বর্ষায় বিন্নার ফুলই তাদের ভরসা

শায়লা পারভীন, তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ)
 | প্রকাশিত : ০৪ অক্টোবর ২০২০, ১৩:৩৮

বর্ষা মৌসুমে তেমন কাজ না থাকায় সংসার চালাতে দলবেঁধে বিন্নার ফুল সংগ্রহ করেন সিরাজগঞ্জের তাড়াশের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মানুষগুলো। এ ফুল দিয়ে তারা ঝাড়ুসহ নানা সামগ্রী তৈরি করে তা বাজারে বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করেন।

আবার অনেকেই ঝাড়ু ও খেজুর পাতার পাটি তৈরি করে সংসার চালোনোর চেষ্টা করছেন। কেউ কেউ জীবন বাঁচানোর তাগিতে মহাজনি ঋণ ও আগাম শ্রম বিক্রি করছেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, তাড়াশের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির নারীরা দল বেঁধে বর্ষায় ডুবে যাওয়া সড়কের পাশে থাকা বিন্নার ফুল সংগ্রহ করছে। এগুলো দিয়ে তারা ঝাড়ু তৈরি করে বাজারে বিক্রি করবেন।

জানা গেছে, সিরাজগঞ্জের তাড়াশ ও রায়গঞ্জে প্রায় ৩০ হাজার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির মানুষ বসবাস করে। এর মধ্যে উড়াও, মাহাতো, রাজবংশী, বিদাস, কনকদাস ও স্বল্পসংখক সাওতাল নারী-পুরুষ রয়েছেন। এক সময় এসব সম্প্রদায়ের নারী-পুরুষেরা বনে-জঙ্গলে ঘুরে শিয়াল, খরগোশ, কচ্ছপসহ নানা পশু-পাখি শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করতো। কিন্তু সময়ের ব্যবধানে বন-জঙ্গল উজার হয়ে যাওয়ায় তাদের জীবিকা নির্বাহের পথ বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে এখানকার সকল ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর নারী-পুরুষেরা ধান লাগানো, কাটা, মাড়াই, ইটভাটায়সহ বিভিন্ন কাজে শ্রম দিয়ে জীবিকা নির্বাহের পথ বেছে নেয়। কঠোর পরিশ্রমী, সহজ-সরল আর অপেক্ষাকৃত পারিশ্রমিকের দাম কম হওয়ায় তাদের এ অঞ্চলে চাহিদাও অনেক বেশি। সাধারণত বর্ষাকালে তাদের নিজ এলাকায় কাজ থাকে না। এ অঞ্চলের ৮০ থেকে ৮৫ ভাগ ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সদস্য কৃষি শ্রমজীবী। কৃষিকাজে শ্রম বিক্রি করেই তাদের সংসার চালাতে হয়। কাজ না থাকায় অর্থ সংকটে পড়ে বর্তমানে তারা আগাম শ্রম বিক্রি শুরু করেছেন।

উপজেলার দেশীগ্রাম ইউনিয়নের কাটাগাড়ী গ্রামের জ্যোতীস মাহাতো জানান, ভাদ্র-আশ্বিন ও কার্তিক মাসে তাদের কোন কাজ থাকে না। তাই এখন তারা অগ্রহায়ন-পৌষ মাসে বোরো ধান লাগানো, কাটার কাজে অনেকের সাথে চুক্তিবদ্ধ হচ্ছেন। ওইসব কাজ করার জন্য দিনে ২০০ থেকে ৩০০ টাকায় আগাম শ্রম বিক্রি করেছেন। ভরা মৌসুমে মজুরি থাকে ৪৫০ থেকে ৪০০ টাকা।

তাড়াশ উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান বলেন, ‘আমাদের সমাজসেবা অধিপ্তরের মাধ্যমে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির মানুষদের জীবনমান উন্নয়নে তাদের এককালীন অর্থ দেওয়া হয় ও শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি দেওয়া হয়।’

(ঢাকাটাইমস/৪অক্টোবর/পিএল)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :