ড্রেজিং শেষে পানি প্রবাহ বেড়েছে তুরাগে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ জুলাই ২০১৯, ১৪:২৪

তুরাগ নদী দখল করে অবৈধভাবে গড়ে তোলা আমিন-মোমিন হাউজিং উচ্ছেদের পর সেখানে ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে পুরোনো পানির প্রবাহ ফিরিয়ে এসেছে। দেশের ইতিহাসে পুরোপুরি দখল হওয়া নদী উদ্ধারের ঘটনা এটিই প্রথম বলে বলা হচ্ছে। পানি প্রবাহ ফিরিয়ে আনার কাজটি করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহণ কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

বুড়িগঙ্গা-তুরাগ নদীর বসিলা অংশে নদীর বিশাল আয়তনের জায়গা ভরাট করে সেখানে পুরো একটি হাউজিং প্রকল্প গড়ে তুলেছিল হাউজিং কোম্পানি ‘আমিন-মোমিন’। নদী উদ্ধারে বিআইডব্লিউটিএ’র অভিযানের অংশ হিসেবে সেখানে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। উচ্ছেদের ১১তম দিনে আমিন মোমিন হাউজিংয়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়। উচ্ছেদের সময় একাধিকবার বাধা আসলেও থেমে থাকেনি অভিযান। শেষ পর্যন্ত উচ্ছেদ হয়েছে জায়গাটি।

জায়গাটি উচ্ছেদের কিছুদিন পর শুরু হয় ড্রেজিং কার্যক্রম। গত ১০ জুলাই আমিন মোমিন হাউজিংকে নদী বানিয়ে ফিরেছে বিআইডব্লিউটিএ’র ড্রেজার ‘বাঙালি’।

দখল উচ্ছেদের পর দীর্ঘ সময় ধরে সেখানে চলে খনন কাজ। অবশেষে খননের পর পুরনো প্রবাহ ফিরে পেয়েছে নদীর এ অংশটি।

নদীর এ অংশে পানির প্রবাহ ফিরিয়ে আনতে প্রায় ৩ হাজার ফুট দৈর্ঘ্য এবং প্রস্থে কোথাও আড়াইশ আবার কোথাও চারশো ফুট পর্যন্ত মাটি সরাতে হয়েছে। ভরাট করা বালু-মাটি আর পানির গভীরে সবমিলে ৪০ ফুট খনন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিআইডব্লিটিএ কর্তৃপক্ষ।

সংস্থাটির যুগ্ম পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দিন জানান, ‘রাষ্ট্রের চেয়ে ব্যক্তি বা গোষ্টী বড় হতে পারে না-নৌপরিবহণ প্রতিমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের ওপর ভিত্তি করেই বীরদর্পে কাজ করে যাচ্ছে বিআইডব্লিউটিএ।‘

গত ২৩ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া উচ্ছেদ অভিযান শেষ হওয়ার কথা রয়েছে বুধবার। এরপর নদীকে তার পুরনো রুƒপ ফিরিয়ে দিতে কাজ করবে সংস্থাটি। এরই মধ্যে নদীকে ঘিরে নানা পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। ২ হাজার ২০০ কোটি টাকা ব্যয়ে নদীর সীমানা খুঁটি পুনঃস্থাপন, ওয়াকওয়ে, ল্যান্ডিং স্টেশন, সবুজায়ন, লাইটিং সহ নানাবিধ পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন সংস্থাটি।

ঢাকার চারপাশের নদী দখল করে গড়ে ওঠা এমন আরও যে একাধিক আবাসন প্রকল্প কিংবা শিল্প কারখানা রয়েছে, সেখানেও শিগগিরই এভাবে খনন কাজ শুরু হবে।

ঢাকাটাইমস/২৩জুলাই/কারই/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :