যেসব খাবারে জব্দ থাকবে কোলেস্টেরল

ঢাকা টাইমস ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৩৫

আমরা তেলে ভাজা নানা ফাস্টফুড পছন্দ করি, কিন্তু কোলেস্টেরলকে নয়। এটিকে এড়িয়েও চলতে পারি না। কোলেস্টেরলের এই সমস্যা এখন ঘরে ঘরে। কারণ একটাই, খাদ্যাভ্যাস। তাই পাল্টে ফেলতে হবে খাবারের তালিকা। এমন কিছু খাবার খেতে হবে, যা জব্দ করে রাখবে কোলেস্টেরল। চলুন তবে এক নজরে ঝালিয়ে নেওয়া যাক সেসব খাবার।

ওটস

কোলেস্টেরল কমানোর সব থেকে সোজা উপায় হলো, নিয়মিত এক বাটি ওটস্ খাওয়া। বিশেষজ্ঞদের মতে, শরীরকে সুস্থ রাখতে দিনে ৫-১০ গ্রাম দ্রবণীয় ফাইবার দরকার। এক বাটি ওটসে রয়েছে ১-২ গ্রাম দ্রবণীয় ফাইবার। ওটসের সঙ্গে অন্যান্য ফল যেমন কলা, আঙুর ইত্যাদি মিশিয়ে খেলে আরও ভালো।

বার্লি এবং অন্যান্য গোটা শস্য

শরীরে কোলেস্টেরলে মাত্রা বাড়লে মূলত হার্টের সমস্যা দেখা দেয়। কারণ, কোলেস্টেরল শিরা ও ধমনির পথ সরু করে দেয়। ফলে উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা দেখা দেয়। এখান থেকেই হার্টের ব্লাড পাম্পে সমস্যা দেখা দেয়। ওটসের মতই নিয়মিত বার্লি ও অন্যান্য গোটা শস্য, যেমন- গম, ভুট্টা ইত্যাদি খেলে শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে।

বিনস

যারা ওজন কমাতে চান, তাদের জন্য বিনস অত্যন্ত কার্যকরী। বিশেষজ্ঞদের মতে, বিনস হজম হতে একটু বেশি সময় নেয়। ফলে বিনস খেলে অনেকক্ষণ পেট ভরে থাকে, খিদে কম পায়। এছাড়া এতে রয়েছে বিপুল পরিমাণে দ্রবণীয় ফাইবার।

বেগুন ও ঢেঁড়শ

বেগুন এবং ঢেঁড়শ অত্যন্ত সাধারণ একটি সবজি। কিন্তু জানেন কি, এই দুটি সবজিতে ক্যালরির পরিমাণ খুবই কম। এর পাশাপাশি দ্রবণীয় ফাইবারের উৎকৃষ্ট ভাণ্ডার।

বাদাম

বিশেষজ্ঞদের মতে, নিয়মিত প্রায় ৬০ গ্রামের মতো আমন্ড, ওয়ালনাট, যেকোনো বাদাম খেলেই ৫ শতাংশ পর্যন্ত কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে যায়। এছা়ড়া বাদামে এমন অনেক উপাদান আছে, যাতে হার্টও ভালো থাকে।

ভেজিটেবল ওয়েল বা উদ্ভিজ্জ তেল

যেকোনো উদ্ভিজ্জ তেল যেমন, সূর্যমুখী তেল, অলিভ ওয়েল ইত্যাদি দিয়ে আপনার প্রত্যেক দিনের খাবারের তালিকা থেকে ঘি, মাখন বাদ দিয়ে দিন। কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে ভেজিটেবল ওয়েলের জুড়ি মেলা ভার!

ফল

আপেল, আঙুর, স্ট্রবেরি, বিভিন্ন লেবু– এই প্রকার ফলগুলোতে উচ্চ মাত্রায় পেক্টিন থাকে। এছাড়া এতে দ্রবণীয় ফাইবারও আছে। ফলে কোলেস্টেরল কমাতে দুপুরে খাবারের পর নিয়মিত ফল খাওয়া উচিত।

অতিরিক্ত চর্বিযুক্ত মাছ বা ফ্যাটি ফিশ

কোলেস্টেরল কমাতে হলে খাবারের তালিকা থেকে সবার আগে মাংসকে সরাতে হবে। অতিরিক্ত চর্বিযুক্ত মাছ, যেমন স্যালমন, টুনা, সারডিন ইত্যাদি মাছে ওমেগা থ্রি থাকে। সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন এই মাছ খেলে কোলেস্টেরলের সমস্যা অনেকটাই কমে যায় বলে বিশেষজ্ঞদের দাবি।

(ঢাকাটাইমস/২৯সেপ্টেম্বর/এজে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :