দেওবন্দ মাদ্রাসার সন্দেহভাজন দুই বিচ্ছিন্নতাবাদী গ্রেপ্তার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:৫১ | প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:৪৫

ভারতের উত্তর প্রদেশের দেওবন্দ মাদ্রাসা থেকে জইশ-ই-মোহাম্মদের দুই সন্দেহভাজন বিচ্ছিন্নতাবাদীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের সন্ত্রাস দমন শাখা এটিএস। খবর এনডিটিভির ও আনন্দবাজারের।

উত্তর প্রদেশ পুলিশের ডিজি ওমপ্রকাশ সিং শুক্রবার জানান, পরবর্তী তদন্তের জন্য ওই দু’জনের গ্রেপ্তারি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে। গ্রেপ্তারকৃতরা দু’জনই কাশ্মীরের বাসিন্দা। পুলওয়ামার ঘটনার সঙ্গে ওই দুই সন্দেহভাজনের যোগ থাকার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছেন না তিনি।

ওমপ্রকাশ এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, গ্রেপ্তারকৃতরা শাহনেওয়াজ আহমেদ এবং আকিব আহমেদ মালিক কাশ্মীরের কুলগাম এবং পুলওয়ামার বাসিন্দা। ধৃতদের কাছ থেকে দু’টি পিস্তল এবং ৩০ রাউন্ড বুলেট পাওয়া গেছে।

পুলিশের দাবি, দেওবন্দেরই কিছু ছাত্রের কাছ থেকে প্রথম খবর পাওয়া যায় যে কয়েকজন সন্দেহভাজন ওই এলাকায় থাকছে। সেই তদন্ত করতে গিয়ে ওই দু’জনকে শনাক্ত করা হয়। এরপর আইজি (এটিএস) অসীম অরুণের নেতৃত্বে বিশেষ দল ওই দুই যুবকের ঘরে হানা দেয়। এ দিন ওই দুই বিচ্ছিন্নতাবাদী ধরা পড়ার পর ওমপ্রকাশ বলেন, ‘গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে দেওবন্দের একটি ‘ওয়ার্কিং মেন হস্টেল’-এ হানা দেয় এটিএসের বিশেষ বাহিনী। একজন আইজি পদমর্যাদার কর্মকর্তার নেতৃত্বে ওই দলটি দুই সন্দেহভাজনদের পাকড়াও করে।’

পুলিশের দাবি, ওই দু’জন নিজেদের ছাত্র পরিচয় দিয়ে দেওবন্দের ছাত্রদের মগজ ধোলাই করে জইশের ভাবধারায় অনুপ্রাণিত করার চেষ্টা করছিল।

ডিজি জানান, পুলওয়ামার ঘটনার সঙ্গে এদের যোগাযোগ আছে কি না খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কারণ ওই সময় তারা কোথায় ছিল সেটাও জানার চেষ্টা করা হচ্ছে।

ওমপ্রকাশ বলেন, ‘ওদের জেরা করে বিভিন্ন রাজ্যে ছড়িয়ে থাকা জইশ বিচ্ছিন্নতাবাদীদের এ রকম স্লিপার সেলের হদিস পাওয়া সম্ভব। শাহনেওয়াজ জেরায় স্বীকার করেছে যে, সে জইশ-এ-মোহাম্মদের সক্রিয় ক্যাডার। একই রকম ভাবে আকিবও যুক্ত ওই বিছিন্নতাবাদীদের সংগঠনে।’

ডিজির দাবি, শাহনওয়াজ একজন প্রশিক্ষিত জইশ বিচ্ছিন্নতাবাদী এবং আইইডি বিশেষজ্ঞ। পুলিশ জানিয়েছে ধৃতদের কাছ থেকে অস্ত্রের পাশাপাশি জিহাদি নথিপত্র থেকে শুরু করে ভিডিও এবং ছবি উদ্ধার হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২২ফেব্রুয়ারি/এসআই)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :