ফণী: ভোলায় কৃষকদের কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ

ইকরামুল আলম, ভোলা
 | প্রকাশিত : ০৫ মে ২০১৯, ১৭:২১

ঘূর্র্ণিঝড় ফণীর আঘাতে ভোলায় প্রায় সাত হাজার ৮০ হেক্টর জমির ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ঝড়, বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে এসব ফসলের ক্ষতি হয়েছে বলে জানান কৃষকরা। এসব ফসলের মধ্যে রয়েছে বোরো, চিনা বাদাম, সবজি, আউশ, সয়াবিন, পান ও ভুট্টা।  

ফসল ঘরে তোলা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে কৃষকদের। তবে কৃষি বিভাগ বলছে, এ মুহূর্তে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপন করা সম্ভব নয়, দুই-একদিন পর ক্ষতির পরিমাণ জানা যাবে।  

মোট আক্রান্ত ফসলের মধ্যে বোরো তিন হাজার ২৩ হেক্টর, চিনা বাদাম ৯০১ হেক্টর, সবজি ৫২৫ হেক্টর, আউশ ২৫ হেক্টর, ভুট্টা ৩৯১ হেক্টর, মরিচ দুই হাজার ৮০ হেক্টর ও পান ৮৫ হেক্টর রয়েছে।

জেলার সাত উপজেলার মধ্যে চরফ্যাশন, লালমোহন, বোরহানউদ্দিন ও ভোলা সদরে ক্ষতির পরিমাণ কিছুটা বেশি।
দৌলতখান উপজেলার মদনপুর ইউনিয়নের সয়াবিন চাষি সাহাবুদ্দিন, আজিজুল ইসলামসহ কয়েকজন কৃষক জানান, ওই এলাকায় এবছর প্রায় এক হাজার হেক্টর জমিতে সয়াবিন চাষ হয়েছে। ফলনও বেশ ভালো হয়েছে। কিন্তু যখন ফসল ঘরে উঠোনোর সময়, তখনই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে জোয়ার ও বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে। এর মধ্যে কিছু ফসল ঘরে উঠাতে পারলেও অনেকেই জনবলের অভাবে ফসল কাটতে পারেনি। ওই এলাকার প্রায় অর্ধেকের বেশি সয়াবিন পানিতে ডুবে নষ্ট হয়ে গেছে।  

কৃষি বিভাগ জানায়, এ বছর জেলার সাত উপজেলায় বোরো আবাদ হয়েছে ৫৬ হাজার ৯৮৭ হেক্টর, ইতোমধ্যে কেটে ফেলার পর মাঠে রয়েছে ৩৩ হাজার ৩২৩ হেক্টর। এছাড়াও মোট  বাদাম আবাদ হয়েছে ১৩ হাজার ৬৫৫ হেক্টর, সবজি আবাদ হয়েছে সাত হাজার ১০০ হেক্টর, আউশ আবাদ হয়েছে ৫৩ হাজার হেক্টর, ভুট্টা আবাদ হয়েছে দুই হাজার তিন হেক্টর, সয়াবিন আবাদ হয়েছে সাত হাজার ৫০০ হেক্টর, মরিচ আবাদ হয়েছে ১৬ হাজার হেক্টর ও পান আবাদ হয়েছে ৮৫ হেক্টর।  যার মধ্যে মোট সাত হাজার ৮০ হেক্টর জমির ফসল আক্রান্ত হয়েছে। তবে আক্রান্ত হলেও ক্ষতি হয়নি বলে দাবি করছে কৃষি বিভাগ।   
এ বিষয়ে ভোলা কৃষি সম্প্রসার অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিনয় কৃষ্ণ দেবনাথ জানান, কৃষকদের আক্রান্ত ধানের ক্ষেত দ্রুত কেটে ফেলতে বলা হয়েছে। এছাড়াও জলাবদ্ধ জমি থেকে দ্রুত সেচ দেয়া এবং রোগে আক্রান্ত ক্ষেত ও উপ-সহকারী কর্মকর্তাদের পরামর্শ গ্রহণ করতে বলা হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/৫মে/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :