ঈদের জামাত না হওয়ার আভাস প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২০ এপ্রিল ২০২০, ১৮:৩১
ফাইল ছবি

মহামারি করোনাভাইরাসের থাবা দেশে দিন দিন ভয়াল রূপ নিচ্ছে। এই অবস্থায় চলমান সাধারণ ছুটি কতটা দীর্ঘ হয় তা নিয়ে রয়েছে অনিশ্চয়তা। এর মধ্যে আসছে রমজান। রোজায় তারাবি তো ঘরে পড়তেই হবে, এমনকি ঈদুল ফিতরের এবারের জামাত হওয়া নিয়েও দেখা দিয়েছে সংশয়। এবার ঈদের জামাত নাও হতে পারে এমন আভাস দিয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার কয়েকটি জেলার সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে মতবিনিময় করেন প্রধানমন্ত্রী। কিশোরগঞ্জের সঙ্গে মতবিনিময়কালে সেখানে উপস্থিত স্থানীয় একটি মসজিদের ইমাম মোস্তাফিজুর রহমানের কথা শোনার ইচ্ছা পোষণ করেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় তিনি বলেন, এখানকার শোলাকিয়ায় ঈদের সবচেয়ে বড় জামাত হয়। এবার তো আমরা জামাত করতে পারবো না। এবার ঈদের নামাজ তাও তো আমরা করতে পারবো না। সেজন্য উনার কাছ থেকে একটু শুনি।

এর আগে ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী রমজানে তারাবির নামাজ ঘরে বসে পড়ার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান। ইসলামিক ফাউন্ডেশন এক নির্দেশনা এদেশের সকল মসজিদে ওয়াক্ত নামাজে সর্বোচ্চ পাঁচজন এবং জুমার নামাজে ১০ জন উপস্থিত থাকতে বলেছে।

প্রধানমন্ত্রী ঘরে বসে নামাজ পড়তে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের নির্দেশনার কথা উল্লেখ করে বলেন, আমরা নামাজ পড়ি কে কখন সংক্রমণ হবে তার কোনো ঠিক নেই। সেজন্য আমরা বলেছি, ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে নির্দেশনা গেছে ঘরে বসে নামাজ পড়বে। আল্লাহ নিশ্চয়ই ডাক শুনবে। সকলের কাছে আহ্বান জানাব প্রত্যেকে ঘরে বসে নামাজ পড়েন, দোয়া করেন সবাই যেন এই করোনা ভাইরাসের হাত থেকে বাংলাদেশের মানুষ বাঁচতে পারে। এটাই আমাদের একমাত্র চাওয়া।

ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ পেয়ে ওই ইমাম প্রধানমন্ত্রীর ভূয়সী প্রশংসা করেন। প্রধানমন্ত্রীকে বিশ্ব নেতা আখ্যায়িত করে বলেন, ইসলামের তৃতীয় খলিফা হজরত ওমর রা. মানুষের দুঃখ কষ্ট লাঘব করা এবং মানুষের উন্নয়নের জন্য রাত দিন চিন্তা করতেন। সেরকম আপনি অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। রাত দিন আপনার চিন্তা হলো কীভাবে বাংলা মানুষকে সুখী বানানো যায়। শান্তিময় বাংলা বানানো যায়।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনি যে চিন্তা ও গবেষণা করেন তা বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করেন। অন্যান্য দেশে রাষ্ট্রনায়করা যেখানে নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না সেখানে বাংলাদেশ থেকে আপনি সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূল করেছেন। চুরি ডাকাতি ছিনতাই খুন রাহাজানি অনেকটা কমে গেছে। বাংলাদেশকে আপনি সুখী সমৃদ্ধ ও উন্নয়নের রোল মডেলে নিয়ে গেছেন। আপনি সুস্থ থাকলে বাংলাদেশ সুস্থ থাকবে।

আগামী শুক্রবার রোজার চাঁদ ওঠার সম্ভাবনার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, রমজানের চাঁদ উঠার পরে আপনার যে নির্দেশনা থাকবে সেই নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা কাজ করব।

(ঢাকাটাইমস/২০এপ্রিল/টিএ/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ইসলাম বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :