আপন জুয়েলার্সের মালিকের মামলায় পিয়াসার জামিন

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৭:৩০
সাবেক স্বামী সাফাত আহমেদের সঙ্গে ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা।

আপন জুয়েলার্সের কর্ণধার দিলদার আহমেদ সেলিমের মামলায় সিএমএম আদালত থেকে জামিন পেয়েছেন তার সাবেক পুত্রবধূ ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা।

অনধিকার প্রবেশ ও হত্যার হুমকির অভিযোগের ওই মামলায় বুধবার আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন ফারিয়া মাহবুব। পরে ঢাকা মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেন শুনানি শেষে জামিন মঞ্জুর করেন।

আসামি পিয়াসার পক্ষে অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম ও সানাউল ইসলাম টিপু জামিন আবেদনের শুনানি করেন। পিয়াসা বনানী রেইনট্রি হোটেলে দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার প্রধান অভিযুক্ত সাফাত আহমেদের সাবেক স্ত্রী।

চলতি বছর ৫ মার্চ ফারিয়া মাহবুব পিয়াসার বিরুদ্ধে এ মামলাটি দায়ের করেন দিলদার আহমেদ সেলিম। আদালত মামলাটি গুলশান থানা পুলিশকে মামলাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

মামলাটি তদন্তের পর গত ১ আগস্ট ফারিয়া মাহবুব পিয়াসাকে অভিযুক্ত করে গুলশান থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুব আলম আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

আদালত ওই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে ১১ ডিসেম্বর পিয়াসাকে আদালতে হাজির হতে সমন জারি করেছিলেন। সে অনুযায়ী পিয়াসা আদালতে হাজির হয়ে আত্মসমর্পণ করেন।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, পিয়াসা আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে দিলদার আহমেদেরে ছেলে সাফাত আহমেদকে ফুঁসলিয়ে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে ২০১৫ সালের ১ জানুয়ারি বিবাহ করেন। পরে তিনি জানতে পারেন পিয়াসা মাদকাসক্ত এবং উশৃঙ্খল চলাফেরা ও জীবন-যাপনে অভ্যস্ত। পরে সাফাত আহমেদ ২০১৭ সালের ৮ মার্চ পিয়াসাকে তালাক দেন। সাফাত রেইনট্রির ধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে দীর্ঘদিন কারাগারে থাকার পর গত বছরের ২৯ নভেম্বর জামিন পান। সাফাত জামিন পাওয়ার পর পিয়াসা বাড়িতে যান এবং পরিবারের লোকজনের সঙ্গে অশালীন আচরণ ও অনৈতিক কার্যকলাপ শুরু করেন। পিয়াসা মাদকসহ বিভিন্ন নেশায় আসক্ত এবং তার মাদকসেবী বন্ধুদের নিয়ে বাসায় মাদকের আড্ডা দেন। এসব দেখে পিয়াসা ও তার বন্ধুদের বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতে বলেন দিলদার আহমেদ। পিয়াসা তাতে অস্বীকৃতি জানান। গত ১০ ফেব্রুয়ারি পিয়াসা সাফাতের ছোট ভাই ও মায়ের সঙ্গে খারাপ আচরণ করলে দিলদার আহমেদ বাধা দেন। পরে পিয়াসা দিলদার আহমেদ ও তার পরিবারের লোকজনকে প্রাণনাশের হুমকি দেন এবং ৫ কোটি টাকা দাবি করেন। গত ১৪  ফেব্রুয়ারির মধ্যে টাকা দেয়ার আল্টিমেটাম দেন। না দিলে তাদের পরিবারকে মিডিয়া ও ডিজিটাল আইনে বিভিন্ন মামলাসহ নারী ঘটিত মামলায় জড়িয়ে জেল খাটানোর এবং সন্ত্রাসী দিয়ে দিলদার আহমেদকে মেরে ফেলার হুমকি দেন। আবারও সে ৫ কোটি টাকা দাবি করেন বলে অভিযোগ করা হয়।

এদিকে আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ সেলিমের বিরুদ্ধে চলতি বছর ১১ মার্চ পুত্রবধূর পিয়াসা গর্ভপাতের চেষ্টাসহ নির্যাতনের অভিযোগে সিএমএম আদালতে একটি মামলা করেছিলেন। ওই মামলাটি বর্তমানে তদন্তাধীন আছে।

ঢাকাটাইমস/১১ডিসেম্বর/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :