দেশকে অস্থিতিশীল করতে একটি পক্ষ সবসময় কাজ করে: শিক্ষামন্ত্রী

চাঁদপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৫ মে ২০২৩, ১৮:২৪ | প্রকাশিত : ২৫ মে ২০২৩, ১৮:০৭

দেশকে অস্থিতিশীল করতে একটি পক্ষ সবসময় কাজ করে বলে মন্ত্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপুমনি। তিনি বলেন, সকল ধর্মই শান্তি শিক্ষা দেয়। সবাই যেন সকল ধর্মের মূলকথাগুলো পালন করে। আর এর অনুভবটা নিজেদের মধ্যে রাখে। আমাদেরকে ধর্মের মূলবানী সকলের মাঝে পৌঁছে দিতে হবে। সামনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। দেশ অস্থিতিশীল করার জন্য একটি পক্ষ সবসময় কাজ করে। তাই আমাদের সকলকে সচেতন এবং অপচেষ্টাকারীদের বিরুদ্ধে সক্রিয় হতে হবে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে ধর্মীয় সম্প্রীতি ও সচেতনতামূলক দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এর আগে বেলা ১১টায় এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচি শুরু হয়।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক দেশ। আমরা সকল শ্রেণি-পেশার ও ধর্মের মানুষ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখবো। আমাদের দেশে সকল ধর্মের মানুষ একত্রে বসবাস করার ঐতিহ্য রয়েছে। আমাদের সম্পর্ক বিনষ্ট করার জন্য কিছু কিছু মানুষ কাজ করে থাকে। তাদের থেকে সচেতন হতে হবে এবং তাদেরকে প্রতিহত করতে হবে।

এতে সভাপতিত্ব করেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) কামরুল হাসান। তিনি বক্তব্যে বলেন তথ্য প্রযুক্তিতে দেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে। আমরা কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করবো না। তাই আজকে সকল ধর্মীয় লোকদের নিয়ে এই প্রশিক্ষন। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে সলকে এগিয়ে আসতে হবে। কাউকে ধর্মান্তিত করতে জোর করা যাবে না। কাউকে উস্কানিমূলক কোন কিছু করা যাবে না। সকল কিছু ধর্মীয় দৃষ্টিকোন থেকে প্রচার করতে পারবেন, কিন্তু আঘাত হানতে পারবেন না। আমাদের অদূরদর্শী কর্মকান্ডের কারণে যেন সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না হয়। মানুষকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কোন প্রকার বিভ্রান্ত করা যাবে না।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর ইসলামী ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মো. রুহুল আমিন।

বিশেষ অতিথি বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম ও অপস) পলাশ কান্তি নাথ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) এ এস এম মোসা, প্রেসক্লাব সভাপতি এএইচএম আহসান উল্লাহ, চাঁদপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট রঞ্জিত রায় চৌধুরী।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তিলায়াত করেন বায়তুল আমিন জামে মসজিদের ইমাম মো. আবুবকর বিন ফারুক, গীতা পাঠ করেন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক বিমল চৌধুরী ও বাইবেল পাঠ করেন রীতা মাইকেল।

চাঁদপুর জেলা ইমাম-মোয়াজ্জিন কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুর রহমান গাজীর সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা স্কাউটস্ সাধারণ সম্পাদক অজয় কুমার ভৌমিক, শহরের শাহী জামে মসজিদের খতিব আলহাজ মাওলানা আব্দুল্লা আল মামুন, খ্রিস্টান ধর্মের পক্ষে রসি বর্মণ।

উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট আলেম মুফতি সিরাজুল ইসলাম, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি কাজী শাহাদাত, চাঁদপুর জেলা পুজা কমিটি নেতা রাধা গোবিন্দ গোপ, তপন সরকার, গোপাল সাহা, ল²ণ চন্দ্র সূত্রধর, অ্যাড. বিনয় ভূষণ মজুমদারসহ বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান প্রধান ও প্রতিনিধি।

(ঢাকাটাইমস/২৫মে/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :