ময়মনসিংহে পুলিশ-ছাত্রদল সংঘর্ষ, আহত ৩০

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৭ জুন ২০২১, ২০:১৪ | প্রকাশিত : ১৭ জুন ২০২১, ১৭:০২

ময়মনসিংহে পুলিশের সঙ্গে ছাত্রদলের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ইট-পাটকেল নিক্ষেপ, গুলি বর্ষণ ও ব্যাপক লাঠিচার্জ হয়। এতে পুলিশসহ আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৩০ জন। নগরীর শহরতলী এলাকায় বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ছাত্রদলের আলোচনা সভাকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে রয়েছেন- কোতয়ালি মডেল থানার ওসি তদন্ত ফারুক হোসেন, ওসি অপারেশন ওয়াজেদ আলী, পুলিশ সদস্য চাঁন মিয়াসহ কমপক্ষে ১০ জন পুলিশ সদস্য। এছাড়াও ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, ঢাকা মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাবিবুর রশিদ হাবিব, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহসভাপতি মাজেদুর রহমান রুমন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মারুফ এলাহী, রাশেদ ইকবাল, বিভাগীয় সহসাংগাঠনিক সম্পাদক নাইমুল করিম লুইম, মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক তানভীর আহমদ রবিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইফতেখার আলম রাজু, দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মাহাবুবুর রহমান রানা, সাধারণ সম্পাদক আবু দাউদ রায়হান, উত্তর জেলার সভাপতি নিহাদ সালমান ডুনন, সাধারণ সম্পাদক রায়হান শরীফ হলুদ, সহ-সভাপতি সাইফুজ্জামান সরকার শাওন, আনন্দ মোহন কলেজ ছাত্রদল নেতা রাকিবুল ইসলাম রাকিব, ছাত্রনেতা মোমেনসহ কমপক্ষে ২০ ছাত্রদল নেতাকর্মী আহত হন।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার মো. আহমার উজ্জামান বলেন, চরকালী বাড়ি এলাকায় কোভিড নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গ করে ছাত্রদল সমাবেশ করছিল। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে বিনা উস্কানিতে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা পুলিশের ওপর হামলা করেন। এসময় বেশ কিছু পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

তবে ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি মাজেদুল ইসলাম রুমন বলেন, ময়মনসিংহ মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ, কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় এবং বাকৃবি ছাত্রদলের উদ্যোগে নগরীর দক্ষিণ চরকালী বাড়ি দাখিল মাদরাসা মাঠে জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলোচনা সভার আয়োজন করে। মহানগরে বাইরে অনুষ্ঠানের জন্য পুলিশের অনুমতি ছিল। কিন্তু পুলিশ বিনা উস্কানিতে সভায় হামলা করে সভা পণ্ড করে দেয় এবং নেতাকর্মীদের উপর গুলিবর্ষণ করে ব্যাপক লাঠিচার্জ করে। এতে ছাত্রদলের অনেক নেতাকর্মী গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছেন অন্তত ২০ থেকে ৩০ জন।

এ বিষয়ে ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল বলেন, ‘সরকারের পেটোয়া বাহিনী যতই নিপীড়ন-নির্যাতন করুক ছাত্র-জনতার নেতেৃত্বেই এই ফ্যসিস্ট সরকারের পতন ঘটবেই ইনশাল্লাহ।’

এদিকে এ সংঘর্ষের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে আটজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কোতয়ালী মডেল থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার। এ সময় প্রায় ২০টি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয় বলেও জানান তিনি।

(ঢাকাটাইমস/১৭জুন/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত