অবৈধ ক্লিনিক-হাসপাতাল বন্ধে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩:১৯ | প্রকাশিত : ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩:১৬

অবৈধ ক্লিনিক-হাসপাতাল বন্ধে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন। অবৈধ স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা চলমান বলেও জানান তিনি।

রবিবার সচিবালয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের জরুরি বৈঠক শেষে ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “একই ভবনে একাধিক ক্লিনিক-হাসপাতাল এবং একইসঙ্গে একই স্থানে যত্রতত্র এসব প্রতিষ্ঠান চলতে পারে না। তবে এগুলো বন্ধে সবাইকেই এগিয়ে আসতে হবে।”

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে দেওয়া ১০ দফা নির্দেশনার বিষয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “আগামী দু-একদিনের মধ্যে নিজে এটা মনিটরিং করব। এ ব্যাপারে জিরো টলারেন্স, কোনো ছাড় দেব না। যার যেখানে যে যোগ্যতা, সেই যোগ্যতা অনুযায়ী কাজ করবে, এর বাইরে কাজ করতে পারবে না।”

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “অ্যানেসথেসিয়া দিয়ে খৎনা করাতে গিয়ে সম্প্রতি দুই শিশুর মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে হবে। এ বিষয়ে জিরো টলারেন্স দেখাতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আমি গতকাল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছি। প্রধানমন্ত্রী আমাকে বলেছেন এ ব্যাপারে তুমি জিরো টলারেন্স দেখাবে। কোনো রকম অনিয়ম, কোনোরকম গাফিলতির জন্য কোনো বাচ্চা মারা গেলে তুমি তোমার মতো ব্যবস্থা নেবে।”

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, “সাম্প্রতিক সময়ে কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে, সেটার পর্যালোচনা করা হয়েছে, কীভাবে ষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনা যায়। ইতোমধ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে কিছু নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, কীভাবে ক্লিনিক পরিচালনা করবে কী কী ক্রাইটেরিয়া থাকা লাগবে। গত বৃহস্পতিবার নির্দেশনা দিয়েছিলাম, আজ রবিবার। আমরা তিন-চার দিন সময় দিয়েছিলাম, দেখি কী করে।”

তিনি বলেন, “স্পষ্টভাবে বলতে চাই, এটি আমি নিজে মনিটরিং করব।”

চিকিৎসকদের উদ্দেশে স্বাস্থ্যমন্ত্রী সামন্ত লাল সেন বলেন, “চিকিৎসক ভাই-বোনদের বলতে চাই, আমরা সেই জায়গায় অপারেশন করব..., অপারেশন করার আগে আমাদের দেখতে হবে সেখানে সাপোর্টিং জিনিস আছে কিনা। সেটা অপারেশন করার জায়গা নাকি জায়গা না। ব্যক্তিগতভাবে অনেক অপারেশন করেছি সুতরাং আমি জানি কোথায় কী কী লাগে, কী কী ক্রাইটেরিয়া লাগে অপারেশন করার জন্য। সেগুলো না থাকলে কোনো অবস্থাতেই এটা করা যাবে না।”

তিনি বলেন, “বিএমডিসি (বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল) হচ্ছে আমাদের সর্বোচ্চ আদালত। ইতোমধ্যে আমি বিএমডিসির সঙ্গে কথা বলেছি, এই তিনটি (অ্যানেসথেসিয়া দিয়ে খৎনা ও অ্যান্ডোসকপি করাতে গিয়ে মারা যাওয়ার ঘটনা) বিষয় ইনভেস্টিগেশন করার জন্য, যদি কেউ দোষী সাব্যস্ত হয় তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য। আমার কথা, চিকিৎসকদের সুরক্ষা দেব, রোগীদেরকেও সুরক্ষা দেব।”

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম বলেন, “প্রাতিষ্ঠানিক চর্চায় শিথিলতা দেখা দিয়েছে, এটা সত্য কথা। এসব দুর্বলতা দূর করা হচ্ছে।”

স্বাস্থ্য সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, “মঙ্গলবার থেকে কঠোরভাবে নিয়মনীতি মানানো হবে স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোকে। সরকার চায় না বেসরকারি চিকিৎসা ব্যবস্থা বা পদ্ধতি বন্ধ হোক। সরকার চায়, সেসব নিয়মের মধ্যে চলুক।”

(ঢাকাটাইমস/২৫ফেব্রুয়ারি/জেএ/এফএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

স্বাস্থ্য এর সর্বশেষ

গরমে স্বাস্থ্যঝুঁকি সম্পর্কে সচেতনতা অত্যন্ত জরুরি

ঔষধি গাছ থেকে তিন শতাধিক ওষুধ তৈরি হচ্ছে ইরানে

কণ্ঠের সব চিকিৎসা দেশেই রয়েছে, বিদেশে যাওয়ার প্রয়োজন নেই: বিএসএমএমইউ উপাচার্য 

এপ্রিল থেকেই ইনফ্লুয়েঞ্জা মৌসুম শুরু, মার্চের মধ্যে টিকা নেওয়ার সুপারিশ গবেষকদের

স্বাস্থ্য খাতে নতুন অশনি সংকেত অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ভাতা বাড়লো ইন্টার্ন চিকিৎসকদের

বিএসএমএমইউ বহির্বিভাগ ৪ দিন বন্ধ, খোলা থাকবে ইনডোর ও জরুরি বিভাগ

তৃণমূল পর্যায়ে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের কাজ করতে বললেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

বিএসএমএমইউতে বিশ্বের সর্বোৎকৃষ্ট মানের চিকিৎসা নিশ্চিত করা হবে: ভিসি দীন মোহাম্মদ

ঈদের ছুটিতে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে যেসব নির্দেশনা মানতে হবে হাসপাতালগুলোকে

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :