গুড়ের জিলাপির সিঙ্গারা পুরান ঢাকায়

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২১ জানুয়ারি ২০২১, ২১:৫৬ | প্রকাশিত : ২১ জানুয়ারি ২০২১, ২১:৪২

সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মুখরোচক নানা ধরনের ফাস্টফুড খাবার। হরেক রকমের এসব খাবারের দোকানগুলোতে তাই সবসময় লেগে থাকে ফাস্টফুড প্রিয় মানুষদের ভীড়। কিন্তু এত খাবারের মাঝেও জনপ্রিয়তা হারায়নি সিঙ্গারা। তবে আলু, পিয়াজের সঙ্গে অন্যান্য মশলার মিশ্রনে সিঙ্গারার সঙ্গেই সবাই পরিচিত।

কিন্তু হাওর অঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় মিষ্টি সিঙ্গারার কদর থাকলেও রাজধানীতে খুব একটা চোখে পড়ে না এটি। তবে ধীরে ধীরে আলু-পিয়াজের সিঙ্গারার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মিষ্টি সিঙ্গারার জনপ্রিয়তা বাড়ছে।

একযুগেরও বেশি সময় ধরে কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরের মামুন গুড়ের জিলাপি আর সুজি দিয়ে তৈরী করছেন ভিন্নস্বাদের মিষ্টি সিঙ্গারা। পুরান ঢাকার কবি নজরুল সরকারি কলেজের সামনে প্রতিদিন দুপুরের পর থেকে দেখা মিলবে মামুনের। মধ্যরাত অবধি বিক্রি করেন মিষ্টি সিঙ্গারা। মিষ্টি মামুন বলেও অনেকে চিনেন ব্যতিক্রমী এই সিঙ্গারার কারিগরকে। দেড়মাস ধরে ঢাকায় মিষ্টি সিঙ্গারা বিক্রি করছেন মামুন।

মামুনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গুড়ের জিলাপির সঙ্গে সুজি মিশিয়ে তৈরী করা হয় মজাদার এই সিঙ্গারাটি। এজন্য আগে জিলাপি তৈরী করে রেখে দেন। পরে ঠান্ডা হলে তা ভেঙে সুজির সঙ্গে মিশিয়ে পরিমাণমতো দিয়ে সিঙ্গারা বানিয়ে তেলে ভাজা হয়। ভাজা শেষ হলে আলাদা করে তৈরী সিরায় চুবিয়ে কিছু সময় পর তুলে ফেলা হয়।

বিক্রেতা জানালেন, বাসায় রেখে এক সপ্তাহ র্পযন্ত খাওয়া যায় এই মিষ্টি সিঙ্গারা।

শুরুতে প্রতিদিন ৫০টি সিঙ্গারা বিক্রি করলেও দিনে দিনে ক্রেতাদের ভীড় বাড়ছে বলে জানালেন মামুন। বললেন, দিনে দেড়শ থেকে ২০০ পিচ সিঙ্গারা বিক্রি হয়।

মামুনের দোকানে সিঙ্গারার পাশাপাশি গুড়ের জিলাপিও বিক্রি হয়। যা বিক্রি করা হয় ১২০ টাকা কেজি দরে।

অভিযোগ আছে, সড়কের পাশে ভ্যানে করে সিঙ্গারা বিক্রি করায় অনেককে প্রতিদিন চাঁদা দিতে হয় বলে জানা গেছে। ফলে প্রতিদিন আয়ের টাকার বড় একটি অংশ চলে যায় চাঁদার টাকায়।

(ঢাকাটাইমস/২১জানুয়ারি/বিইউ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :