পশ্চিমবঙ্গে এনআরসি হবেই: স্মৃতি ইরানি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:২৮ | প্রকাশিত : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:০৯

কলকাতায় নাগরিক পঞ্জি করার বিষয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ বলে জানিয়েছেন দেশটির কেন্দ্রীয় মহিলা, শিশুবিকাশ এবং বস্ত্রমন্ত্রী স্মৃতি ইরানি।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন নাগরিক পঞ্জির বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছেন তখন কলকাতায় গিয়ে স্মৃতি ইরানি নাগরিক পঞ্জির ব্যাপারে এমন মন্তব্য করেন।

মোদি সরকারের ১০০ দিন উপলক্ষে গতকাল কলকাতায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন স্মৃতি ইরানি। তুলে ধরেন ১০০ দিনে মোদি সরকারের সাফল্যের খতিয়ান। এ সময় কাশ্মীরে ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপ থেকে নাগরিক পঞ্জি- সবই সরকারের সাফল্য হিসেবে ব্যাখ্যা করেন স্মৃতি।

গত ৩১ আগস্ট আসামের এনআরসি প্রকাশিত হয়। ওই তালিকায় চূড়ান্তভাবে ঠাঁই হয়েছে ৩ কোটি ১১ লাখ মানুষের। আর তালিকা থেকে বাদ পড়েছে ১৯ লাখ ৬ হাজার মানুষ।

তালিকা প্রকাশের পর এই বিশালসংখ্যক মানুষের ভবিষ্যৎ অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে। উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা আর আতঙ্কে দিন কাটছে তাদের। তালিকা হওয়ার পর বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে পশ্চিমবঙ্গসহ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে। সমালোচনা করেন বিভিন্ন দেশও।

শুধু আসাম নয়, দেশটির উত্তর-পূর্বসহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে এনআরসি চালু করার চেষ্টা চালাচ্ছে ক্ষমতাশীন বিজেপি। কিন্তু শুরু থেকেই বিজেপির এই পদক্ষেপের ঘোর বিরোধিতা করছে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাশীন দল তৃণমূল।

আসামে নাগরিক তালিকার বিরোধিতা করে ইতোমধ্যে রাজ্যের ব্লকে ব্লকে মিছিল এবং সভা করেছে তৃণমূল। এছাড়া আজ, আগামীকাল (বৃহস্পতিবার), সিথি থেকে শ্যামবাজার পর্যন্ত বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবে তৃণমূল। মমতার এমন অবস্থানের মধ্যেই কলকাতায় নাগরিক পঞ্জি করার বিষয়ে মত দেন স্মৃতি ইরানি।

ভারতের কেন্দ্রীয় মহিলা, শিশুবিকাশ মন্ত্রী বলেন, ‘এক সময় ভুয়া ভোটার আটকাতে সচিত্র ভোটার কার্ডের পক্ষে সওয়াল করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এটা মমতার দ্বিচারিতা।’

সচিত্র ভোটার কার্ডের আন্দোলনের সঙ্গে নাগরিক পঞ্জির কী সম্পর্ক? এমন প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে গিয়ে স্মৃতি বলেন, ‘অনুপ্রবেশকারীদের আটকাতে পশ্চিমবঙ্গসহ গোটা দেশেই নাগরিক পঞ্জি হবে। এটা বিজেপির ঘোষিত সিদ্ধান্ত।’

সাংবাদিক সম্মেলনে কাট মানি প্রসঙ্গেও তৃণমূলের সমালোচনা করেছেন স্মৃতি। বলেন, রাজ্য সরকার যে দুর্নীতিপরায়ন, তা কাটমানি নিয়ে তাদের অবস্থান থেকেই স্পষ্ট। কাটমানি ফেরত নেওয়ার জন্যও এ রাজ্যে আক্রান্ত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ।

স্মৃতির অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে রাজ্যের মন্ত্রী তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘স্মৃতি আজ যা বলছেন, কাল নিজেই বলবেন তা ঠিক নয়। এসব কথাকে বেশি গুরুত্ব না দেওয়াই ভালো।’

ঢাকাটাইমস/১১সেপ্টেম্বর/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :