পঞ্চগড়ে শিশু কন্যাকে হত্যার দায়ে বাবার ফাঁসির আদেশ

পঞ্চগড় প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৩ মার্চ ২০২৩, ১৮:১১

পঞ্চগড়ে পারিবারিক কলহের জেরে ছয় মাস বয়সী মেয়েকে হত্যার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় নাজিমুল হক (৩৪) নামে এক বাবার ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার দুপুরে পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আনিছুর রহমান এই আদেশ দেন। নাজিমুল হকের বাড়ি উপজেলা সদরের সিংরোড জয়দরভাঙ্গা গ্রামে।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ থেকে জানা যায়, প্রায় ১১ বছর আগে একই উপজেলার নারায়ণপুর গ্রামের রশিদুল ইসলামের মেয়ে রশিদা বেগমকে প্রেমের সম্পর্কে বিয়ে করেন। বিয়ের পর নাজিমুল নানা অজুহাতে স্ত্রীকে প্রায় মারধর করতেন। এরই মধ্যে তিনটি কন্যা সন্তান জন্ম দিলে রশিদার ওপর অত্যাচার আরও বেড়ে যায়। ঘটনার দিন ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ রাতে রশিদাকে আবারও মারপিট শুরু করলে দুই মেয়ে নাজিরা (৮) ও রিয়ামনি (৭) এগিয়ে আসে। এ সময় নাজিমুল তার স্ত্রীর সাথে দুই মেয়েসহ ছয় মাস বয়সী রত্নাকেও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়। শিশু রত্না ঘটনাস্থলে মারা গেলেও দুই মেয়ে ও তার স্ত্রীকে প্রতিবেশীরা উদ্ধার করে প্রথমে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতাল এবং পরে তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। ঘটনার পরদিন নাজিমুলের শ্বশুর রশিদুল ইসলাম বাদী হয়ে সদর থানায় নাজিমুল, তার মা নাসিমা বেগম এবং বাবা জয়নুল হককে আসামি করে মামলা করেন।

এরপর মামলার দীর্ঘ তদন্ত শেষে পঞ্চগড় থানার তৎকালীন পরিদর্শক (তদন্ত) জামাল হোসেন ২০২০ সালের ৩১ অক্টোবর নাজিমুলের বাবা ও মাকে অব্যাহতি দিয়ে নাজিমুল হকের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ এনে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। দীর্ঘ বিচারিক প্রক্রিয়ায় ১৯ জন সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালতের কাঠগড়ায় নাজিমুল হকের উপস্থিতিতে আদালত এই রায় প্রদান করেন।

ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত আসামি নাজিমুলের মা নাসিমা বেগম বলেন, পারিবারিক মারপিটের কারণে দুর্ঘটনাবশত এমন ঘটনা ঘটেছে। আমার ছেলে নাজিমুল ন্যায্য বিচার পাননি। আমি আদালতের কাছে ছেলের জন্য ন্যায্য বিচার চাই।

আসামি পক্ষের আইনজীবী আহসান হাবিব বলেন, সন্তান হত্যার দায়ে অতিরিক্ত জেলা জজ আদালতের বিচারক নাজিমুলকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন। মামলার আসামি পক্ষের আইনজীবী হিসেবে এতে আমরা সংক্ষুব্ধ হয়েছি। আমরা উচ্চ আদালতে এই রায়ের বিপরীতে আপিল করব।

তবে মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আসামি নাজিমুল তিন কন্যাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জখমসহ ছোট কন্যা রত্নাকে আছাড় দিয়ে হত্যা করেছিলেন। এটা একটা নজিবিহীন ঘটনা এবং আদালতে সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে। এজন্য এই রায় যথাযথ হয়েছে বলে আমরা মনে করি।

(ঢাকাটাইমস/১৩মার্চ/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :