না.গঞ্জ আ.লীগের ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১:৪৯ | প্রকাশিত : ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১:৪৪

নারায়ণগঞ্জ শহরে ফুটপাতে হকার বসানো নিয়ে মেয়র আইভীসহ সঙ্গে থাকা লোকজনদের ওপর হামলার ঘটনায় আদালতের নির্দেশে আওয়ামী লীগের নয় নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে একটি মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলাটি রেকর্ড হয়।

এর আগে বুধবার নারায়ণগঞ্জের একটি আদালত মামলা রেকর্ড করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নিতে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসিকে নির্দেশ দেন। ওই মামলায় হামলার ঘটনায় ইন্ধনদাতা হিসেবে এমপি শামীম ওসমানের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জয়নাল আবেদীন মন্ডল জানান, ‘আদালতের নির্দেশে মামলাটি রেকর্ড হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

মামলায় ৯ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত আরও এক হাজার জনকে আসামি করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে হত্যার চেষ্টা, জখম, নাশকতা, ভাঙচুরসহ অরাজকতার অভিযোগ আনা হয়েছে।

মামলায় অভিযুক্তরা হলেন, ঘটনার দিন অস্ত্র প্রদর্শনকারী নিয়াজুল ইসলাম খান, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনু, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, যুবলীগ নেতা জানে আলম বিপ্লব, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান সুজন, যুবলীগ নেতা নাসির উদ্দিন ওরফে টুন্ডা নাসির, যুবলীগ নেতা চঞ্চল মাহমুদ। এছাড়াও অজ্ঞাতনামা প্রায় ৯০০ থেকে ১০০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলার আবেদনে এদের প্রত্যেকের গ্রেপ্তারি পরোয়ানার দাবি করা হয়েছিল।

আইভীকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ এনে গত বুধবার বিকালে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আইন কর্মকর্তা জি এম এ সাত্তার বাদী হয়ে মামলাটি করেন। ২২ মাস ১৮ দিন পর আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়। নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান এর সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আদালত অভিযোগটি আমলে নিয়ে সদর মডেল থানাকে আইনগত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার বাদী নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত আইন কর্মকর্তা জি এম এ সাত্তার বলেন, বঙ্গবন্ধু সড়কের ফুটপাতে হকার বসা কেন্দ্র করে ২০১৮ সালের ১৬ জানুয়ারি চাষাড়ায় বঙ্গবন্ধু সড়কে মেয়র আইভীর উপর মামলার আসামি ৯জন সহ অস্ত্রশস্ত্রসহ হামলা চালায় এবং আরো প্রায় এক হাজার ব্যক্তি বৃষ্টির মতো ইট-পাটকেল ছোড়ে।

বাদী অভিযোগ করেন, এমপি শামীম ওসমানের ইন্ধনে ও প্রচারণাতেই এই হামলার ঘটনা ঘটে। ওইদিন এ ঘটনায় মেয়র আইভী ও তার সমর্থকদের হামলায় ৪৩ জন গুরুতর আহত হয়। এ ঘটনায় প্রায় শতাধিক ব্যক্তি আহত হন। ওখানে মেয়রের সামনে উপস্থিত ব্যক্তিরা মানবঢাল তৈরি করে মেয়রকে উদ্ধার করেন।

বাদী বলেন, এই ঘটনার ৫দিন পর ২২ জানুয়ারি আমি বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় এজাহার দেয়া হলেও তা পুলিশ মামলা হিসেবে না নিয়ে জিডি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করে। পরে চলতি বছরের ১৭ এপ্রিল জেলা পুলিশ সুপারের কাছে এ ব্যাপারে লিখিত আবেদন করা হয়।

তাতেও কোনো ফল না হওয়ায় উচ্চ আদালতে রিট পিটিশন দায়ের করেন। উচ্চ আদালতের আদালতের বিচারক এম এনায়েতুর রহিম ও মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান এর গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ ১ ডিসেম্বর এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে নারায়ণগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

উচ্চ আদালতের নিদের্শ মতে বুধবার নারায়ণগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলার আবেদন করেন। আদালত শুনানি শেষে মামলা রেকর্ড করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নিতে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসিকে নির্দেশ দেন।

ঢাকাটাইমস/০৫ডিসেম্বর/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :