ফলের বাজারও অস্থির

পুলক রাজ, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ আগস্ট ২০২২, ২০:৩১

জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় ফলের বাজারও অস্থির। এক সপ্তাহের ব্যবধানে অস্বাভাবিকভাবেই বেড়েছে ফলের দাম। প্রতি কেজি আপেলে ৫০ থেকে ১২০ টাকা করে দাম বেড়েছে। এছাড়া কমলায় ৯০ থেকে ১২০ টাকা, আমে ৮০ থেকে ১২০ টাকা এবং আঙুরের দাম কেজিতে ৯০ টাকা বেড়েছে।

আরও দাম বেড়েছে মাল্টা, নাটফল, আনার ও আনারসেরও। জ্বালানির দাম বাড়ানোর পর কয়েকদিনে খুচরাপর্যায়ে এসব ফলের দাম ৩০ থেকে ১৫০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। শুক্রবার (১৯ আগস্ট) রাজধানীর বিভিন্ন ফলের বাজার ঘুরে এ চিত্র পাওয়া গেছে।

সরেজমিনে বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ব্যবসায়ীরা বারি ফোর আমের কেজি বিক্রি করছেন ২৫০ থেকে ২৬০ টাকা, যা জ্বালানি তেলের দাম বাড়তির আগে ১৫০ থেকে ১৭০ টাকা দরে বিক্রি হয়। বর্তমানে আশ্বিনা আমের প্রতি কেজি ৭০-১৩০ টাকা, যা আগে ছিল ৫০ থেকে ৮০ টাকার মধ্যে। গালা আপেলের প্রতি কেজি ২৮০-৩২০ টাকা, যা আগে ছিল ২১০-২৩০ টাকা।

দক্ষিণ আফ্রিকার আপেলের (গ্রিন আপেল) প্রতি কেজি বিক্রি করছেন ৩১০ থেকে ৩৩০ টাকা, যা আগে ছিল ২৩০ থেকে ২৮০ টাকা। ফুজি আপেলের প্রতি কেজি ২৫০ থেকে ২৭০ টাকা, যা আগে ছিল ১৭০-১৯০ টাকার মধ্যে। মাল্টার কেজি ২০০ থেকে ২২০ টাকা, যা আগে ছিল ১৫০-১৮০ টাকা। কমলা প্রতি কেজি ৩৩০ থেকে ৩৬০ টাকা, আগে ছিল ২৪০ থেকে ৩০০ টাকা। নাটফলের কেজি প্রতি ৩২০-৩৬০ টাকা বিক্রি হচ্ছে, যা আগে ছিল ১৯০ থেকে ২২০ টাকা।

আঙুর প্রতি কেজি ৩২০ থেকে ৩৮০ থেকে বেড়ে ৪৩০ থেকে ৪৭০ টাকা, আনারের প্রতি কেজি ২১০-২৪০ থেকে বেড়ে ২৯০ থেকে ৩২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির আগে ৩০ টাকা পিস বিক্রি হওয়া আনারস এখন বিক্রি হচ্ছে ৭৫ টাকা। চাম্পা কলা প্রতি পিস ৮/১০ টাকা থেকে বেড়ে ১৫ থেকে ১৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

রাজধানীর হাতিরপুল এলাকার ফল ব্যবসায়ী আজির উদ্দিন ঢাকাটাইমসকে বলেন, জ্বালানি তেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় দেশের কোনো বাজারে স্বস্তি নেই। এটা আমি বুঝি। কিন্তু বাসভাড়া, ট্রাকভাড়া বেড়ে গেছে কল্পনার বাইরে। জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির আগে যে ফল বিক্রি করছি ২০০ টাকা, সেই ফল আজ ২৫০ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে। যানবাহন ভাড়া না কমলে ফলের দাম কমার সুযোগ নেই।

ক্রেতা লুৎফুর রহমান ঢাকাটাইমসকে বলেন, বাসায় রোগী আছে। ডাক্তার বলেছে ফল খাওয়ানোর জন্য। সব পণ্যের অতিরিক্ত দাম বেড়েছে। এর মধ্যে ফলের বাজারেও প্রভাব পড়েছে অনেক। কমলা এক কেজি ৩৫০ টাকায় কিনেছি। প্রায় ১৫ দিন আগে ২৭০ টাকা করে কিনেছি। আমার মনে হচ্ছে যতো দিন যাচ্ছে আমার মতো সাধারণ মানুষের মহাসমস্যা হচ্ছে।

ফল ক্রেতা তন্ময় সরকার ঢাকাটাইমসকে বলেন, জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় একটা দিন শান্তিতে বাজার করতে পাড়ছি না। সব পণ্যের দাম বেড়েছে। এমনকি কলা এক হালি কিনতে হয়েছে ৬০ টাকা দিয়ে। কিছুদিন আগেও হালিতে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায় কিনেছি।

রাজধানীর পুরান ঢাকার বাদামতলীর পাইকারি ফলের ব্যবসায়ী মনিরুজ্জামন মনির ঢাকাটাইমসকে বলেন, বিভিন্ন ধরনের ফলের আমদানি তুলনামূলক কম। একদিকে ডলারের মূল্য বৃদ্ধি, অন্যদিকে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার কারণে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে ফল আনতে দ্বিগুণ খরচ বেড়ে গেছে। আমার মনে হচ্ছে এ রকম থাকলে যত দিন যাবে ফলের দাম আরো বাড়বে।

(ঢাকাটাইমস/১৯আগস্ট/পিআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

অর্থনীতি এর সর্বশেষ

চীনের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর

পুঁজিবাজারে শরিয়া অ্যাডভাইজারি কাউন্সিল গঠনের সিদ্ধান্ত

বেস্ট ব্যাংক অ্যাওয়ার্ড পেল ইসলামী ব্যাংক

এনআরবিসি ব্যাংকের সাউথ এশিয়ান বিজনেস এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড অর্জন

বিশ্ববাজারে ক্রমবর্ধমান মন্দা আরও তীব্র হওয়ার আশঙ্কা

বাংলাদেশি কোম্পানিতে আসছে বিদেশি বিনিয়োগ

কীভাবে দেনা পরিশোধ গ্রাহকদের, জানাবে ইভ্যালি

কর্মসংস্থান ব্যাংকের ঢাকা বিভাগীয় ব্যবসায়িক পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত

স্বপ্ন এখন বরিশালের রুপাতলীতে

বাজারে নাভিশ্বাস: দাম বাড়ানো ‘ধান্দাবাজদের’ জেলে ভরা হোক, চাইছেন ব্যবসায়ীরাই

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :