গরু ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে মাথা বিচ্ছিন্ন করা হয় যে কারণে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ২০:১৩ | প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৯:০৭

নরসিংদীর শিবপুরে মাথা বিচ্ছিন্ন করে গরু ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলামকে নৃশংসভাবে হত্যার ঘটনায় অন্যতম প্রধান আসামি জুনায়েদ মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। তাকে গ্রেপ্তারের পর র‌্যাব জানতে পেরেছে কীভাবে ও কেন এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়।

সোমবার র‍্যাব-৩ এর সদরদপ্তর টিকাটুলিতে সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ ব্যাপারে বিস্তারিত তুলে ধরেন র‍্যাব-৩ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ।

এর আগে রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) র‍্যাব-৩ এর একটি চৌকস আভিযানিক দল গাজীপুরের টঙ্গী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে।

লে. কর্নেল আরিফ জানান, পাওনা সাড়ে তিন লাখ টাকা পরিশোধে চাপ দেওয়ায় ২০২৩ সালের ৯ সেপ্টেম্বর নরসিংদীর শিবপুরে রাতে গরু ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলামকে গলা কেটে মাথা বিচ্ছিন্ন করে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। এই হত্যার পরদিন ভুক্তভোগীর স্ত্রী বাদী হয়ে তাজুল ইসলাম ও অজ্ঞাতনামা কয়েক ব্যক্তিকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সাইফুল এবং আসামি তাজুল নরসিংদীর শিবপুর একই এলাকার বাসিন্দা। তারা দু'জনে দীর্ঘদিন শেয়ারে গরুর ব্যবসা করতেন। ব্যবসার জন্য সাইফুল অন্য দুই গরুর ব্যবসায়ী হাসিম ও মোমেনের কাছ থেকে এক মাস পরে পরিশোধ করার শর্তে ৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা ধার নেন। সেই টাকা তাজুলকে দেন। শর্ত মোতাবেক এক মাস শেষে তাজুলের কাছে সাইফুল টাকা চাইলে তিনি বিভিন্ন টালবাহানা শুরু করেন। হাসিম ও মোমেন তাদের পাওনা টাকা পরিশোধ করতে সাইফুলকে চাপ দেন ও কটূক্তি করতে থাকেন। এতে সাইফুল মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। পরবর্তীতে সাইফুল এলাকার স্থানীয় লোকজনদের সহযোগিতায় একটি গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে তাজুলের সঙ্গে টাকা পরিশোধের বিষয়টি স্ট্যাম্পের মাধ্যমে চুক্তি করে নেন।

আরিফ মহিউদ্দিন জানান, ওই চুক্তিতে তাজুল সাইফুলকে ১৫ দিনের মধ্যে সব টাকা পরিশোধ করে দেবে উল্লেখ করা হয়। চুক্তির স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর হওয়ার পর তাজুল ক্ষিপ্ত হয়ে সালিশ থেকে উঠে যান এবং সাইফুলকে দেখে নেবে বলে হুমকি দেন।

র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক বলেন, ৯ সেপ্টেম্বর সাইফুল ত্রিশা বাজারে একটি চায়ের দোকানে থাকাকালে একটি ফোন পেয়ে সেখান থেকে উঠে চলে যান। এরপর পরিবার তার ফোন বন্ধ পায় এবং পরিবারের পরিচিত সব জায়গায় খোঁজাখুঁজি করতে থাকে। পরদিন সকালে নোয়াদিয়া কান্দাপাড়া পঞ্চগ্রাম ঈদগা মাঠে সাইফুলের মাথা বিচ্ছিন্ন লাশ পাওয়া যায়। এরপর র‌্যাবের গোয়েন্দা দল হত্যার সঙ্গে সরাসরি জড়িত পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারে গোয়েন্দা তৎপরতা শুরু করে এবং হত্যার ঘটনার অন্যতম প্রধান আসামি জুনায়েদকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

তিনি আরও বলেন, আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সাইফুলের সঙ্গে তাজুলের টাকা-পয়সা লেনদেন নিয়ে মনোমালিন্যের কারণেই তাকে হত্যা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তাদের উদ্দেশ্য ছিল সাইফুলকে হত্যা করে হত্যার দায় হাসিম ও মোমেনের ওপর চাপিয়ে দেবে। সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী তাজুল, জুনায়েদ, সোলাইমান, শাকিল ঈদগা মাঠে অবস্থান করে। পরে সাইফুলকে ব্যবসার কথা বলে ফোন করে ঈদগা মাঠে ডেকে নিয়ে আসে। পরবর্তীতে সেখানে তাজুল ও সাইফুল কথা কাটাকাটি করতে শুরু করে এবং একপর্যায়ে তাজুল সাইফুলের গলায় থাকা গামছা পেঁচিয়ে ধরে। সেই সঙ্গে জোনায়েদ এবং শাকিল সাইফুলকে জাপটে ধরে। এতে সাইফুল অজ্ঞান হয়ে যায়। এসময় মামলার অন্যতম আসামি জুনায়েদের সহায়তায় তাজুল দা দিয়ে কুপিয়ে সাইফুলের মাথা বিচ্ছিন্ন করে ফেলে এবং ঘটনাস্থল থেকে সবাই পালিয়ে যায়।

র‍্যাব-৩ এর অধিনায়ক আরিফ মহিউদ্দিন বলেন, এই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তাজুল ইসলামের সঙ্গে ঘটনায় সরাসরি জড়িত অন্য আসামিদের অজ্ঞাত নাম দেওয়া হয়। পরবর্তীতে তাজুল এবং সোলাইমান আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে গ্রেপ্তার হন। তাজুলের স্বীকারোক্তি এবং সোলাইমানের জবানবন্দিতে এই নৃশংস হত্যার অন্যতম সহযোগী জুনায়েদ এবং শাকিলের নাম আসে। ঘটনার পর থেকেই জুনায়েদ এবং শাকিল পলাতক ছিল। র‍্যাবের গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জুনায়েদকে রবিবার (২৫ ফ্রেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় গাজীপুরের টঙ্গী এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। মামলার আরেক পলাতক আসামি শাকিলকে গ্রেপ্তারের জন্য র‍্যাবের গোয়েন্দা কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

র‌্যাব বলছে, জুনায়েদের বাবা-মা এলাকায় পিঠা বিক্রি করতেন। জুনায়েদ তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করে বাবা-মা'র সঙ্গে পিঠা বিক্রির কাজে সহযোগিতা করতেন। ২০১৯ সাল থেকে তার চাচাদের সঙ্গে ছাগলের ব্যবসা শুরু করেন। ছাগলের ব্যবসার সুবাদে আসামিদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

সাইফুলকে হত্যার পর জুনায়েদ এলাকা ছেড়ে তার নানার বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া এসে আত্মগোপনে থাকতে শুরু করেন। সেখানে ১ মাস থাকার পর গাজীপুর এসে একটি গার্মেন্টসে চাকরি শুরু করেছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/২৬ফেব্রুয়ারি/এসএস/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অপরাধ ও দুর্নীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

অপরাধ ও দুর্নীতি এর সর্বশেষ

মাদক-ইয়াবা কারবারে বদির দুই ভাইয়ের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছে সিআইডি

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের হটলাইন থেকে গ্রাহককে ফোন, অ্যাকাউন্টের টাকা হাওয়া

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৮, মামলা ৬

ট্রেনের টিকিট কালোবাজারি গ্রেপ্তার 

এটিএম বুথের প্রহরী হত্যা: টাকা লুটের উদ্দেশ্যে নাকি ব্যক্তিগত কারণ? কী বলছে পুলিশ?

রাজধানীতে এটিএম বুথের নিরাপত্তাকর্মীকে কুপিয়ে হত্যা

কেএনএফকে সহযোগিতা, বান্দরবান থেকে একজন গ্রেপ্তার

ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে কিশোর গ্যাংয়ের হামলার শিকার সেই চিকিৎসকের মৃত্যু

রাষ্ট্রপতির আত্মীয় পরিচয়ে প্রতারণা, নিঃস্ব বহু ট্রাভেল ব্যবসায়ী

অপহরণ-ধর্ষণ: প্রধান আসামি গ্রেপ্তার, স্কুলছাত্রী উদ্ধার

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :