সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের স্টোরকিপারসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ, তদন্তের নির্দেশ আদালতের

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৩ জুন ২০২৩, ১২:৪৬

সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের স্টোরকিপারসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে আদালতে দুর্নীতির অভিযোগ করেছেন স্থানীয় এক বাসিন্দা। অভিযোগটি আমলে নিয়ে তদন্তের জন্য দুদকের কাছে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করেন পৌর এলাকার বাঁধনপাড়ার বাসিন্দা মোহাম্মদ সাজিদুর রহমান। পরে আদালত তা আমলে নিয়ে অভিযোগটি তদন্ত করার জন্য দুর্নীতি দমন কমিশনে প্রেরণ করার আদেশ দেন।

দুদকের পি.পি অ্যাডভোকেট আইনুল ইসলাম বাবলু জানান, আদালত অভিযোগটি গ্রহণ করে দুদকের কাছে তদন্তের জন্য পাঠিয়েছেন।

অভিযুক্তদের মধ্যে রয়েছেন, স্টোরকিপার সুলেমান আহমেদ, হাসপাতালের হিসাব রক্ষক মোহাম্মদ ছমিরুল ইসলাম, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান সহকারী বিবেকানন্দ গোস্বামী, অবসরপ্রাপ্ত বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডাক্তার হিমাংশু লাল রায়, বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডাক্তার মোহাম্মদ শরিফুল হাসান, সিনিয়র স্টাফ নার্স (ব্রাদার) মোস্তাফিজুর রহমান ও রফিকুল ইসলাম।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, সুলেমান আহমেদ পৌর শহরের মল্লিকপুরের বাসিন্দা হলেও ছাতকের ১২ নম্বর ছৈলা আফজালালাবাদ ইউনিয়নের শিবনগর গ্রামের বাসিন্দা ঠিকানা ব্যবহার করে ২০০৪ সালে স্বাস্থ্য সহকারী পদে যোগদান করেন। প্রতারণার মাধ্যমে জাল নাগরিকত্ব সার্টিফিকেট ও ভোটার তালিকায় মিথ্যাভাবে নাম ঠিকানা উঠিয়ে অসৎ উপায় অবলম্বন করে চাকরি গ্রহণের অপরাধের সঙ্গে জড়িত তিনি।

অভিযোগে আরও দাবি করা হয়, সোলেমান বিপুল অর্থ বিনিয়োগ করে ২০১৮ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি স্টোর কিপার পদে যোগদান করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে দুনীর্তির সম্রাজ্য গড়ে তোলেন। সোলেয়মান সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করছে পুরো হাসপাতাল।

এছাড়া হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. আনিছুর রহমানসহ সব কর্মকর্তা-কর্মচারী এই সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি। ক্ষমতার অপব্যবহার করে রাতারাতি বিপুল অর্থ সম্পদের মালিক হয়ে যান সোলেমান ও তার সঙ্গীরা।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, সরকারি হাসপাতালের স্টোর থেকে ওষুধ চুরি, নিয়োগ বাণিজ্য, অবৈধ অর্থ আত্মসাৎ, অবৈধ ক্ষমতা প্রয়োগ করে ২০২৩ সাল পর্যন্ত ৩৮ লাখ ৯২ হাজার টাকা অবৈধভাবে আয় করেছেন।

এদিকে বাদীর পক্ষে আদালতে অভিযোগ দাখিল করেন অ্যাডভোকেট শহীদুজ্জামান চৌধুরী, অ্যাডভোকেট নিরঞ্জন তালুকদার ও অ্যাডভোকেট সাজ্জাদুর রহমান।

আরও পড়ুন: মিতু হত্যা: চার্জশিটভুক্ত আসামি কালু গ্রেপ্তার

অভিযোগের বিষয়ে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের স্টোর কিপার সুলেমান আহমেদ বলেন, বিষয়টি পুরাতন, আমার বিরুদ্ধে এক সময় পত্রিকায় ও দেয়ালে দেয়ালে পোস্টারও সাটানো হয়েছে। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সত্য নয়।

(ঢাকাটাইমস/০৩জুন/এসএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :