পাটজাত পণ্যের বৈশ্বিক বাজারকে কাজে লাগাতে হবে: পাটমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ২০:৫৯

পাটমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, পাটজাত পণ্যের বৈশ্বিক বাজারের আকার ক্রমে বাড়ছে এবং এসব সুযোগ আমাদের কাজে লাগাতে হবে। পাটের তৈরি গৃহসজ্জার পণ্যের চাহিদার পাশাপাশি পাটের তৈরি শপিং ব্যাগ, জিওটেক্সটাইল ও ফ্লোর কভারের চাহিদাও বাড়ছে বলে জানান মন্ত্রী।

মঙ্গলবার রাজধানীর মোহাম্মদপুরে সূচনা কমিউনিটি সেন্টারে এক অনুষ্ঠানে নানক এসব বলেন। এর আগে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টার (জেডিপিসি) আয়োজিত 'বহুমুখী পাট পণ্যের একক মেলা' এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন।

ভারতীয় পণ্য বয়কটের সমালোচনা করে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, যখন দেশবিরোধী সব ইস্যু বিএনপির নাগালের বাইরে চলে গেছে তখন তাদের নেতারা পাগলের প্রলাপ বকছে। এ দেশে পাকিস্তানের চিন্তা-চেতনা প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা করেছেন বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জেনারেল জিয়াউর রহমান। কিন্তু তখনও এই অসাম্প্রদায়িক বাঙালি জাতি সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ ছিল। ১৯৭৫ সালের পরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের জনগণ সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ।

পাটমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) তথ্য অনুযায়ী বিশ্বে পাট উৎপাদনে বাংলাদেশ দ্বিতীয়। পাট পণ্যের উৎপাদন খরচ যেসব দেশে সবচেয়ে কম তার মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। পাটের তৈরি গৃহসজ্জার পণ্যের চাহিদার পাশাপাশি পাটের তৈরি শপিং ব্যাগ, জিওটেক্সটাইল ও ফ্লোর কভারের চাহিদাও বাড়ছে। এছাড়া পাটকাঠির তৈরি চারকোলের চাহিদাও রয়েছে চীনসহ বিভিন্ন দেশে। এছাড়া পাটভিত্তিক জিওটেক্সটাইলের বৈশ্বিক বাজারের আকার ক্রমে বেড়েই চলেছে। এসব সুযোগ আমাদের কাজে লাগাতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, আমরা পাটের উৎপাদনের দিকে যেমন গুরুত্ব দিচ্ছি, তেমনি মূল্য সংযোজিত পাটপণ্য উৎপাদনে আরও জোর দিচ্ছি। এজন্য জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টার (জেডিপিসি) বহুমুখী পাটজাত পণ্যের উদ্ভাবন, ব্যবহার ও বাজার সম্প্রসারণে কাজ করে যাচ্ছে।

নানক বলেন, পরিবেশবান্ধব সোনালী আঁশ পাট বাঙালির সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের সঙ্গে নিবিড়ভাবে জড়িয়ে আছে। শুধু তাই নয়, বাঙালির অর্থনৈতিক মুক্তির হাতিয়ার হিসেবে পাটের ভূমিকা একটি স্বীকৃত ইতিহাস। স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পাটশিল্পের উন্নয়নে উদ্যোগ নিয়েছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সদয় নির্দেশনায় বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় কর্তৃক পাটখাতে নানামুখী কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন হচ্ছে। পাট ও পাটজাত পণ্য নিয়ে নতুন করে স্বপ্ন দেখছে সরকার। বর্তমান মন্ত্রিসভার প্রথম সভায় পাটজাত পণ্যসহ তিনটি খাতকে তৈরি পোশাকশিল্পের বিকাশে যেভাবে সহায়তা দেওয়া হয়েছিল, প্রয়োজনে তেমন সহায়তা দিতে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়ার কথা বলছেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় মন্ত্রী পর্যায়ক্রমে ঢাকা শহরের বিভিন্ন স্থান এবং সারা দেশের বিভিন্ন জায়গায় এ রকম মেলার আয়োজন করে পাট পণ্যের প্রচার ও প্রসারের জন্য জেডিপিসিকে নির্দেশনা দেন।

দেশে পাটপণ্য উৎপাদনকারী, বিপণনকারী, ব্যবহারকারী এবং বিদেশি ক্রেতাদের মধ্যে অধিক যোগাযোগ স্থাপনে সহায়ক হিসেবে কাজ করেছে জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টার (জেডিপিসি)।

বস্ত্র ও পাট সচিব মো. আব্দুর রউফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন পাট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক জিনাত আরা, বস্ত্র অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. নুরুজ্জামান, জেডিপিসির পরিচালক (যুগ্মসচিব) গোপাল চন্দ্র দাশ প্রমুখ।

(ঢাকাটাইমস/২৩এপ্রিল/জেএ/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

অর্থনীতি এর সর্বশেষ

বাংলাদেশ ব্যাংকের উদ্যোগে রংপুরে শুরু হলো গ্রাহক সচেতনতা সপ্তাহ

পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের উদ্ভাবনী উদ্যোগ প্রদর্শনী ও শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবনী উদ্যোগ নির্বাচনি অনুষ্ঠান

মেরামতের পর চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনকে ৩টি ডাম্প ট্রাক হস্তান্তর করেছে বিআরটিসি

ওয়ালটন নিয়ে অ্যাকশনধর্মী ধামাকা দেখালেন আমিন খান

সোনালী ব্যাংকে তথ্য অধিকার আইনবিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা

বসুন্ধরা সিমেন্টের বার্ষিক বিক্রয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত 

বিএসটিআইকে আন্তর্জাতিক মানের প্রতিষ্ঠান করার লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে: শিল্পমন্ত্রী

মিনিস্টারের ‘হাম্বা অফারে’ স্ক্র্যাচ কার্ড ঘষলেই গরুসহ পেতে পারেন ফ্রিজও

সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকের আরও ১০টি নতুন উপশাখার উদ্বোধন 

আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলামকে এনআরবিসি ব্যাংকের অনুদান প্রদান

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :