এবার ব্রাজিলে চৈতন্য রাজবংশীর স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্র ‘মাটিশ্বর’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৫ মার্চ ২০২২, ১৬:৪৮ | প্রকাশিত : ০৫ মার্চ ২০২২, ১৫:৫৬

চলমান ঢাকা আন্তর্জাতিক মুক্ত ও স্বাধীন চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শনের পর এবার ব্রাজিলের একটি চলচ্চিত্র উৎসবে আমন্ত্রণ পেল তরুণ নির্মাতা চৈতন্য রাজবংশীর স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্র ‘মাটিশ্বর’।

তরুণ নির্মাতা ঢাকাটাইমসকে বলেন, চলতি মাসেই ব্রাজিলের সাও পাওলোতে বসছে ‘ক্ল্যাপারবোর্ড গোল্ডেন ফেস্টিভাল ২০২২’। এই উৎসবে ‘স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্র’ বিভাগে প্রতিযোগিতার জন্য নির্বাচিত হয়েছে আমার ‘মাটিশ্বর- দ্যা স্পিরিট অফ ক্লে’।

উৎসবটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৯ মার্চ। ‘ক্ল্যাপারবোর্ড গোল্ডেন ফেস্টিভাল’ এমন একটি আন্তর্জাতিক উৎসব, যা সারা বিশ্বের পরিচালকদের নির্মিত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণে সৃজনশীল চেতনা, সাংস্কৃতিক শক্তি এবং বৈচিত্র্যের মূল্যায়ন করতে চায়। মূলত স্বাধীন তরুণ শৈল্পিক চলচ্চিত্রগুলো এখানে স্থান পেয়ে থাকে।

এই উৎসবে স্থান করে নেয়ায় উচ্ছ্বসিত তরুণ এই নির্মাতা। জানালেন, ঢাকা আন্তর্জাতিক মুক্ত ও স্বাধীন চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শনীর আগে প্রথমবার এই স্বল্পদৈর্ঘ্যটি দেখানো হয়েছে ‘লিফট অফ গ্লোবাল নেটওয়ার্ক ২০২১’ আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে।

‘মাটিশ্বর’ নির্মাণের পেছনের গল্প জানিয়ে এই নির্মাতা জানান, প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ করার তেমন কোন পূর্বপরিকল্পনা ছিল না। করোনাকালীন সময়ে যখন সারাদেশে শুরু হয় লকডাউন তখন বাড়িতে আবদ্ধ থেকে মন বিষিয়ে উঠে। তখন কিছু একটা করার জন্য মন সায় দেয়। শুরু হয় মাটিশ্বরের কাজ।

কিন্তু চিত্র ধারণ করার জন্য ক্যামেরা ছিল না। ব্যবস্থা করার মতো কোন উপায়ও ছিল না। কিন্তু এই মানুষের জীবনপ্রবাহ এবং তাদের সংগ্রামের কথাগুলো ফ্রেমে বন্দি করার জন্য প্রাণ চঞ্চল হয়ে উঠে। তাই হাতে থাকা মোবাইল ফোন দিয়েই শুরু করতে হয় চিত্রধারণের কাজ। ছোট বেলা থেকেই কুমারদের দেখে আসছি। মাটির সঙ্গে তাদের অস্তিত্বের জীবনচিত্র। হাড়ভাঙা খাটুনি করতে হয় তাদের। রচিত হয় তাদের জীবন প্রবাহ। মাটিই যেন হয়ে উঠে ঈশ্বর। এই মাটির স্বরূপ সন্ধান করতেই আমার এই কাজ।

(ঢাকাটাইমস/৫মার্চ/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :