ফেরদৌস ওয়াহিদের দুই ভাতিজিকে বাসায় প্রবেশ নিশ্চিতের নির্দেশ

আদালত প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২০, ২১:৪৪ | প্রকাশিত : ২৬ অক্টোবর ২০২০, ২১:৪১
মুশফিকা মোস্তফা ও মোবাশশেরা মোস্তফা

সংগীতশিল্পী ফেরদৌস ওয়াহিদের ভাই; গুলশান-২ এর বাসিন্দা প্রয়াত মোস্তফা জগলুল ওয়াহিদের দুই মেয়েকে তাদের বাবার বাড়িতে অনতিবিলম্বে প্রবেশ নিশ্চিত করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালত আদেশে বলেন, মেয়ে দুইজনকে সোমবার রাতেই ওই বাড়িতে প্রবেশ ও অবস্থান নিশ্চিত করার পর রাতেই গুলশান থানার ওসি সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল অফিসারকে টেলিফোনে অগ্রগতি প্রতিবেদন দেবেন। এছাড়া ১ নভেম্বর পর্যন্ত ওই বাসায় দুই বোনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন।

একইসঙ্গে আগামী ১ নভেম্বর সকাল সাড়ে ১০টায় গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসানসহ দুই বোন মুশফিকা মোস্তফা, মোবাশশেরা মোস্তফা এবং তাদের সৎ মা অনজু কাপুরকে আদালতে উপস্থিত থাকার জন্য বলা হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল অফিসার ব্যারিস্টার মুহাম্মদ সাইফুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গুলশান ২ নম্বরের ৯৫ নম্বর রোডে অবস্থিত একটি বিলাসবহুল তিনতলা বাড়ির মালিক মোস্তফা জগলুল ওয়াহিদ। ১০ অক্টোবর ওয়াহিদ মারা যাওয়ার পর শত কোটি টাকার এ সম্পত্তি নিজের বলে দাবি করছেন অনজু কাপুর। তিনি নিজেকে ওয়াহিদের স্ত্রী বলেও দাবি করছেন। আর সে বাড়িতে ওয়াহিদের দুই মেয়েকে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। কয়েকটি গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশিত হয়।

মোস্তফা জগলুল ওয়াহিদ পেশায় পাইলট ছিলেন। ভাইবোনদের মধ্যে শুধু সংগীতশিল্পী ফেরদৌস ওয়াহিদ ছাড়া আর কেউ বাংলাদেশে নেই। দুই দিন ধরে বাড়ির সামনে অবস্থান নেন মোস্তফা জগলুল ওয়াহিদের দুই মেয়ে মুশফিকা ও মোবাশ্বেরা। তারা বাড়িতে ঢোকার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন।

মুশফিকা গণমাধ্যমকে বলেন, ‘১৯৮৪ সালে তার বাবা মাকে নিয়ে গুলশানের এই বাসাতেই সংসার শুরু করেছিলেন। তাদের জন্ম এই বাড়িতে। ২০০৫ সালে তাদের মা–বাবার বিচ্ছেদ হয়।’

ঢাকাটাইমস/২৬অক্টোবর/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :