যেভাবে সিসিটিভিতে ধরা পড়ল নারীর মরদেহ গুমের দৃশ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১০ জুলাই ২০২০, ২২:০৪

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দুইটা। রাজধানীর পান্থপথের ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির গলির একটি বাসা থেকে এক নারীর নিথর দেহ 'গলাবেঁধে' টেনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। পরে মরদেহটি কয়েকটি বাসার পাশে একটি ফাঁকা জায়গায় ফেলে রাখা হয়। আর এসব দৃশ্য ধরা পড়ে সিসিটিভি ফুটেজে। এরপর ঘটনার রহস্য উদঘাটনে নামে পুলিশ। পরে ঘটনায় জড়িত সন্দেহভাজন আনসার আলীকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। তিনি ওই বাড়ির সিকিউরিটি গার্ড বলে জানা গেছে।

লিশ জানিয়েছে, গতকাল সন্ধ্যায় বাড়িটিতে প্রবেশ করে মোমেনা খাতুন নামে এক নারী। ওই নারীর সঙ্গে দারোয়ান আনসার আলী অপকর্মে লিপ্ত হতে চান। এ সময় ওই নারী চিৎকার-চেঁচামেচি করতে চাইলে দারোয়ান ক্ষিপ্ত হন। অপকর্মে ব্যর্থ হয়ে তাকে টয়লেটে নিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। এরপর রাত ২টার দিকে ওই নারীকে কয়েকটি বাড়ির পাশের ফাঁকা জায়গায় ফেলে আসেন।

মরদেহ ফেলে আসার চিত্র ধরা পড়ে সিসিটিভিতে। শুক্রবার ভোররাতে মরদেহ উদ্ধারের ঘটনা উদঘাটনে মাঠে নামে গোয়েন্দা পুলিশ। এরপরই ধরা পড়ে অভিযুক্ত।

ডিবি সূত্র জানায়, ভোর ৪টার দিকে ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির গলিতে মোমেনার লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনার তদন্তে নেমে সকাল ৮টার দিকে খুনি আনসারকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে ওই এলাকার একটি দোকানের সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করা হয়। সেখানেই মরদেহ গুমের দৃশ্য ধরা পড়ে।

ডিবি রমনা জোনাল টিমের এডিসি মিশু বিশ্বাস বলেন, ‘প্রথমে ওই নারী অজ্ঞাত পরিচয়ের ছিল। পরে ফিঙ্গার প্রিন্টের মাধ্যমে তার পরিচয় শনাক্ত করা হয়। চল্লিশোর্ধ্ব ওই নারীর নাম মোমেনা খাতুন। তার গ্রামের বাড়ি শেরপুর। গ্রেপ্তার আনসারের বক্তব্যে ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা বেরিয়ে এসেছে। তাকে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে আরও বিস্তারিত জানা যাবে।

(ঢাকাটাইমস/১০জুলাই/এসএস/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অপরাধ ও দুর্নীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :