রান্নাঘরের এসব জিনিসেই ফেসিয়ালের চেয়েও উজ্জ্বল ত্বক

ঢাকা টাইমস ডেস্ক
| আপডেট : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:৪৫ | প্রকাশিত : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:৪৩

উজ্জ্বল ত্বকের জন্য মেয়েদের অনেক কষ্ট করতে হয়। নানা ধরনের দামী প্রসাধনী ব্যবহার করে একদিকে যেমন অর্থ ব্যায় হয় অন্যদিকে কাজও তেমন একটা হয় না।  তাই ত্বক উজ্জ্বল করতে কেমিক্যালযুক্ত প্রসাধনী পণ্য ব্যবহার না করে বাসার রান্নাঘরের অতি সহজলভ্য কিছু জিনিস ব্যবহার করতে পারেন। এতে খরচও যেমন বাঁচবে তেমনই ত্বকও ফেসিয়ালের চেয়ে উজ্জ্বল হয়ে উঠবে।

চলুন জেনে নিই সেসব জিনিস ও তার ব্যবহার সম্পর্কে-

আদা: রান্নাকে সুস্বাদু করার পাশাপাশি আদা ত্বকের হারানো উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনতে ভূমিকা রাখে। আমাদের ত্বকের প্রধান শত্রু বেগুনি আলো মানে আলট্রাভায়োলেট রশ্মি। এর প্রভাবে একদিকে ত্বকে কালচে ছোপ পড়ে। অন্যদিকে অকালে বলিরেখা পড়ার গতি বাড়িয়ে দেয়। এসবেরই সমাধান রয়েছে আদায়।

আদার রস এবং শুকনো গুঁড়ো দুইই ত্বকের ক্ষতি সারিয়ে দেয়। এর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ত্বকের জন্য এক অত্যন্ত প্রয়োজনীয় টোনার। ত্বকের দাগ ছোপ এমনকি কাটা দাগও হালকা করে দিতে পারে। একচামচ আদার রসের সঙ্গে একচামচ লেবুর রস ও মধু মিশিয়ে মুখে, গলায়, হাতে লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। ২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

সপ্তাহে দু’তিন দিন আদার রস বা শুকনো আদার গুঁড়োর সঙ্গে অল্প ছোলার বেসন, দুধ ও মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে মুখে ও গলায় লাগিয়ে ১০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যেই ত্বকের ঝকঝকে ভাব ফিরে আসবে।

ভাত: ভাত খাওয়ার আগে অল্প ভাত সরিয়ে রাখুন। ভাতের সঙ্গে লেবুর রস, কফি পাউডার আর চিনি মিশিয়ে পেস্ট করে নিন। মুখে হাতে গলায় লাগিয়ে রাখুন ১০– ১৫ মিনিট। অল্প পানি হাত করে স্ক্রাব করে ধুয়ে ফেলুন। এর পর ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। বলিরেখা পড়বে না, আর ম্যাড়ম্যাড়ে ভাব কেটে গিয়ে উজ্জ্বল হয়ে উঠবে।

ভাতের ফ্যান: ফ্যান ঠাণ্ডা করে অল্প মধু আর সামান্য লেবুর রস দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। ব্রাশে করে মুখে গলায় লাগিয়ে ১০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। বাকিটা ফ্রিজে রেখে দিন। ৩/৪ দিন ব্যবহার করতে পারবেন। ত্বকের রুক্ষতা কেটে গিয়ে মোলায়েম হবে।

গোলমরিচ: ত্বক ও চুলের পাশাপাশি মেটাবলিজিম বাড়িয়ে ওজন কমাতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখে গোলমরিচ। ব্রণ ও বলিরেখা হঠিয়ে দিতে পারে। সপ্তাহে একদিন গোলমরিচ দিয়ে প্যাক বানিয়ে নিন। গোলমরিচ গুঁড়ো করে দুধ ও বেসন মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে মুখে গলায় হাতে লাগিয়ে ১০ -১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে নিন।

আলু: টুকরো করে কেটে আলু বেটে নিন। আলুর এই পেস্ট মুখসহ শরীরের অনাবৃত অংশে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে নিন। আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে দেখুন কেমন গ্ল্যামার বেড়েছে!

পাকা পেঁপে: এই ফল খেতে ভালই লাগে। পেঁপের খোসা ব্লেন্ড করে নিয়ে মুখে হাতে গলায় লাগিয়ে রাখুন। কিছু ক্ষণ পরে ধুয়ে নিন। ত্বক হবে ঝকঝকে।

তবে এসব রূপচর্চার পাশাপাশি নির্দিষ্ট সময়ে পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। রোজ ৮–১০ গ্লাস পানি অবশ্যই পান করতে হবে। এছাড়া ত্বক ও চেহারা ঠিক রাখতে সঠিক ঘুমও অত্যন্ত জরুরী।

হলুদ: সৌন্দর্যের অপার রাজত্বের নাম হলুদ। রূপচর্চার ইতিহাসে এই উপাদানটি চিরন্তন। তাই হলুদকে পরীক্ষিত ভেষজ উপাদান বলা হয়ে থাকে। এর অনেক গুণাগুণ রয়েছে। হলুদ ব্যবহারের ফলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে আরও বিভিন্ন ধরনের উপকার করে থাকে।

এক চা চামচ হলুদের রস, এক চা চামচ দুধ, এক চা চামচ বেসন ও আধা চা চামচ চন্দন গুঁড়ো এক সাথে মিশিয়ে ত্বকে লাগান। ১৫ – ২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বক ফর্সা করবে। দুধ ত্বকের শুষ্ক ভাব দূর করবে। কাঁচা হলুদ, মসুর ডাল এক সাথে বেটে পেস্ট তৈরি করে মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বক উজ্জ্বল হবে। হলুদের গুঁড়ো ও লেবুর রস মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিয়মিত ব্যবহার করলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে।

ঢাকা টাইমস/০৪সেপ্টেম্বর/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :