‘বাঁচতে চাই’, আকুতি আ.লীগ নেতার

নেত্রকোণা প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২২ জুন ২০১৯, ১৬:৩২

নেত্রকোণায় জটিল রোগে আক্রান্ত এক আওয়ামী লীগ নেতার চিকিৎসা আটকে অর্থাভাবে। তার নাম মমিনুল হক তালুকদার। তিনি গত ৩১ বছর ধরে খালিয়াজুরী উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

মমিনুল গাজীপুর ইউনিয়নের পাঁচহাট গ্রামের বাসিন্দা। তার দুটি কিডনিতেই সমস্যা দেখা দিয়েছে। তার চিকিৎসার প্রায় ১৫ লাখ টাকা ব্যয় করতে সহায়সম্বল যা ছিল সব বেচে দিয়েছেন।

কিডনি রোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার শমরিতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। বর্তমানে সপ্তাহে দুইবার কিডনিতে ডায়ালয়সিস করাতে হয়।

চিকিৎসকেরা বলেছেন, মমিনুলের উন্নত চিকিৎসা দরকার। ভালো চিকিৎসা পেলে স্বাভবিক জীবন যাপন করতে পারবেন।

মমিনুল হক তালুকদার এখন বিনা চিকিৎসায় কিশোরগঞ্জের খরমপট্টির বাসায় দিন কাটাচ্ছেন। ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘আমার ও আমার পরিবারের পক্ষে চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করা সম্ভব হচ্ছে না। এখন যদি প্রধানমন্ত্রী আমার দিকে তাকান, তাহলে আমি বেঁচে যাব।’

১৯৭৮ সালে মেট্রিক পাস করে ঢাকা তেজগাঁও কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকে ভর্তির পরই ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়ান মমিনুল। ছাত্রজীবন শেষ করে এলাকায় ফিরে যান। যুক্ত হন আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে। তখন দলের দুঃসময়। ১৯৮৯ সালে গাজিপুর ইউনিয়ন সভাপতির দায়িত্ব পান। তখন ইউনিয়নটি ছিল কিশোরগঞ্জ জেলায়। পরে ১৯৯৫সালে ইউনিয়নটি যুক্ত হয় নেত্রকোণায়। তখনও তিনি ইউনিয়নটির আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

এই নেতার বাবা আব্দুল খালেক, ভাই মইনুল হক তালুকদার , চাচা প্রাক্তন ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহাব তালুকদার আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পদে থেকে দলের হয়ে কাজ করেছেন।

ঢাকাটাইমস/২০জুন/প্রতিনিধি/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত