সরকারি ঘর পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর জন্য বৃদ্ধার দোয়া

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২:৩০

‘আমার হায়াত যেন আল্লাহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেন’- এমনটা বলছিলেন সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ মথুরাপুর গ্রামের বৃদ্ধ মোমেনা খাতুন। কারণ হিসেবে বলেন, আমার ঘর ছিল না, কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে বাসগৃহ করে দিয়েছেন। একমাত্র তিনিই বোঝেন গরিবের কষ্ট।

২০১৮-১৯ ইং অর্থ বছরের নির্মিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদান-টিআর/কাবিটা কর্মসূচির আওতায় দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্পের সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় গৃহহীন ২০টি পরিবার বাসগৃহ পেয়েছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করে। আর কাজের তদারকি করেন তাড়াশ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত)ওবায়দুল্লাহ ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নুর মামুন।

এ দিকে বাসগৃহ পেয়ে যেন খুশিতে আত্নহারা ওই ২০টি পরিবারের সদস্যরা।

বাসগৃহ পেয়ে তাড়াশ পৌর শহরের শামচুল ইসলাম মধু বলেন, এত সুন্দর, মনোরম দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ পেয়ে আমি অনেক খুশি। থাকার মত কোন ঘর ছিল না, ছেলে-মেয়েদের নিয়ে থাকতে অনেক কষ্ট হয়েছে। আজ  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দয়ায় এই ঘর পেয়েছি।

তাছাড়া উপজেলার আট ইউনিয়নের ২০টি পরিবার হলো- তালম ইউনিয়নের শাহা আলী, তারটিয়া গ্রামের দীপক চন্দ্র, বারুহাস ইউনিয়নের পলাশী গ্রামের রুপবান খাতুন, সরাবাড়ি গ্রামের রাবিয়া খাতুন, সগুনা ইউনিয়নের মাকড়শোন গ্রামের নাছের উদ্দিন, কুন্দইল গ্রামের দারজিস প্রাং, মাগুড়াবিনোদ ইউনিয়নের নাদোসৈয়দপুর নদীপাড়ার আবু শামা, রুহুল আমিন, নওগাঁ ইউনিয়নের কালিদাসনীলি গ্রামের রেহানা খাতুন, রুমি খাতুন, তাড়াশ সদর ইউনিয়নের তাড়াশ গ্রামের শামচুল ইসলাম মধু, দক্ষিণ মথুরাপুর গ্রামের মোমেনা খাতুন, চকগুপিনাথপুর গ্রামের রোয়াদান খাতুন, সোলাপাড়া গ্রামের সাজেদা খাতুন, মাধাইনগর ইউনিয়নের উত্তর মথুরাপুর গ্রামের ফজলার রহমান ফজল, পৌষার গ্রামের বুলবুলি রানী রায়, দেশীগ্রাম ইউনিয়নের ধলাপাড়া গ্রামের সাগর কুমার বসাক, গুড়পিপুল গ্রামের বাসু চন্দ্র উড়াও, ধলাপাড়া গ্রামের ভুবেন্দ্রনাথ বসাক ও কর্নঘোষ গ্রামের মোজাহার আলী।

এ বিষয়ে তাড়াশ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নুর মামুন জানান, সঠিক তদারকির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বাসগৃহগুলো নির্মাণ করা হয়েছে। যারা ঘর পেয়েছেন- তারা খুবই খুশি।

তাড়াশ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত)ওবায়দুল্লাহ  বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের নির্মিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদান-টিআর/কাবিটা কর্মসূচির আওতায় দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ করা হয়েছে। কাজগুলো অত্যন্ত সুন্দরভাবে করা হয়েছে। এমন মহতি উদ্যোগ নেয়ায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি তারা দোয়া করেছেন।

(ঢাকাটাইমস/৪ডিসেম্বর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :