মানোন্নয়ন পরীক্ষার নিয়ম পরিবর্তনের দাবিতে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ

কনবি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৯:৩৪

মানোন্নয়ন পরীক্ষায় অংশগ্রহণের নিয়ম পরিবর্তনের দাবিতে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। সোমবার দুপুরে সাধারণ শিক্ষার্থীরা এ বিক্ষোভ মিছিল করেন।

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মানোন্নয়নের মানদণ্ড সিজিপিএ ২.২৫ বাতিল করে সিজিপিএ ৩ নির্ধারণ ও মানোন্নয়ন পরীক্ষার প্রাপ্ত সিজিপিএ সম্পূর্ণ গৃহিত করা এবং ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষ থেকে চলমান শিক্ষাবর্ষ পর্যন্ত এ কালো আইনে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের মানোন্নয়ন পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়াসহ মানোন্নয়ন পরীক্ষার কালো আইন বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

পরে প্রক্টর উজ্জ্বল কুমার প্রধান ও ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা শেখ সুজন আলীর আশ্বাসে বিক্ষোভ মিছিল স্থগিত করেন শিক্ষার্থীরা।

এ বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী কোনো শিক্ষার্থী কোনো কোর্সে সিজিপিএ ৪ এর মধ্যে ২.২৫ এর নিচে পেলে মানোন্নয়নের জন্য পুনঃপরীক্ষা দিতে পারবে। সেই পুনঃপরীক্ষায় প্রাপ্ত সিজিপিএ থেকে সম্পূর্ণ গৃহিত না করে সর্বোচ্চ সিজিপিএ ৩ গৃহিত হয়, যা এ বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থীদের জন্য এক বড় দুর্ভোগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষ থেকে এ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন মানোন্নয়নের জন্য পুনঃপরীক্ষায় নতুন নিয়মটি চালু করে। এর আগে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে মানোন্নয়নের পুনঃপরীক্ষায় ক্ষেত্রে যে কোনো কোর্সে সিজিপিএ ৪ এর মধ্যে ৩ এর নিচে পেলেই যে কোনো শিক্ষার্থী মানোন্নয়নের জন্য পুনঃপরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারতেন এবং পুনঃপরীক্ষায় প্রাপ্ত সম্পূর্ণ সিজিপিএ গৃহিত হতো।

এদিকে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ও বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কোনো কোর্সে সিজিপিএ ৩ এর নিচে থাকলে মানোন্নয়নের জন্য পুনঃপরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারে এবং পুনঃপরীক্ষায় প্রাপ্ত সম্পূর্ণ সিজিপিএ গৃহিত হয়।

এ বিষয়ে রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) ড.  হুমায়ুন কবীর জানান, ‘মানোন্নয়নের বিষয়টি পরবর্তী সিন্ডিকেট সভায় উত্থাপিত হবে। সিন্ডিকেট সভায় সর্বসম্মতিক্রমে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

গতবছর সাধারণ শিক্ষার্থীরা এ বিষয়ে উপাচার্যের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছিলেন। শিক্ষার্থীদের এ দাবির প্রেক্ষিতে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান বলেছিলেন, ‘শিক্ষার্থীদের এ দাবি যৌক্তিক, এটি সংশোধনের উদ্যোগ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন নেবে।’

(ঢাকাটাইমস/২৩সেপ্টেম্বর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :