শরীয়তপুর-৩ আসনে আ.লীগের মনোনয়ন চান অধ্যাপক মুজাহিদুল ইসলাম

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৪ নভেম্বর ২০২৩, ০৯:৫৩ | প্রকাশিত : ২২ নভেম্বর ২০২৩, ১৮:৩৩

শরীয়তপুর-৩ আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আইসিটি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ড. এ কে এম মুজাহিদুল ইসলাম।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মনোয়নপত্র জমা দেন তিনি।

আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী এই অধ্যাপক জানান, দেশের উন্নয়ন কাজ ত্বরান্বিত রাখতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ তিনি।

মনোনয়নপত্র জমা শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দুর্বার গতিতে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। জাতির জনকের স্বপ্নের সোনার বাংলা তৈরিতে ডিজিটাল বাংলাদেশ এর সফল বাস্তবায়নের পথ ধরেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশের সৎ, শিক্ষিত এবং মেধাবী সন্তানদের পাশে নিয়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে উন্নত-সমৃদ্ধ ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ বিনির্মাণে কাজ করে যেতে চাই ইনশাল্লাহ। শরীয়তপুরের মাটি বঙ্গবন্ধুর ঘাঁটি, জননেত্রী শেখ হাসিনার ঘাঁটি। শরীয়তপুর-৩ নৌকার মাটি, নৌকার দেশ, শরীয়তপুরের মানুষ নৌকাতেই ভোট দিবে। জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নমিনেশন দিলে ইনশাল্লাহ বিপুল ভোটে বিজয়ী হবেন বলে দক্ষিণ ডামুড্যায় জন্ম ও বেড়ে ওঠা এবং উত্তর ডামুড্যায় বিয়ে করা এই মেধাবী অধ্যাপক বলেন। দল এখানে যাকেই মনোনয়ন দেবেন, তাকেই বিজয়ী করতে আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করব এবং শতভাগ বিজয়ী হব ইনশাআল্লাহ।

অধ্যাপক ড. এ কে এম মুজাহিদুল ইসলাম ইউআইইউ বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের একজন সিনিয়র অধ্যাপক এবং ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স এর ডিরেক্টর। এই আইসিটি বিশেষজ্ঞ আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান। জন্ম থেকেই আওয়ামী পরিবারে বেড়ে ওঠা এই অধ্যাপক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটি এবং আইইবি এর সাথে দীর্ঘ দিন ধরে শিক্ষা এবং আইসিটি বিষয়ে কাজ করছেন। বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু পরিষদ গঠনে তিনি অগ্রণী ভুমিকা রেখেছেন, ফলশ্রুতিতে, ২৪শে নভেম্বর ২০২৩ সালের জাতীয় সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদে তিনি একক প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন নিশ্চিত করেছেন।

তার স্ত্রী, সহযোগী অধ্যাপক ড. শামসুন্নাহার খানম বিইউপি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক। বাবা অধ্যক্ষ তমিজ উদ্দিন আহমেদ ছিলেন ডামুড্যার পূর্ব মাদারীপুর কলেজের অধ্যক্ষ (১৯৬৯ সাল থেকে ২০০২ সাল অবধি) এবং আমৃত্যু বঙ্গবন্ধুর একজন একনিষ্ঠ কর্মী। ষাটের দশকে ছাত্রলীগের রাজনীতির করা শরীয়তপুরের এই সূর্য সন্তান ছিলেন শরীয়তপুর– ৩ আসনে আওয়ামী রাজনীতির থিংক ট্যাংক। ফলশ্রুতিতে, ১৯৯১, ১৯৯৬, এবং ২০০১ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি ২২৩ শরীয়তপুর-৩ আসনে নৌকা মার্কার প্রধান নির্বাচন সমন্বয়কারী ছিলেন। ৫ ভাই-বোনের মধ্যে তিনি ২য়।

শ্বশুর বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম শাহাদাত হোসেন খাঁন ছিলেন ডামুড্যা উপজেলা শাখার মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার। তিনি ছিলেন ডামুড্যা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং দারুলামান ইউনিয়নের ২বারের চেয়ারম্যান। শাশুড়ি ছিলেন ডামুড্যা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা।

(ঢাকাটাইমস/২২নভেম্বর/এমএইচ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

রাজনীতি এর সর্বশেষ

বিএনপি নেতা আবু আশফাককে কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় মহাসচিবের উদ্বেগ

ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে ১২ দলীয় জোটের শোক

শফিউল আলম প্রধানের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী মঙ্গলবার

ইশরাকের মুক্তির দাবিতে রাজধানীতে বিক্ষোভ

ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি আবু আশফাকের জামিন নামঞ্জুর, কারাগারে প্রেরণ

খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে: ফারুক

দেশের আর্থিক খাতে যেকোনো সময় ভয়ংকর ক্র্যাশ ল্যান্ডিং হতে পারে: রিজভী 

ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে মির্জা ফখরুলের শোক

বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা না করে অটোরিকশা বন্ধ অমানবিক: বাংলাদেশ ন্যাপ 

অটোরিকশাচালকদের ওপর সরকার স্টিম রোলার চালাচ্ছে: রিজভী 

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :