হঠাৎ কেন সুর পাল্টালেন মির্জা আব্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩:২১

বিএনপির ১০ ডিসেম্বরের গণসমাবেশ রাজধানীর নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনেই হবে বলে কিছুদিন ধরে বিভিন্ন সভা-সমাবেশে দেওয়া বক্তব্যে বলে আসছিলেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। এ কথা বলে আসছিলেন বিএনপির অন্য নেতারাও। এমনকি দলটির স্থায়ী কমিটির বৈঠকেও ওই গণসমাবেশ নয়াপল্টনে করারই সিদ্ধান্ত হয় বলে বিএনপির পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে জানানো হয়। সরকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার অনুমতি দিতে চায়, যা বিএনপি মানছে না।

তবে শনিবার বিএনপির অন্য নেতারা ওই সমাবেশ নয়াপল্টনে করার সিদ্ধান্তে অনড় থাকলেও সরকারকে বিকল্প পরামর্শ দিয়েছেন মির্জা আব্বাস। নয়াপল্টনে সমাবেশ করার সেই মরিয়াভাব মির্জা আব্বাসের বক্তব্যে উঠে আসেনি।

শনিবার দুপুরে ঢাকার বিভাগীয় সমাবেশ সফল করতে প্রচার উপকমিটির প্রচারণা অনুষ্ঠান উদ্বোধনকালে মির্জা আব্বাস বলেন, কোনো অবস্থাতেই সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করবেন না তারা। তবে সরকার চাইলে বিকল্প স্থানের প্রস্তাব দিতে পারে।

মির্জা আব্বাস বলেন, ‘আমরা কাউকে ক্ষমতা থেকে সরানোর জন্য এখন কোনো সভা করছি না। তবে আমরা সভা থেকে ঘোষণা দেব, আমরা কি করব পরবর্তী কর্মসূচিতে। সরকার আশঙ্কা করছে, অনেকের মাধ্যমে জিজ্ঞেস করছে আমাদেরকে, আপনারা কি বসে যাবেন? আমরাতো বসে যাব এমন কথা বলিনি। আমরা আবেদনপত্রে পরিষ্কার করেছি, আমরা (১০ ডিসেম্বর) ১২টা থেকে ৫টা পর্যন্ত সমাবেশ করব। যা আমরা প্রায়ই করে থাকি এইখানে, এই পল্টনে। হয়তো ওইদিন একটু বড় হবে। এইতো সমস্যাটা। সরকার একটা ইগো প্রবলেমে ভুগছে। এখানে (নয়া পল্টন) সভা হবে। একজন লোক দিয়ে হলেও হবে। আমরা এখানে বক্তব্য রাখব তবে সরকারের যদি ভালো ভিন্ন কোনো প্রস্তাব থাকে সোহরাওয়ার্দী ছাড়া, তাহলে আমাদের বলতে পারে।’

এ সময় বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, আহমদ আযম খান, ঢাকা মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমান, দক্ষিণের আহ্বায়ক আব্দুস সালাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদসহ কেন্দ্রীয়, মহানগর বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে মির্জা আব্বাসের এ বক্তব্যের পর উপস্থিত বিএনপি কর্মীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। কর্মীদের অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, ‘বিএনপি তো সরকার পতনের একদফা আন্দোলনে নেমেছে, তবে মির্জা আব্বাস কেন বলছেন, কাউকে ক্ষমতা থেকে সরানোর জন্য সভা করছি না। যেখানে দলের স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত হচ্ছে- নয়া পল্টনে সমাবেশ হবে, সেখানে কেন হঠাৎ করে মির্জা আব্বাস বলছেন- সরকার বিকল্প প্রস্তাব দিতে পারে?’

অবশ্য এর আগে বিভিন্ন সভা-সমাবেশে মির্জা আব্বাস দৃঢ়তার সঙ্গে বলেছেন, নয়াপল্টনেই ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশ হবে। সরকারকে এ বিষয়ে হুমকিও দিয়েছেন তার বিভিন্ন সময় দেওয়া বক্তব্যে।

(ঢাকাটাইমস/০৩ডিসেম্বর/আরআর/আরকেএইচ/)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

রাজনীতি এর সর্বশেষ

আইইবি নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু প্রকৌশলী পরিষদের পরিচিত সভা অনুষ্ঠিত

রাষ্ট্রপতি পদে দলীয় প্রার্থী কে সিদ্ধান্ত দেবেন শেখ হাসিনা

ঢাবির আবাসিক হলে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, সভাপতির কক্ষে ভাঙচুর

জামিনে মুক্তি পেলেন ছাত্রদল নেতা হিমেল আল ইমরান

রাষ্ট্রপতির মনোনয়ন নিয়ে সংসদীয় কমিটিতে আলোচনা হয়নি: ওবায়দুল কাদের

পাল্টা কর্মসূচি দিয়ে আ.লীগের সংঘাতময় পরিস্থিতি তৈরি করতে চায়: সমমনা জোট

পদযাত্রা কর্মসূচির অনুমতি চেয়ে ডিএমপি কমিশনারকে বিএনপির চিঠি

জামিনে মুক্তি পেলেন ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি আবু আশফাক

আন্দোলনের কেন্দ্রবিন্দু হবে ঢাকা: ইশরাক

সরকারের সমালোচনা কখনোই রাষ্ট্রদ্রোহিতা হতে পারে না: জি এম কাদের

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :