নরসিংদীতে নির্বাচনী সহিংসতায় গুলিবিদ্ধ ১০

নরসিংদী প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৩:৩২ | প্রকাশিত : ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৮:৪৭

বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে সহিংস ঘটনার মধ্য দিয়ে নরসিংদী সদর ও রায়পুরা উপজেলার ২২ ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচন চলাকালে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ১০ জন গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন।

পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সাঈদ আনোয়ারসহ আহতদেরকে নরসিংদী সদর হাসপাতাল ও বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত দুজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এলাকাবাসী জানায়, নরসিংদী সদর উপজেলার করিমপুর, নজরপুর, চিনিশপুর ও রায়পুরা উপজেলার মরজাল ইউনিয়নে ভোট চলাকালে দুপুরের দিকে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া চলে। এসময় ককটেল বিস্ফোরণ ও গুলিবিদ্ধ হয়ে অন্তত ৩০ জন আহত হয়। কিছু কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত হয়ে যায়। পরে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে পুনরায় ভোটগ্রহণ চলে।

নরসিংদী সদর উপজেলার করিমপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মমিনুর রহমান আপেল প্রতিপক্ষ স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম কিবরিয়ার সমর্থকদের মধ্যে দুপুর দেড়টার দিকে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় দুপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাবার বুলেট ছুঁড়লে কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়।

এছাড়া দুপুর ২টার দিকে নজরপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী সাইফুল হক স্বপন ও প্রতিপক্ষ স্বতন্ত্র প্রার্থী জালাল উদ্দিন সরকারের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরিত হয়। এতে প্রায় ১০ জন আহত হয়। একই সময়ে চিনিশপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নুরুজ্জামান ও প্রতিপক্ষ স্বতন্ত্র প্রার্থী তুহিনের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালে আহত হন পুলিশের এএসআই সাঈদ আনোয়ার।

দুপুরের পর বেলা আড়াইটার দিকে রায়পুরা উপজেলার মরজাল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সানজিদা সুলতানা নাসিমার সমর্থক রায়পুরা থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন অপু প্রতিপক্ষের গুলিতে গুরুতর আহত হয়। তাকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে বিষয়টি সম্পর্কে নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. সাহেদ আহমেদ তথ্য জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

(ঢাকাটাইমস/২৮নভেম্বর/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :