একজন মুক্তিযোদ্ধা সংগীতজ্ঞের বিদায়

বিনোদন প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস

অনলাইন ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারি ২০১৯, ১০:৪২

৬৩ বছর বয়সে পরপারে পাড়ি জমালেন বাংলা সংগীতের অন্যতম পুরোধা আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল।  মঙ্গলবার সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি। বুলবুল ছিলেন একাধারে গীতিকার, সুরকার এবং সংগীত পরিচালক। দেশের বহু খ্যাতনামা শিল্পীকে তিনি নিজ হাতে গড়েছিলেন। দীর্ঘ ৪২ বছর ধরে বাংলা সংগীতকে তিনি দিয়েছেন দুহাত ভরে।

দেশসেরা এই সংগীত বিশারদের আরও একটি বড় পরিচয় আছে। তিনি ছিলেন একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। দেশের গর্বিত সন্তানদের একজন। প্রাণের মায়া ত্যাগ করে দেশ স্বাধীনের প্রত্যয় নিয়ে ১৯৭১ সালে যারা ঝাঁপিয়ে পড়েছিল মহান মুক্তিযুদ্ধে।

আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল সেই গর্বিত সন্তানদেরই একজন। ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে তিনিও পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে অস্ত্র ধরেছিলেন। তখন তার বয়স ছিল মাত্র ১৫ বছর। ওই কাঁচা বয়সে ভয়- ডরহীন বুলবুল সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। ছিনিয়ে আনেন দেশের স্বাধীনতা। কিন্তু সেই মুক্তিযোদ্ধা সংগীতজ্ঞকে মঙ্গলবারের সকালে যমদূত ছিনিয়ে নিয়ে গেল।

সদ্য প্রয়াত আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের সংগীতে যাত্রা শুরু হয়েছিল ১৯৭৬ সালে। সে সময় তিনি কিছু মিক্সড ও একক অ্যালবামের জন্য গান লিখতেন ও সুর করতেন। এরপর ১৯৭৮ সালে নাম লেখান চলচ্চিত্রে। ওই বছর ‘মেঘ বিজলী বাদল’ ছবিতে তিনি প্রথম সংগীত পরিচালনা করেন।

বুলবুল তার ক্যারিয়ারে বহু একক অ্যালবাম ও চলচ্চিত্রে সংগীত পরিচালনা করেছেন। সাবিনা ইয়াসমিন, এন্ড্রু কিশোর, রুনা লায়লা, সৈয়দ আব্দুল হাদি, সামিনা চৌধুরী, আগুন, কনক চাঁপা ও খালিদ হাসান মিলুসহ দেশের প্রায় সব জনপ্রিয় শিল্পীদের সঙ্গে তিনি কাজ করেছেন। সংগীতে বিশেষ অবদানের জন্য পেয়েছেন একুশে পদক ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার সহ অসংখ্য সম্মাননা।

কিংবদন্তি সেই সংগীত ব্যক্তিত্ব রাজধানীর আফতাবনগরে নিজ বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চলে গেলেন মঙ্গলবার সকালে। হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার পর তাকে স্থানীয় ইউনিভার্সেল মেডিকেল হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু পরীক্ষা নীরিক্ষা শেষে চিকিৎসকরা জানিয়ে দেন, বাসায় থাকতেই প্রাণ পাখি উড়ে গেছে গানের কারিগর বুলবুলের।

ঢাকা টাইমস/২২ জানুয়ারি/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :