২০ দিন পর কাজে বসলেন রাজশাহীর দর্জিরা

ব্যুরো প্রধান, রাজশাহী
 | প্রকাশিত : ২১ নভেম্বর ২০১৯, ২২:১৪

টানা ২০ দিনের কর্মবিরতির পর কাজে ফিরেছেন রাজশাহী মহানগরীর দর্জিরা। শ্রম দপ্তরের নির্দেশনা মোতাবেক বৃহস্পতিবার থেকে তারা কাজে বসেন। এ দিন সকাল থেকে নগরীর দর্জির দোকানগুলোতে ফিরেছে আবার কর্মব্যস্ততা।

এর আগে মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে ১ নভেম্বর থেকে দর্জি শ্রমিকরা কর্মবিরতিতে যান। দর্জি শ্রমিক ইউনিয়ন জানিয়েছে, দর্জি দোকান মালিক সমিতির সঙ্গে তাদের চুক্তি রয়েছে। চুক্তি মোতাবেক প্রতি দুই বছর পরপর শ্রমিকদের মজুুরি বৃদ্ধির কথা। কিন্তু দোকান মালিকরা মজুরি বৃদ্ধি করেননি। ফলে বাধ্য হয়ে শ্রমিক ইউনিয়নের ২৩০ জন দর্জি একযোগে কাজ বন্ধ করে দেন।

বিষয়টি বিভাগীয় শ্রম দপ্তর পর্যন্ত গড়ায়। বুধবার সেখানে দর্জি দোকান মালিক সমিতি, দর্জি শ্রমিক ইউনিয়ন ও শ্রম দপ্তরের ত্রি-পাক্ষিক সভা হয়। সেখানে দর্জিরা মজুরি বৃদ্ধির দাবি জানান। তবে মালিকরা পাঁচ দিন সময় চান। বিভাগীয় শ্রম দপ্তরের সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান এই সময় দেন। তবে পাঁচ দিন পর ২৫ নভেম্বর এ বিষয়ে দুই পক্ষের নতুন চুক্তি করা হবে বলে তিনি জানিয়ে দেন। আর এই সময় দর্জিদেরও কাজে বসার নির্দেশনা দেন তিনি। সে অনুযায়ী বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দর্জিরা কাজ করছেন। 

এদিকে শ্রম দপ্তরে অনুষ্ঠিত ওই সভায় দর্জি শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে প্যান্ট প্রতি মজুরি ৩০ টাকা বৃদ্ধি করে ১৯৮ টাকা, শার্ট প্রতি ১৫ টাকা বৃদ্ধি করে ১২৩ টাকা, স্যুট প্রতি ৫০ টাকা বৃদ্ধি করে ৮৫০ টাকা, পাঞ্জাবিতে ২০ টাকা বৃদ্ধি করে ১৫০ টাকা এবং সাফারি ও ওয়েস কোটে ৫০ টাকা বৃদ্ধি করে ৩৫০ টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

বিভাগীয় শ্রম দপ্তরের সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, শ্রমিকদের এই প্রস্তাবনায় সম্মত হয়ে মালিকপক্ষকে চুক্তি করার কথা বলা হয়েছিল। তারা সময় নিয়েছেন। নির্ধারিত দিনেই চুক্তি করার জন্য উভয়পক্ষকে ডাকা হয়েছে। চুক্তির মেয়াদ হবে তিন বছর। মালিকপক্ষ চুক্তিতে না এলে আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেবেন তিনি।

দর্জি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আমজাদ আলী রসুল বলেন, শ্রম দপ্তরের নির্দেশনা মোতাবেক তারা দোকানে গিয়ে কাজে বসেছেন। তাদের প্রস্তাব অনুযায়ী মজুরি বৃদ্ধি করা হলে তারা ২৫ নভেম্বর চুক্তিতে স্বাক্ষর করবেন। কাজও করবেন। তা না হলে আবার কর্মবিরতিতে যাবেন।

দর্জি দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল হোসেনের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আইনজীবীর কাছে আছেন। পরে কথা বলবেন।

(ঢাকাটাইমস/২১নভেম্বর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :