আন্দোলনের নামে দেশকে অস্থিতিশীল করার চক্রান্ত বরদাশত করা হবে না: হানিফ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৮ জুন ২০২৩, ২১:০১

বিএনপিকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেছেন, নির্বাচনের প্রস্তুতি নিন। আন্দোলনের নামে দেশকে অস্থিতিশীল করার কোনো চক্রান্ত বরদাশত করা হবে না।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিএনপি-জামায়াতের যেকোনো অপতৎপরতা রুখে দিতে ঐক্যবদ্ধ আছে।

বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩টায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত সমাবেশে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, আজকে যারা দেশকে অশান্ত করতে চায় তারা খুনি জিয়ার গড়া অবৈধ দল। যারা বিভিন্ন সময়ে দেশের অর্থনীতির চাকা স্তব্দ করেছিল। তাদের লক্ষ্য একটাই দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতিকে ধ্বংস করা।

আন্দোলনের নামে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করে বিএনপি-জামায়াত দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায় উল্লেখ করে হানিফ বলেন, বিএনপি-জামায়াত একাট্টা হয়েছে। তাদের লক্ষ্য সরকারের পতন ঘটিয়ে দেশকে অশান্ত পরিবেশের দিকে নিয়ে যাওয়া। ২০১৩, ২০১৪ ও ২০১৫ সালে তথাকথিত আন্দোলনের নামে গাড়ি পুড়িয়ে, মানুষ পুড়িয়ে, সরকারি সম্পত্তি পুড়িয়ে ভেবেছিল সরকারের পতন ঘটাতে পারবে। কিন্ত তারা পারেনি, ব্যর্থ হয়েছে।

যতদিন আওয়ামী লীগের লাখ লাখ নেতাকর্মী ঐক্যবদ্ধ থাকবে ততদিন দেশে কেউ অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করতে পারবে না, উন্নয়ন-অগ্রযাত্রা ব্যাহত করতে পারবে না- বলেন তিনি।

বিএনপির বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাও কর্মসূচির সমালোচনা করে হানিফ বলেন, তারা নাকি বিদ্যুতের দাবিতে বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাওয়ের কর্মসূচি দিচ্ছে। তাদের লজ্জা আছে? থাকলে এরকম কর্মসূচির কথা মুখে আনতে পারত না।

তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় থাকতে দেশের শতকরা ৩০ ভাগ মানুষের ঘরে বিদ্যুৎ ছিল। বিদ্যুৎ উৎপাদন ছিল সাড়ে তিন হাজার মেগাওয়াট। দিনে ১৮ ঘন্টার বেশি লোডশেডিং হত। মানুষ ৪-৫ ঘন্টার বেশি বিদ্যুৎ পায়নি। দেশের মানুষকে বিদ্যুৎ দিতে পারেননি, দিয়েছিলেন খাম্বা। সেই বিদ্যুতের জন্য আন্দোলন করছেন।

আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ দেশের বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২৬ হাজার মেগাওয়াট। দেশের শতভাগ মানুষের ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছেছে। মহামারি করোনার দুই বছর পর রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে বিশ্ব অর্থনীতি মন্দা। তেল, গ্যাস সরবরাহে ঘাটতির কারণে লোডশেডিং হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আগামী দুই-তিন সপ্তাহের মধ্যে সব ঠিক হয়ে যাবে।

এসময় ছয় দফা ঘোষণার প্রেক্ষাপট তুলে ধরে হানিফ বলেন, মুক্তিযুদ্ধে বিজয় কোনো গোলটেবিল বৈঠকে, কারো দয়ায় বা কারো বাঁশির হুইসেলে আসেনি। বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের দীর্ঘ প্রেক্ষাপট ছিল। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ধাপে ধাপে আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে স্বাধীনতা এসেছে। ৫৪'র যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, ৬২'র শিক্ষা আন্দোলনের পর ৬৬' সালে জাতির পিতা ছয় দফা ঘোষণা করেন। এই ছয় দফা ছিল আমাদের স্বাধীনতার মূল সোপান। ছয় দফা ঘোষণার পর ডিসেম্বরে এক ভাষণে জাতির পিতা বলেছিলেন, এখন থেকে এই ভূখণ্ডে পূর্ব পাকিস্তান শব্দটি থাকবে না।

তিনি বলেন, ছয় দফা ঘোষণার পর ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান, ৭০' এর নির্বাচন এবং একাত্তরের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছিলাম। স্বাধীনতার পর জাতির পিতার নেতৃত্বে যুদ্ধবিদ্ধস্ত দেশ যখন মুক্তির লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছিল তখন জাতির ওপর আঘাত হেনেছিল স্বাধীনতা বিরোধী গোষ্ঠী। আজ সেই দেশকে এগিয়ে নিচ্ছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা।

আগামী নির্বাচনে জনগণের ভোটে বিজয় অর্জনের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ টানা চতুর্থবারের মতো ক্ষমতায় আসতে চায় জানিয়ে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে নির্বাচনে বিজয়ের মধ্য দিয়ে সরকার গঠন করা সম্ভব।

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু আহমেদ মন্নাফীর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির প্রমুখ।

(ঢাকাটাইমস/৮জুন/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

জাতীয় এর সর্বশেষ

ঢাকায় গ্রিসের দূতাবাস স্থাপন ও জনশক্তি রপ্তানি বৃদ্ধির সম্ভাবনা

অনলাইন নিউজপোর্টালের বিজ্ঞাপন নীতিমালা বাস্তবায়ন হবে: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস বুধবার

বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে কারিকুলাম যুগোপযোগী করার তাগিদ রাষ্ট্রপতির

দাবদাহের মধ্যে বৈশাখের প্রথম ঝড়ে সিক্ত রাজধানী

বাংলাদেশের সমৃদ্ধির সহায়তায় দৃঢ়ভাবে অঙ্গীকারবদ্ধ যুক্তরাষ্ট্র: পিটার হাস

ভোজ্যতেলে পূর্বের দামে ফিরে যাওয়ার সুযোগ নেই: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী

সমৃদ্ধিতে ভারত ও পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

সারাদেশে তাপপ্রবাহ, গরমের দাপট কমবে কবে? কী বলছে আবহাওয়া দপ্তর?

রহস্যে ঘেরা মুক্তিপণকাণ্ড!

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :