বায়োপসি রেজাল্টের ওপর নির্ভর করছে খালেদার চিকিৎসা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৭:২৩
ফাইল ছবি

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বায়োপসি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন। তিনি বলেন, এই পরীক্ষার রিপোর্ট আসতে সময় লাগে। সেটা কমপক্ষে ৭২ ঘণ্টা। আবার কোনো কোনো ক্ষেত্রে ১৫ থেকে ২১ দিনও লাগে। এর রেজোল্টের ওপর নির্ভর করবে তার চিকিৎসা কেমন হবে।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিকালে রাজধানীর গুলশানে বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন তিনি এসব কথা বলেন।

ডা. এ জেডএম জাহিদ হোসেন বলেন, মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা দেখলেন বেগম জিয়ার শরীরে একটি ছোট লাম্প আছে। সেজন্য বায়োপসি করা প্রয়োজন। অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে সেটি করা হয়েছে। এর রেজাল্ট আসতে সময় লাগে। শুধু বায়োপসি করলেই হবে না। এটার জেনেটিক স্টাডি করতে হবে। সব স্টাডি দেশে করাও যায় না।

চিকিৎসক ও বিএনপি নেতা জাহিদ বলেন, অপারেশনের পর ম্যাডাম এখন ভালো আছেন। তিনি এখন বিপদমুক্ত। শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন পরিবারের সঙ্গে। তার বড় ছেলে তারেক রহমান, ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার এবং আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমানের সঙ্গেও কথা বলেছেন।

বেগম জিয়ার এই চিকিৎসক বলেন, বায়োপসি হচ্ছে ডায়াগনস্টিক প্রসেসের একটি পার্ট। পরবর্তী চিকিৎসা কী হবে তা এর রেজাল্টের ওপর নির্ভর করবে। তার বয়স এখন ৭৬ চলছে। পুরানো সমস্যা ও জটিলতাও রয়েছে। মেডিকেল বোর্ড মতামত দিয়েছেন, সুচিকিৎসার জন্য ডেডিকেটেড ডেভেলপ সেন্টারে নিয়ে চিকিৎসার প্রয়োজন রয়েছে। অতি দ্রুত দেশের বাইরে নিয়ে সুচিকিৎসা করা যায় সে ব্যবস্থা হলে ভালো হবে।

এসময় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘পরিবারের পক্ষ থেকে দেশের বাইরে নিয়ে যাওয়ার জন্য আবেদন করা হয়েছিলে। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য, জামিন প্রাপ্য হওয়া সত্ত্বেও সরকার তাকে জামিন দিচ্ছে না। যদি বড় ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হয় তার দায় দায়িত্ব সরকারকেই নিতে হবে।’

ফখরুল বলেন, ‘বেগম জিয়ার শারীরিক যে অবস্থা তাতে সরকারেরই বিদেশ যাওয়ার সুযোগ তৈরি করে দেওয়া উচিত। আদালতের মাধ্যমে সুরাহার যে যুক্তি দিয়েছেন, তা মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন।’

(ঢাকাটাইমস/২৫অক্টোবর/বিইউ/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :