সৌদি খেজুর চাষে ৫০ লাখ টাকা ঋণ দেবে সরকার

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮:২১
ফাইল ছবি

পুষ্টিকর ও লাভজনক সৌদি আরবের খেজুর চাষে উদ্বুদ্ধকরণে বিশেষ পদক্ষেপ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই খেজুর চাষের জন্য ৫০ লাখ টাকারও বেশি কৃষিঋণ পাওয়া যাবে। একজন গ্রাহক পাঁচ একর জমিতে সৌদি খেজুরের চাষ করলে এই পরিমাণ অর্থ কৃষিঋণ নিতে পারবেন।

শুধু সৌদি খেজুর নয়, ভিয়েতনামি নারিকেল, সুইট কর্ন ও কফিকে কৃষি ফল ও পণ্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করে কৃষিঋণ বিতরণ করার নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

মঙ্গলবার এবিষয়ে একটি সার্কুলার জারি করে দেশে কার্যরত সব তফসিলি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার (সিইও) কাছে পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচির আওতায় শস্য, ফসল, ফল ও ফুল ইত্যাদির সঙ্গে সৌদি খেজুর, ভিয়েতনামি নারিকেল, সুইট কর্ন ও কফি চাষ অন্তর্ভুক্ত মর্মে বিবেচিত হবে।

ঋণ নিয়মাচার ও উৎপাদন পঞ্জিকা অনুসরণ করে এই ফল ও ফসলগুলোতে ঋণ বিতরণের জন্য ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

একজন কৃষক সর্বোচ্চ পাঁচ একর জমিতে সৌদি খেজুর চাষের জন্য সুষম সার, বীজ, সেচ, কীটনাশক, শ্রম, জমির ভাড়াসহ সর্বমোট ৫০ লাখ ২৭ হাজার টাকা ঋণ গ্রহণ করতে পারবেন।

তবে সর্বনিম্ন শূন্য দশমিক ৫০ বিঘার জন্য এক লাখ ৬৭ হাজার ৫৬৭ টাকা ঋণ পাওয়া যাবে। এছাড়া ভিয়েতনামি নারিকেল চাষে প্রতি পাঁচ একরের জন্য একজন কৃষক ২১ লাখ ৪৫ হাজার টাকা ও সর্বনিম্ন ৭১ হাজার ৫০০ টাকা ঋণ নিতে পারবেন।

প্রতি পাঁচ একর জমিতে সুইট কর্ন চাষের জন্য সর্বোচ্চ ৩৩ লাখ টাকা এবং শূন্য দশমিক ৫০ বিঘা জমির জন্য সর্বনিম্ন ১১ হাজার টাকা ঋণ পাওয়া যাবে। কফি চাষের জন্য ১৯ লাখ ২০ হাজার টাকা (পাঁচ একর জমি) ও সর্বনিম্ন ৬৪ হাজার টাকা (শূন্য দশমিক ৫০ বিঘা) ঋণ গ্রহণ করতে পারবেন একজন কৃষক।

(ঢাকাটাইমস/২৬অক্টোবর/এসকেএস/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :