আবরার হত্যার আসামি সাদাতকে চেনেই না গ্রামবাসী

জয়পুরহাট প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ২২:১০

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যা মামলার অন্যতম আসামি গ্রেপ্তারকৃত নাজমুস সাদাতকে চেনে না তার গ্রামবাসী। সাদাতের জন্মও হয়নি ওই গ্রামে। বাবার চাকরি সূত্রে জয়পুরহাট ও রাজশাহীতে বেড়ে ওঠা সাদাত কখনো-সখনো গ্রামে এসেছেন বাবা-মায়ের সঙ্গে।

জয়পুরহাট সদর উপজেলার কড়ই উত্তরপাড়ার হাফিজুর রহমানের ছেলে সাদাত পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে বৃত্তি পান এবং ২০১৫ সালে রাজশাহী গর্ভমেন্ট ল্যাবরেটরি হাইস্কুল থেকে এসএসসিতে রাজশাহী বোর্ডে তৃতীয় স্থান অর্জন করেন। ২০১৭ সালে রাজশাহী কলেজে থেকে এইচএসসিতে রাজশাহী বোর্ডে হন চতুর্থ। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, রুয়েট, কুয়েটে ভর্তি পরীক্ষায় সুযোগ পেলেও শেষ পর্যন্ত বুয়েটকে বেছে নেন তিনি। এই প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের যন্ত্রকৌশল বিভাগের ১৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থী সাদাত।

সাদাতের চাচাতো চাচা কড়ই নুরুল হুদা কামিল মাদ্রাসার ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষক আব্দুল মতিন জানান, ‘চাকরির কারণে হাফিজুর প্রথমে জয়পুরহাট শহরে ছিলেন এবং বর্তমানে রাজশাহীতে বসবাস করছেন। গ্রামের সবাই তাকে চিনলেও তার ছেলে সাদাতকে সেভাবে কেউ চেনে না। সাদাত তার দাদার বাড়ি খুব কম আসত। গ্রামের মানুষ তাকে চিনত সজিব নামে। গ্রেপ্তার হওয়ার পর বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর দেখে তারা আবরার হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সাদাতের জড়িত থাকার বিষয়টি জানতে পারেন।’

আবরার হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি নাজমুস সাদাত বিরামপুরের কাটলা সীমান্ত দিয়ে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) ভোররাত সাড়ে তিনটায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা শাখার একটি দল তাকে তার এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে।

ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাসের সূত্রে আবরার ফাহাদকে শিবির সন্দেহে গত ৬ অক্টোবর বুয়েটের শেরে বাংলা হলের একটি কক্ষে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেন ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। ওই হলের ভিডিও ফুটেজে তাদের সঙ্গে সাদাতকেও দেখা যায়।

 (ঢাকাটাইমস/১৬অক্টোবর/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :