শরীয়তপুরে আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ৪৩ জন, তৃণমূলের নেতাকর্মীরা চান যাদের

মেহেদী হাসান, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ নভেম্বর ২০২৩, ২২:২৩

তিনটি সংসদীয় আসন নিয়ে গঠিত শরীয়তপুর জেলা। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এসব আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ৪৩ জন। ইতোমধ্যে তারা মনোনয়ন ফরম জমাও দিয়েছেন।

এই ৪৩ জনের মধ্যে রয়েছে বর্তমান সংসদ সদস্য, রাজনীতিবিদ, সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা, জেলা ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান। এদের মধ্যে এমন অনেকে আছেন যারা কখনো আওয়ামী লীগের রাজনীতি করেননি। প্রার্থী ৪৩ জন হলেও আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা তাদের পছন্দের ব্যক্তিদের বেছে নিয়েছেন। তারা বলছেন, স্থানীয় আওয়ামী লীগের রাজনীতি যাদের দিয়ে সুসংগঠিত ও ঐক্যবদ্ধ এবং যারা এলাকার উন্নয়নে ভূমিকা রেখেছেন তারাই যেন মনোয়ন পান এবং সংসদ সদস্য হন। উড়ে এসে কাউকে জুড়ে বসতে দেবেন না।

শরীয়তপুর-১ আসন। এতে রয়েছে ২৩টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভা। এ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য। তবে তিনি ছাড়াও মনোনয়ন চেয়ে মাঠে তৎপর হয়ে উঠেছেন সাবেক সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) শহীদুল হক, জাজিরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোবারক আলী সিকদার, শরীয়তপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি আবদুল আলীম ব্যাপারী ও জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমানসহ সব মিলিয়ে ২০ জন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ডজন খানেক নেতা ঢাকা টাইমসকে বলেন, আমরা তৃণমূলের নেতাকর্মীরা সবসময় এমন একজনকে প্রত্যাশা করি যে, আমাদের পাশে থাকবেন এবং আওয়ামীলীগ সংগঠনের সবাইকে নিয়ে এক হয়ে কাজ করবেন। আমাদের শরীয়তপুর-১ আসনে মনোনয়ন নিয়ে প্রার্থীদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হওয়ায় এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে অনেকেই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। এদের মধ্যে এমন কয়েকজন মনোনয়ন প্রত্যাশা করেন নেতা-কর্মী ও যাদের ভোটাররাও ঠিকমতো চেনেন না। তবে আমাদের বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন অপু নির্বাচিত হওয়ার সাথে সাথে আওয়ামী লীগের দৃশ্য একদম পাল্টে যায়। বেশ উন্নয়ন কাজ করে প্রশংসিত হয়েছেন তিনি।

৮ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের টিকিটে নির্বাচন করে হেরে যাওয়া জাজিরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মনোনয়ন প্রত্যাশী মোবারক আলী সিকদারের সঙ্গে কথা হয় ঢাকা টাইমসের। তিনি বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচনে তো অনেকেই প্রার্থী হতে চায়, এদের অনেকে তো কখনই আওয়ামী লীগ তো করেই নি বরং তাদের আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা ভালো ভাবে চিনেই না। এলাকায় মানুষের বিপদে-আপদে আসেননি। আমার বিশ্বাস, দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা দলের প্রতি ত্যাগ ও শ্রম বিবেচনা করে মনোনয়ন দেবেন।’

আসনটির বর্তমান সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘আওয়ামী লীগ দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে একটি বৃহত্তম রাজনৈতিক দল, এখানে নেতা হওয়ার চেষ্টা করেন অনেকে। আমরা তা নিয়ে বিচলিত নই। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয় নিশ্চিতই আমাদের লক্ষ্য।’

শরীয়তপুর-২ আসন। এখানেও রয়েছে ১টি পৌরসভা ও ২৩টি ইউনিয়ন। আসনটির বর্তমান সংসদ সদস্য পানিসম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম। তিনি ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক। তিনি ছাড়াও এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে চান বেশ কয়েকজন। তাদের মধ্যে যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য খালেদ শওকত আলী ও মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর সুলতান মাহমুদ, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য পারভীন হক সিকদার ও সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক সংসদ সদস্য নাভানা আক্তারসহ বেশ কয়েকজন।

নড়িয়া উপজেলা ও সখিপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক সহ বেশ কয়েকজন নেতা ঢাকা টাইমসকে বলেন, এ আসন থেকে খুব কম মানুষ মনোনয়ন চান। তাঁদের মনোনয়ন ফরম জমা দেওয়া দেখে আমরা তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা অবাক হয়েছি। কারণ এদের অনেকেই কখনো আওয়ামী লীগের রাজনীতি করেননি এবং এলাকায়ও আসেননি।

তবে আমরা খুব সহজে বলতে পারি আমাদের বর্তমান সংসদ সদস্য ও পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম আমাদের নড়িয়া সখিপুরে যে পরিমাণ উন্নয়ন কাজ করেছেন তা বলে শেষ করা যাবে না। এ নদী ভাঙন এলাকায় এখন আর নদীতে ভাঙে না। স্বপ্নের বেড়িবাঁধ পেয়েছি আমরা। বিদ্যুৎ সংযোগ রাস্তাঘাটের উন্নয়নসহ ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করেছেন তিনি। এরকম উন্নয়ন এর আগে কখনো কেউ করেননি। এ আসনে আওয়ামী লীগ সুসংগঠিত করেছেন তিনি। একদম কোন্দল ছাড়াই আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করে যাচ্ছি। আমরা বর্তমানে তাকেই আবারও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে এমপি ও মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই।

এনামুল হক শামীম ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সভানেত্রী মনোনয়ন দেবেন। তিনি যা ভালো বুঝবেন, সেটাই করবেন। তৃণমূলে আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করছি নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে। অনেকে মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। কী তাঁদের উদ্দেশ্যে, কেন তাঁরা হঠাৎ মনোনয়ন ফরম কিনেছেন, তা স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারাও জানেন না।’

শরীয়তপুর-৩ আসন। এ আসনে রয়েছে ১৯টি ইউনিয়ন ও ৩টি পৌরসভা। আসনটির বর্তমান সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক। তিনি আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত পানিসম্পদ মন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে।

নাহিম রাজ্জাক ছাড়াও এ আসন থেকে মনোনয়ন চেয়ে মাঠে তৎপর ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ আবদুল আউয়াল শামীম, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বাহাদুর বেপারী, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য ও ন্যাশনাল ব্যাংকের নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান পারভীন হক শিকদার। তাঁরাসহ এ আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছাবেদুর রহমান খোকা শিকদার, ডামুড্যা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর মাঝি, যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল উদ্দিনসহ ১৪ জন।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক ডামুড্যা উপজেলা আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা ঢাকা টাইমসকে বলেন, অনেককে মনোনয়ন ফরম জমা দিতে দেখে আমরা তাঁদের কারণে তৃণমূলের অনেকে নেতা বিভ্রান্ত হচ্ছি। আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী এত বেশিসংখ্যক লোক আগে কখনো আমরা দেখিনি। এদের মধ্যে অনেককেই আমরা নির্বাচন ছাড়া কখনো এলাকায় দেখিনি। তারা কেউ কেউ করে ঢাকায় ব্যবসা। তবে আমাদের বর্তমান সংসদ সদস্য আমাদের পাশে ছিলেন সবসময়। বঙ্গবন্ধু কণ্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে আবারও দলীয় মনোনয়ন দিয়ে সংসদ বানাবে বলে আমরা আশাবাদী।

বর্তমান সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাকের সঙ্গে কথা হয় ঢাকা টাইমসের। তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত নন, চাকরি করেন, পরিবারের লোকজন অন্য দল করে এমন অনেকে মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন। এতে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক দল। এ দলের সঙ্গে এমন করা মোটেও উচিত হয়নি। দলীয় সভানেত্রী যোগ্য ও মেধাবী নেতৃত্বের হাতে নৌকার বৈঠা দেবেন, এটা আমাদের বিশ্বাস।’

আওয়ামী লীগ বড় রাজনৈতিক দল হওয়ায় এতে বিভিন্ন ধরনের প্রতিযোগিতা আছে বলে জানান জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছাবেদুর রহমান খোকা শিকদার। বলেন, সার্বিক বিষয়ে ‘মনোনয়নের জন্য এত বেশি প্রতিযোগিতা হবে, তা আমাদের ধারণার বাইরে ছিল। যাঁরা কখনো দলের কোনো কর্মসূচিতেও অংশ নেননি, তাঁরাও মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন।’

(ঢাকাটাইমস/২৩ নভেম্বর/এমএইচ/আরআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

রাজনীতি এর সর্বশেষ

বিএনপি নেতা আবু আশফাককে কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় মহাসচিবের উদ্বেগ

ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে ১২ দলীয় জোটের শোক

শফিউল আলম প্রধানের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী মঙ্গলবার

ইশরাকের মুক্তির দাবিতে রাজধানীতে বিক্ষোভ

ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি আবু আশফাকের জামিন নামঞ্জুর, কারাগারে প্রেরণ

খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে: ফারুক

দেশের আর্থিক খাতে যেকোনো সময় ভয়ংকর ক্র্যাশ ল্যান্ডিং হতে পারে: রিজভী 

ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে মির্জা ফখরুলের শোক

বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা না করে অটোরিকশা বন্ধ অমানবিক: বাংলাদেশ ন্যাপ 

অটোরিকশাচালকদের ওপর সরকার স্টিম রোলার চালাচ্ছে: রিজভী 

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :