টুঙ্গিপাড়ায় দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোপালগঞ্জ
 | প্রকাশিত : ১৯ জুন ২০১৯, ১৩:৪৫
ফাইল ছবি

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়েছে দুটি গ্রামের মানুষ। এতে পুলিশের আট সদস্যসহ অন্তত অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন। সংঘর্ষের সময় আগুন দেওয়া হয়েছে চারটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে। ভাঙচুর করা হয়েছে ১০টি দোকান ও বেশ কয়েকটি বাড়ি।

গতকাল মঙ্গলবার রাত ১০টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত টুঙ্গিপাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ ৩১৫ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়ে।

টুঙ্গিপাড়া থানার পরিদর্শক (ওসি) মো. এ কে এম এনামুল কবীর জানান, গত সোমবার রাত ১২টার দিকে গিমাডাঙ্গা গ্রামের চার-পাঁচজন যুবককে গহওরডাঙ্গা ব্রিজের উপর গল্প করতে দেখেন শ্রীরামকান্দি গ্রামের সাইফুল ইসলাম। তিনি তাদের সেখান থেকে যেতে বললে দুই পক্ষের মধ্যে কর্তাতর্কি হয়। এই দুই গ্রামের মধ্যে আগে থেকেই আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসায় বিষয়টি চরম আকার ধারন করে।

তর্কাতর্কির জের ধরে মঙ্গলবার রাতে শ্রীরামকান্দি ও গিমাডাঙ্গা গ্রামের মানুষ অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে টুঙ্গিপাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সংঘর্ষে জড়ায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৩১৫ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়ে। গভীর রাত পর্যন্ত থেমে থেমে চলা সংঘর্ষে আট পুলিশ সদস্যসহ উভয়পক্ষের অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত হন।

সংঘর্ষের সময় ১০টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয় সংঘর্ষকারীরা। আহতদের টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় টুঙ্গিপাড়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইমারত আলী বাদী হয়ে আট শ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেছেন। মামলায় ২৫ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। বাকিরা অজ্ঞাতনামা আসামি। নতুন করে সংঘর্ষ এড়াতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/১৯জুন/প্রতিনিধি/এমআর)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :