ধারণসহ ক্রয় আইন-বিধি ও জাইকার গাইডলাইন অনুসরণ না করে অহেতুক কালক্ষেপণের কারণে ৫২১ কোটি ৭৯ লাখ ষাট হাজার টাকা সমমানের অতি সহজ শতের (০.০১% সুদে ১০ বছর গ্রেস পিরিউডসহ ৪০ বছরে পরিশোধযোগ্য) ঋণের লট-বি এর জন্য বরাদ্দকৃত দুই কোটি ১১ লাখ ৪৬ হাজার ৭২২ ইউএস ডলার (১৬৪ কোটি ৫২ লাখ ১৫ হাজার) টাকা দাতা সংস্থা জাইকা কর্তৃক আগ্রহ হারিয়েছে, যা ২০১৫ সালের ৭ মে ফেরৎ নিয়ে যাওয়ায় দেশকে বড় একটি ঋণ সুবিধা থেকে বঞ্চিত করে দেশের আর্থিক ক্ষতি করেছে।

মামলায় উল্লেখিত আসামিরা নিজেরা লাভবান হয়ে এবং সর্বনিম্ন দরদাতাকে বাদ দিয়ে পছন্দের ঠিকাদারকে কাজ দেওয়ার অসৎ উদ্দেশ্যে নিজেদের উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন না করে সরকারি ক্ষমতার অপব্যবহার করায় তাদের বিরুদ্ধে মামলাটি করা হয়।

(ঢাকাটাইমস/২৭ফেব্রুয়ারি/এইচএম/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :