স্কয়ারের ‘ভুল চিকিৎসায়’ পঙ্গু হওয়ার পথে ঢাবি ছাত্র

ঢাবি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ২০:০৭ | প্রকাশিত : ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৯:৩৩

রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের বিরুদ্ধে ভুল চিকিৎসা দেওয়ার অভিযোগ করেছেন মেহেদী হাসান শামীম নামে ঢাকা বিশ্ববদ্যালয়ের (ঢাবি) এক ছাত্র। ভুল চিকিৎসায় তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছে উল্লেখ করে ওই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে চলেছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাবির সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ করেন শামীম। রক্তনালীর ব্রেন টিউমার (ইনসুলার ক্যাভারনোমা) ধরা পড়লে ২০১৮ সালের ১৪ অক্টোবর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। তার চিকিৎসা করেন ডা. কৃষ্ণাপ্রভূ।

সংবাদ সম্মেলনে শামীম জানান, ডা. কৃষ্ণা প্রভূ তাকে দ্রুত অপরেশন করতে বলেন। না করলে স্ট্রোক করে যে কোনো সময় মারা যেতে পারেন বলে জানান। বলেছিলেন, তিনি সহজেই এই অপরেশন করে দিবেন। কিন্তু ডাক্তারকে বারবার অপরেশনের পসিবল রিস্ক এবং পোস্ট অপারেটিভ সিম্পটম সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলেও উনি সব কিছু সচেতনভাবে এড়িয়ে যান। স্কয়ারের ব্যবসায়িক স্বার্থ হাসিল করাই ছিল ডাক্তারের মূখ্য উদ্দেশ্য।

২০১৯ সালের ২৩ জানুয়ারি ডাক্তারের পরামার্শে তিনি অপারেশন করান। যখন তিনি আইসিইউতে ছিলেন তখন তার এটেন্ডেন্টকেও (ছোট ভাই) তার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে জানানো হয়নি। তিনি বলেন, ২৫ তারিখ যখন তিনি ওয়াশরুমে যেতে চেয়েছিলেন তখন ডিউটি ডাক্তার তার ভাইকে জানান, তার বাম পাশ আর কাজ করছে না।

পরবর্তীতে তিনি উন্নত চিকিৎসার জন্য ডাক্তারের কাছে তার অপারেশনের সিডি চাইলে ডাক্তার এবং হাসপাতাল কৃর্তপক্ষ টালবাহনা শুরু করে বলে জানান শামীম। তিনি বলেন,  এসময় ডাক্তার ও তারসহযোগিরা তার সঙ্গে দুর্ববহার করেন। এতে অপারেশনে ডাক্তারের ভূল ছিল এবং স্কয়ার হাসপাতালের ভূল চিকিৎসার শিকার বলে সন্দেহ করেন তিনি।

ভূক্তভোগী শামীম বলেন, ‘গত ১ এপ্রিল স্কয়ার হাসপাতালের সিইও ইউসুফ সিদ্দিকীর কাছে অপারেশনের সিডির জন্য গেলে তিনি গোঁজামিল হিসাব দেন। অপারেশনের আগে বারবার জিজ্ঞেস করলেও তাকে অপারেশনের পসিবল রিস্ক ও পোস্ট অপারেটিভ সিম্পটম সম্পর্কে জানানো হয়নি। অপারেশনের সিডি না দিয়ে তারা তাদের ভুল ঢাকার চেষ্টা করে।’

এরপর তিনি গত ৭ তারিখ স্কয়ার হাসপাতালের সিইও বরাবর তার অপারেশনের সিডি ও পেশেন্ট ফাইল চেয়ে লিখিত আবেদন করেন। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার আবেদন গ্রহণকরতে অস্বীকৃতি জানায়, অভিযোগ শামীমের।

শামীম জানান, এ কারণে তার বাম হাত ও পায়ের অবস্থান অবনতি হচ্ছে। বাম পায়ের কারণে খোঁড়াতে হলেও বাম হাত সম্পূর্ণই অকেজো হয়ে পড়েছে।

ঢাবির এ ছাত্র আরও বলেন, তিনি ডা. কৃষ্ণা প্রভুর সঙ্গে ১৫ এপ্রিল সাক্ষাৎ করলে তিনি অপারেশনের সময় তার মস্তিষ্কের কয়েকটি নার্ভ কাটা যায় বলে জানান। এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে থাইল্যান্ড বা সিঙ্গাপুর যাওয়ার পরামর্শ দেন, যা তার পক্ষে অসম্ভব।

সাক্ষাতে শামীম তার অপরেশনের রিস্কের বিষয়ে কেন জানানো হয়নি সে ব্যাপারে প্রশ্ন করলে তার উত্তরে ডাক্তার বলেন, তার কারণেই তিনি (শামীম) পঙ্গু হলেও বেঁচে আছেন। অন্য কেউ অপারেশন করলে সেটাও হতো না। তিনি পঙ্গু হাত নিয়ে বেঁচে থেকে সন্তুষ্ট থাকতে বলেন।

স্কয়ার হাসপাতালের এমন অবহেলা, স্বেচ্ছাচারিতা ও অর্থ লালসার জন্য তার পঙ্গুত্ববরণ করে নিতে হচ্ছে তার বিচার চান শামীম। একই সঙ্গে ঢাবি প্রশাসন, ডাকসুসহ অন্যদের সহযোগিতা চান সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের ভুক্তোভূগী এই আবাসিক ছাত্র।

ঢাকাটাইমস/১৮এপ্রিল/এনএইচ/ডিএম

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিক্ষা এর সর্বশেষ

বাংলাদেশ লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড পেলেন প্রাইমএশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার

মাইলস্টোন কলেজে বিএনসিসির ব্যাটালিয়ান ক্যাম্প

ঢাকা শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি বাবুল, সম্পাদক ফিরোজ

বিএসএমএমইউ’র অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের বিদায়ী সংবর্ধনা

স্বাধীন সাংবাদিকতা নিশ্চিতের দাবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন

বশেমুরবিপ্রবি ভিসির পদত্যাগ দাবি যবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির

কুবিতে ১০ প্রশাসনিক পদে রদবদল

ভিসির পদত্যাগ দাবিতে বিক্ষোভ, রাষ্ট্রপতির দিকে তাকিয়ে ফারজানা

জাবি উপাচার্যকে পদত্যাগে আলটিমেটাম

বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই ছাত্রীর বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :