ঝুঁকিপূর্ণ পুলে কোমলমতিদের পারাপার

শেখ মোস্তফা জামান, গোপালগঞ্জ
| আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১৪:২৯ | প্রকাশিত : ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১৩:২৬

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় ঝুঁকিপূর্ণ একটি কাঠের পুলের উপর দিয়েই পারাপার হয় কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। এতে ‍দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে তারা।

গত শনিবার উপজেলার দক্ষিণ নারিকেল বাড়ি গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে, অবসরপ্রাপ্ত ইংরেজি শিক্ষক আবুল হোসেন খন্দকারের পাঠশালায় ঝুঁকিপূর্ণ কাঠের পুল পার হয়ে শিক্ষা নিতে আসছেন এলাকার কচিকাঁচার কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। তারা প্রতিদিন ওই ঝুঁকিপূর্ণ কাঠের পুল ব্যবহার করছেন। ফলে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন তারা। শিক্ষার্থী ও শিক্ষকের দাবি, সরকার যেন কোমলমতি শিশুদের কথা চিন্তা করে জরাজীর্ণ কাঠের পুলটি অপসারণ করে দ্রুত একটি ব্রিজ নির্মাণ করে দেয়।

ডগলাস মেমোরিয়াল উচ্চবিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আবুল হোসেন খন্দকার বলেন, ‘চাকরি থেকে অবসর নেওয়ার পর থেকে বাড়িতে একটি পাঠশালা নির্মাণ করি। এলাকার গরিব ও মেধাবি শিক্ষার্থীদের বিনা বেতন পাঠদান করে আসছি। প্রতিদিন আমার পাঠশালায় ২০ জন নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ও ২০ জন শিশু শিক্ষার্থী ঝুঁকিপূর্ণ কাঠের পুল পার হয়ে শিক্ষা নিতে আসে। বেশ কিছুদিন আগে নিজস্ব অর্থায়নে পুলটি নির্মাণ করা হয়েছিল। বর্তমানে পুলটি ভেঙে পারাপারের সম্পূর্ণ অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ফলে কোমলমতিরা এই পুল দিয়ে পারাপার হতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। দ্রুত এখানে একটি ব্রিজ নির্মাণ করা না হলে, যেকোন সময় প্রাণহানির মতো দুর্ঘটনাও ঘটতে পারে।’

তিনি আরো বলেন, ‘পুলটির ভগ্নদশা দেখে এটাকে মেরামত করার জন্য আমারই ছাত্র চেয়ারম্যান অমৃত লাল হালদারের কাছে গেলে, সে আমার সঙ্গে অশালীন আচরণ করে ফিরিয়ে দিয়েছে।’

আবুল হোসেন খন্দকার বলেন, ‘আমি দ্রুত এই ভাঙা পুল অপসারণ করে একটি ব্রিজ নির্মাণের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।’

(ঢাকাটাইমস/২৫অক্টোবর/পিএল)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :