গাছ লাগাই পরিবেশ বাঁচাই, এটাই হোক অঙ্গীকার

ওমর আলী
| আপডেট : ২০ জুন ২০১৯, ০৯:০৯ | প্রকাশিত : ২০ জুন ২০১৯, ০৮:৫৭

প্রতিটা সরকারের আমলে একটা শ্লোগান থাকে, ‘গাছ লাগান পরিবেশ বাঁচান’। আসলে আমরা জনগণ সরকারের এই শ্লোগানকে কতটুকু মূল্যায়ণ করতে পারছি? কিছু মানুষ হয়তো ব্যবসায়ীক মুনাফা অর্জন করার জন্য গাছ লাগাচ্ছেন, তা কতজন? আমরা তো বনজঙ্গল, রাস্তার পাশে বড় বড় গাছ ও বসত বাড়ির ভেতরে যেসব গাছ ছিল, প্রয়োজন অপ্রয়োজনে সেসব গাছ কেটে ধ্বংস করে দিচ্ছি। সরকার বারবার আমাদের সতর্ক করে দিচ্ছে, ‘গাছ লাগান পরিবেশ বাঁচান’।

একটা সময় ছিল  বাড়ির  আঙ্গিনায় মৌসুমী ফল  আম, জাম, জামরুল, কদবেল, আতা, কাঁঠাল, নারকেল, তাল, তরমুজ, আমড়া, কামরাঙ্গা, বেল, পেয়ারা, কলাসহ হরেক রকম ফল লাগানো হতো। যা খেয়ে আমরা আমাদের চাহিদা পূরণ করতাম। এইসব ফলের মধ্যে কোনো ফরমালিন ছিল না, শরীর থাকতো সুস্থ। এখন তো বাজার থেকে ফরমালিনযুক্ত ফল কিনে খেতে হয়। আগে বাজার থেকে কিনে খেতাম লিচু, আপেল, কমলা, আঙ্গুর এই জাতীয় ফল।

অব্যবস্থাপনা বসত ঘরবাড়ি করতে গিয়ে ও বেশি আধুনিক হতে গিয়ে আমরা বাড়ি ও বাড়ির আঙ্গিনায় থাকা সব গাছ কেটে দিয়েছি। বাজার থেকে বাচ্চাদের জন্য ফরমালিনযুক্ত মৌসুমী ফল কিনে দিয়ে তাদের স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে ফেলছি। আবার আগে বৃষ্টির দিনে বজ্রপাত হলে তার আঘাত মানুষের ওপর তেমন আসতো না। কারণ বাড়ি, রাস্তাঘাট, বাজার সব বড় বড় গাছ জায়গায় থাকতো। বজ্রপাতের আঘাত ওই সব বড় গাছের ওপর দিয়ে চলে যেত। মানুষের ক্ষয়ক্ষতি ও মৃত্যুর সংখ্যা কম হতো।

এখন বড় বড় গাছ না থাকার জন্য বজ্রপাতে মানুষের মৃত্যুর সংখ্যা প্রতি বছর বেড়েই চলছে। সেই সাথে জলবায়ু পরিবর্তন বিকট আকার ধারণ করছে। দেশের আবহাওয়া পরিবর্তন হচ্ছে। কয়েক বছর আগেও যেখানে গরমের সময় মে, জুন, জুলাই, আগস্টে  দেশের তাপমাত্রা রেকর্ড হতো ৩০ থেকে ৩৮ এর মধ্যে। এখন সেই তাপমাত্রা ৪০ ঊর্ধ্বে। গরমে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে যাচ্ছে। আমার তো মনে হচ্ছে, মরুর দেশ সৌদি আরবের মতো ভয়ংকর গরম শুরু হবে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে। দেশের যে অবস্থা, সেখানে তো প্রতিটি নাগরিকের ঘরে এসি লাগানোর ব্যবস্থা নেই। বিদ্যুৎ উৎপাদন ও সরবরাহ করা কঠিন হয়ে যাবে।

সবচেয়ে ভালো হয়, জনপ্রতিনিধি, সব রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, মানবাধিকার সংস্থা, সমাজসেবক ও দেশপ্রেমিক প্রতিটি নাগরিককে সাথে নিয়ে যার যতটুকু জায়গা আছে সেই জায়গায় নিজেদের প্রয়োজন মতো সব ধরনের ফলের গাছ ও কাঠের জন্য গাছ লাগানো। আর সরকারের উচিত হবে দেশের যত রাস্তা আছে সব রাস্তার দুই পাশে সরকারিভাবে গাছ লাগানো।

গাছ দেখে রাখার দায়িত্ব দেশের প্রতিটি জনগণের। যত বেশি গাছ লাগাবেন, দেশ তত বেশি নিরাপদে থাকবেন। গাছ আপনার বিপদের বন্ধু। বেশি করে গাছ লাগান আপনার সন্তানের জন্য। যত বেশি গাছ লাগাবেন আপনার সন্তান ততবেশি নিরাপদ থাকবে। গাছ আপনাকে তাপদাহ থেকে বাঁচাবে। গাছ আপনাকে বজ্রপাতের হাত থেকে বাঁচাবে। গাছ আপনাকে সুস্থ থাকার জন্য ফল দেবে, বাড়ি ও আসবাবপত্র তৈরির জন্য কাঠ দেবে। বজ্রপাতে মানুষের মৃত্যুর সংখ্যা কমবে, নিরাপদ একটা দেশ পাবেন। সুস্থ জীবনের জন্য গাছ প্রতিটি মানুষের প্রয়োজন। গাছ আপনার সন্তানের সমতুল্য। সামনে আষাঢ়-শ্রাবণ মাস। গাছ লাগানোর উপযুক্ত সময়। গাছ লাগাবো পরিবেশ বাঁচাবো,- এই হোক আমাদের অঙ্গীকার

লেখক: আবুধাবী প্রবাসী

সংবাদটি শেয়ার করুন

নির্বাচিত খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :