প্রেমিকের বাড়িতে স্কুলছাত্রীর মৃত্যু, যা জানা গেল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪:৩৯

মুন্সিগঞ্জে স্কুলছাত্রী জেসিকা মাহমুদ জেসির মৃত্যুর ঘটনায় তার প্রেমিক বিজয় রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শনিবার রাতে রাজধানীর ওয়ারী থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

গত ৩ জানুয়ারি মুন্সীগঞ্জের কোর্টগাঁও এলাকায় বন্ধুর বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী জেসির রহস্যজনক মৃত্যু হয়। এ ঘটনার পর তার বড় ভাই মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। তার মৃত্যুর ঘটনায় সহপাঠী শিক্ষার্থী ও স্বজনরা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেন।

পরবর্তীতে র‌্যাব ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন ও ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে গোয়েন্দা নজরদারি শুরু করে। র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দা শাখা ও র‌্যাব-৩ এর একটি দল রাজধানীর ওয়ারী এলাকা থেকে জেসি হত্যার আসামি বিজয় রহমানকে গ্রেপ্তার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জেসির মৃত্যুর ঘটনায় সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে তথ্য দিয়েছেন বিজয়।

মৃত্যু সম্পর্কে যা জানা গেল

রবিবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে বাহিনীর আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, ‘গ্রেপ্তার বিজয় ২০১৯ সালে একই স্কুলে পড়ুয়া আদিবা আক্তারের (জেসি মৃত্যুর ঘটনায় মামলার আসামি) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়ায়। আদিবার সঙ্গে সম্পর্ক চলাকালে গতবছরের জানুয়ারিতে জেসিকার সঙ্গেও প্রেমের সম্পর্কে জড়ায়।’

বিজয় দুজনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক বজায় রেখে গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে আদিবাকে গোপনে বিয়ে করেন বলে জানান কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

তিনি জানান, বিষয়টি জেসিকা জানার পর তার সঙ্গে বিজয়ের প্রেমের সম্পর্কের বিষয় ও বেশকিছু স্ক্রিনশট আদিবার মোবাইলে পাঠান। বিষয়টি নিয়ে বিজয় ও তার স্ত্রী আদিবার মধ্যে কাটাকাটি ও ঝগড়া-বিবাদ তৈরি করে। এতে দুজনের মধ্যে সম্পর্কেরও অবনতি হয়।

জানা গেছে, গত বছরের ডিসেম্বর মাসের শেষের দিকে বিজয় ও আদিবা পরিকল্পনা করেন, তারা দুজন জেসিকা মাহমুদ জেসিকে বাসার ছাদে ডেকে এনে ‘উচিত শিক্ষা দেবেন’।

পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ঘটনার দিন বিকালে আদিবা জেসিকে ফোন করে বলেন, তার সঙ্গে দেখা করে বিজয়ের সঙ্গে তার কথোপকথনের স্ক্রিনশট দেখবেন এবং বিষয়টি মীমাংসা করবেন। এজন্য বিজয়কেও ছাদে আসতে বলা হয়। তিনজন ঘটনাস্থলে থাকা অবস্থায় তাদের মধ্যে বাগবিতণ্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এরই একপর্যায়ে বিজয় ও আদিবা জেসির গলা টিপে ধরলে শ্বাসরোধ হয়ে ঘটনাস্থলে অজ্ঞান হয়ে পড়েন।

পরে নিজেদেরকে নির্দোষ প্রমাণ করার জন্য ‘জেসি ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়েছেন’- এমন নাটক সাজানোর উদ্দেশ্যে বিজয় ও আদিবা জেসিকে অজ্ঞান অবস্থায় ছাদ থেকে নামিয়ে রাস্তার পাশে ফেলে রেখে বাসার ভিতরে চলে যান। পরবর্তীতে পাশের বাসায় থাকা বিজয়ের চাচা জেসিকে রাস্তার পাশে পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার শুরু করলে বিজয় এবং তার পরিবারের অন্য সদস্যরা বাসা থেকে নেমে আসেন।

একপর্যায়ে বিজয় এবং তার বাবাসহ স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় ভিকটিমকে মুন্সিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরবর্তী সময়ে বিজয় ভিকটিম জেসির ভাইকে জেসির অসুস্থতার কথা বলে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে জরুরি ভিত্তিতে আসতে বলেন। জেসির ভাই হাসপাতালে এসে পৌঁছালে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান জেসি মারা গেছেন।

জেসির মৃত্যুর ঘটনা শুনে বিজয় এবং তার স্ত্রী কৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে যান। পরবর্তীতে জেসির মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে তার ভাই জানতে পারেন, জেসিকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। এরপর তিনি সদর থানায় বিজয়, আদিবাসহ আরও ১-২ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এদিকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী শনিবার জেসির মৃত্যুর ঘটনায় আদিবাকে গ্র্রেপ্তারের কথা জানিয়েছে। বর্তমানে তিনি কারাগারে রয়েছেন।

জেসির পরিবার বলছে, জেসিকা মাহমুদ জেসি মুন্সীগঞ্জের একটি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণিতে পড়াশোনা করত। ঘটনার দিন আদিবা ও বিজয় তাদের বাসার ছাদে ডেকে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে জেসি অসুস্থ বলে মোবাইলে ফোন আসে। পরিবারের সদস্যরা হাসপাতালে গিয়ে জেসিকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান।

মাজারে আত্মগোপনে ২২ দিন

বিজয় মুন্সীগঞ্জের একটি কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। জেসির মৃত্যুর পর থেকে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান এলাকায় তার বন্ধুর বাড়িতে চারদিন আত্মগোপনে ছিলেন তিনি। সেখানে নিজেকে নিরাপদ মনে না করে পরবর্তীতে ফরিদপুরের একটি মাজারে ছদ্মবেশে ২২ দিন আত্মগোপনে ছিলেন। একপর্যায়ে তার সন্দেহ জাগে, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তাকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান চালাতে পারে। ১ ফেব্রুয়ারি তিনি রাজধানীর ওয়ারী এলাকায় তার এক ঘনিষ্ঠ বন্ধুর বাসায় এসে আত্মগোপন করেন। পরে র‌্যাব সেখান থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।

(ঢাকাটাইমস/০৫ফেব্রুয়ারি/এসএস/এফএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অপরাধ ও দুর্নীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

অপরাধ ও দুর্নীতি এর সর্বশেষ

‘জাউরা গ্রুপ’সহ একাধিক কিশোর গ্যাংয়ের ৩৩ সদস্য গ্রেপ্তার

দুই ডজন ওয়ারেন্ট: গোপনে দেশ ছাড়ছিলেন সোহেল, অতঃপর গ্রেপ্তার

বমি করে ছিনতাই চক্রের ‘গুরু’ চোরা স্বপন গ্রেপ্তার

শিশু হাসপাতালে যুবককে পিটিয়ে হত্যা: অ্যাম্বুলেন্স চালকসহ চারজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের দুই সদস্য গ্রেপ্তার

ডিবি পরিচয়ে ডাকাতি করেন তারা, পরে ভুক্তভোগীর হাতে পিস্তল দিয়ে ছবি তুলে রাখেন

এমবিবিএস পরীক্ষায় উত্তরপত্র ছিঁড়ে ফেলার ঘটনা ঘটেনি: তদন্ত কমিটি

৩০ হাজার টাকায় রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশের নাগরিক বানিয়ে দিতেন তারা

 ‘দরবেশ বাবা’দের প্রতারণা: চিকিৎসক খুইয়েছেন ২৫ লাখ টাকা

সমস্যা সমাধানের নামে প্রতারণা, ১৯ ‘দরবেশ বাবা’ গ্রেপ্তার

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :