মাকে বাসে তুলে দিয়ে ছেলে বলল, ‘আর বাসায় ফেরার চেষ্টা করিও না’

দিনাজপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২৩, ২৩:৫৪ | প্রকাশিত : ২৩ জুলাই ২০২৩, ২৩:২৩
শাকিলা বেগম।

পঁচাত্তর বছরের বৃদ্ধা শাকিলা বেগম। বয়সের ভাড়ে ন্যুব্জ। নিচু স্বরে অল্প কথা বলেন। তার মস্তিষ্ক বিকৃত নয়। তিনি ভিক্ষুকও নন। দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার হিলি বাজারে প্রায় ১০ দিন আগে ঘুরাফেরা করছিলেন তিনি। স্থানীয়রা তাকে জিজ্ঞাসা করলে কোনোকিছুই না বলে শুধু কান্না করতে থাকেন। পরে রবিউল ইসলাম নামের স্থানীয় একজন তার বাসার বারান্দায় আশ্রয় দেন এবং বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে অবগত করেন। বারান্দার খোলা বাতাস ও অর্ধাহারে অসুস্থ হলে জায়গা হয় স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। গণমাধ্যমের বদৌলতে অবশেষে তার ঠাঁই হয়েছে একটি বৃদ্ধাশ্রমে।

রবিবার বিকালে হাকিমপুর উপজেলা প্রশাসন রংপুর শহরে ‘সাফল্যের গল্প শোনাব’ নামের সরকারি নিবন্ধনকৃত একটি বৃদ্ধাশ্রমে তাকে থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছে।

বৃদ্ধাকে আশ্রয় দেওয়া রবিউল ইসলাম বলেন, উনাকে অনেক কথা জিজ্ঞেস করি কিন্তু তেমন কোনো উত্তর দিতে পারেননি। বাসার ঠিকানাও বলতে পারছিলেন না। শুধু বলেছেন তার ছেলে এবং ছেলের বউ তাকে বাসা থেকে বের করে দিয়েছেন। আমি আমার বাসায় রেখে উপজেলা প্রশাসনকে বিষয়টা অবগত করি। পরে উপজেলা প্রশাসন বৃদ্ধাকে দেখতে আসে কিন্তু বৃদ্ধা মানসিকভাবে কিছুটা অসুস্থ থাকায় তাকে চিকিৎসার জন্য হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

বৃদ্ধা শাকিলা বলেন, আমার বাসা ঢাকায়। আমার ছেলের নাম জামিল হোসেন। সে আমার একমাত্র ছেলে। ছেলের চার মেয়ের মধ্যে তিনজনকে বিয়ে দিয়েছে। কয়েক দিন আগে ছেলে ও ছেলের বউ একটি কাপড়ের ব্যাগ হাতে দিয়ে বাসে তুলে দেয়। এ সময় আমাকে বলেছে ‘আর বাসায় ফেরার চেষ্টা করিও না। দু-চোখ যেদিকে যায় চলে যাও।’ আসার সময় ছেলের মোবাইল নম্বর ও বাসার ঠিকানা চেয়েছিলাম। ছেলে দেয়নি।

অশীতিপর শাকিলাকে বৃদ্ধাশ্রমে পাঠানোর সময় হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হারুন উর রশিদসহ প্রশাসনের লোকজন।

হাকিমপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সায়েম মিয়া বলেন, ঢাকা থেকে আসা ঠিকানাহীন শাকিলা বেগম নামের ওই নারীকে চিকিৎসার জন্য হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখান থেকে আজ রংপুরের একটি বৃদ্ধাশ্রমে থাকার ব্যবস্থা করা হয়। পুলিশের পক্ষ থেকে তার পরিবারের ঠিকানা জানার চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে হাকিমপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) অমিত রায় বলেন, গত ১০ দিন থেকে এক বৃদ্ধা মা ঢাকা থেকে এসে দিনাজপুরের হিলিতে অবস্থান করছিলেন। বিষয়টি জানার পর তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়। সেখানে চিকিৎসা দেওয়ার পর আজ উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এই বৃদ্ধা মাকে রংপুর হারাগাছের ‘সাফল্যের গল্প শোনাবো ফাউন্ডেশন’ নামের একটি বৃদ্ধাশ্রমে থাকার ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২৩জুলাই/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :