ইংলিশ অলিম্পিয়াডে বাংলাদেশ পৌঁছাবে বিশ্বব্যাপী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ৩১ অক্টোবর ২০১৮, ১৬:১৯ | প্রকাশিত : ২৯ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:৪৬

প্রথম আসরের সাফল্যের পর আবারো দেশব্যাপী শুরু হয়েছে ইংলিশ অলিম্পিয়াডের দ্বিতীয় আসরের আনুষ্ঠানিকতা। ওয়ার্ল্ডওয়াইড অর্গানাইজেশন ফর চ্যারিটি (ডাব্লিওওসি) এবং ইংলিশ অলিম্পিয়াডের যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয় আন্তর্জাতিক মানের এ প্রতিযোগিতা।

২৬ অক্টোবর সিলেটের ব্লু-বার্ড স্কুল এন্ড কলেজে বাছাই পর্ব  অনুষ্ঠিত হয়। সিলেট বিভাগের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ৬টি গ্রুপে প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থী বাছাই পর্বে অংশ নেয়।

গ্রুপগুলো হচ্ছেঃ ১. কিডস (প্লে- ২য় শ্রেণী পর্যন্ত), ২. স্মল স্টার্টস (৩য়-৫ম শ্রেণী পর্যন্ত), ৩. জুনিয়র্স (৬ষ্ঠ-৮ম শ্রেণী পর্যন্ত), ৪. হাই ফ্লায়ার্স (৯ম-১০ম শ্রেণী), ৫. ট্রেইল ব্লেজার্স (১১শ-১২শ শ্রেণী), ৬. সিনিয়র্স (উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের পর যেকোনো শিক্ষার্থী)।

‘ইন্সপাইরিং লিডারশিপ’ শ্লোগান নিয়ে এগিয়ে চলা ন্যাশনাল ইংলিশ অলিম্পিয়াডের দ্বিতীয় আসর নিয়ে বেশ উৎসাহ ও উদ্দীপনার সৃষ্টি হয় সিলেটের অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে। সিলেটের শাবিপ্রবি, এমসি কলেজ, জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, লিডিং ইউনিভার্সিটি, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি, স্কলারর্সহোম, ব্লু-বার্ড, আনন্দনিকেতন, ব্রিটিশ বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, সিলেট গ্রামার স্কুল, খাজাঞ্চিবাড়ি স্কুল, সিলেট কমার্স কলেজ, ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট সরকারি পাইলট স্কুল, অগ্রগামী স্কুল ও কলজে, সরকারি মহিলা কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা এতে অংশ নেয়।

সিলেটের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১৫০ জন ক্যাম্পাস এম্বেসেডরদের সার্বিক পরিচালনা ও প্রচারণায় অনুষ্ঠিত হয় এই বাছাই পর্ব। এই প্রতিযোগিতায় তিনটি পর্ব রয়েছেঃ ১. বাছাই পর্ব, ২.থিয়েটার পর্ব, ৩. গ্র্যান্ড ফিনালে।

ইংলিশ অলিম্পিয়াডের সিলেট সংগঠক রুহেল বিন ছায়েদ বলেন, ‘বাছাই পর্বে শতকরা ৫০ ভাগ মার্কস প্রাপ্ত প্রত্যেককে থিয়েটার পর্বের জন্য বাছাই করা হয়ে থাকে। যাদের থিয়েটার পর্বে লিসেনিং এবং প্রেজেন্টেশন দিতে হয় এবং ফাইনাল পর্বে তাদের ইংরেজীর দক্ষতার উপর একটি পরিপূর্ণ প্রশ্ন উত্তর পর্বে ইংরেজি ভাষার ৪ টি মডিউলে দক্ষতা দেখাতে হয়। এভাবে প্রত্যেকেই ইংরেজী শিক্ষায় নিজের অবস্থান যাচাই করতে পারবে।’

গত বছর এ আয়োজনে মোট ৮০০ জন উত্তীর্ণের মধ্যে ৬০জন শিক্ষার্থীকে পুরস্কৃত করা হয় এবং ১৮ জনকে নগদ অর্থ পুরস্কার দেয়া হয়। এছাড়া প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীকে সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়। জেলার বিজয়ীরা জাতীয় এবং ফাইনালে যাওয়ার সুযোগ পাবেন। বাংলাদেশ থেকে বৈশ্বিক নাগরিক গড়তে আয়োজিত ইংলিশ অলিম্পিয়াড ইতোমধ্যে বিশ্ব দরবারে সাড়া জাগিয়েছে। যার ফলে গুগল সার্চ ইঞ্জিনে বাংলাদেশের এই অলিম্পিয়াডের অবস্থাণ এখন টপ লিস্টে।

ইংলিশ অলিম্পিয়াডের বর্তমান পরিকল্পনা- ২০১৯ সালের মধ্যে ২৫ টি দেশে (যাদের মাতৃভাষা ইংরেজি নয়) অলিম্পিয়াড আয়োজন করা। আর ২০২০ সালের মধ্যে প্রায় ১০০টি দেশে এই প্রতিযোগিতা ছড়িয়ে দেয়া।

ইংলিশ অলিম্পিয়াডের চিফ অরগানাইজার মোহাম্মদ আমান উল্লাহ জানান, 'পৃথিবীব্যাপী বাংলাদেশকে তুলে ধরার জন্য ইংলিশ অলিম্পিয়াডের যাত্রা। আমাদের লক্ষ্য দেশের সীমানা পেরিয়ে বিশ্বব্যাপী আমাদের কর্ম পরিধি বৃদ্ধি করা।'

গত বছরের ইংলিশ অলিম্পিয়াডে ১৮ জনের মধ্যে সিলেট থেকে সর্বোচ্চ সংখ্যক ৭ জন পুরষ্কৃত হয়। এর মধ্যে ৪ জন্য চ্যাম্পিয়ন ক্যাটাগরি ও ৩ জন রানার্সআপ ক্যাটাগরিতে পুরষ্কার পায়। এছাড়া সিলেট বাছাই পর্বে গতবছর প্রায় ৩ হাজার শিক্ষার্থী অংশ নেয় যা অনুষ্ঠিত হয় জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে। উল্লেখ্য, ইংলিশ অলিম্পিয়াডের প্রথম আসরে প্রতিযোগী ছিলো মোট ৩৫ হাজার।

(ঢাকাটাইমস/২৯অক্টোবর/এসেএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :