ইসলামী আন্দোলনে অতিথি হয়ে থাকার কোনো কৃতিত্ব নেই: শফিকুল ইসলাম 

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২২ মে ২০২৪, ১৯:৪২ | প্রকাশিত : ২২ মে ২০২৪, ১৯:০৪

জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ বলেছেন, মসজিদে অতিথি মুসল্লি সহযোগীদের যেমন মহান আল্লাহর কাছে প্রকৃত কোনো মূল্য নেই, তেমনি ইসলামী আন্দোলন সংগ্রামে কেবল অতিথি সহযোগী হয়ে থাকার মাঝেও কোনো কৃতিত্ব নেই।

বুধবার বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের মুগদা থানা পূর্বের সক্রিয় সহযোগীদের নিয়ে স্থানীয় একটি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় মজলিশে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য মুহাম্মদ শামছুর রহমান। ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের মজলিসে শূরা সদস্য ও মুগদা থানা পূর্ব আমীর মো. ইসহাকের সভাপতিত্বে এবং থানা সেক্রেটারি ওমর ফারুকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন থানা কর্মপরিষদ সদস্য কুতুবউদ্দিন আরমান, নেসার উদ্দিন, সোলায়মান হোসেন, মুশফিকুর রহমান, মো. ইউনুছ, মো. ওসামা মুন্সি সুরুজ, শহিদুল ইসলামসহ স্থানীয় বিভিন্ন পর্যায়ের জামায়াত নেতৃবৃন্দ।

শফিকুল ইসলাম মাসুদ বলেন, মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে এক মহৎ উদ্দেশ্যে সৃষ্টি করেছেন, তা হচ্ছে সকল মতবাদের ওপরে দ্বীন ইসলামকে মনোনীত বিধান হিসেবে গ্রহণ করে তা সমাজ ও রাষ্ট্রে প্রতিষ্ঠার জন্য আন্দোলন-সংগ্রামে উত্তীর্ণ হওয়া। ইকামাতে দ্বীনকে বিজয়ী করার জন্য আন্দোলন-সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। আন্দোলনের শপথ নিয়ে মাঠে ময়দানে কুরআন বিজয়ের জন্য প্রচেষ্টা চালাতে হবে। শুধু মসজিদের উন্নয়নমূলক কাজে সহযোগিতা দিয়ে, ইমাম মুসল্লিদের ওপরে সভাপতি-সেক্রেটারির দায়িত্ব গ্রহণ করে নামাজের সত্যিকার সহযোগী হওয়া যায় না।

তিনি বলেন, আজকে সারাদেশে মসজিদের সামান্য সহযোগীদের আমরা ইমাম-মুয়াজ্জিনদের ওপরে দায়িত্ব দিয়ে বসিয়ে রেখেছি। এটা জাতির জন্য চরম দুর্ভাগ্য। এর ফলে আজকে মসজিদগুলোতে মুসল্লিতে পরিপূর্ণ থাকলেও সেসব মসজিদে প্রকৃত ঈমানদার খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

ড. মাসুদ বলেন, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী মসজিদগুলোকে সমাজ পরিবর্তনের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করার স্বপ্ন দেখে। কারণ রাসূল (সা.) ক্লাব, ইউনিয়ন নয় বরং মসজিদ দিয়েই সমাজ পরিচালনা করেছিলেন। মসজিদকেন্দ্রিক যতদিন না এই সমাজ পরিচালিত হচ্ছে ততদিন অপেক্ষায় থাকতে হবে ঢাকা মহানগরীর এই সমাজে ইনসাফ কায়েম করতে। ইনসাফপূর্ণ সমাজ ও কল্যাণমূলক রাষ্ট্র গড়তে চাইলে মসজিদকেন্দ্রিক সকল কিছুকে গড়ে তুলতে হবে। জামায়াতে ইসলামী সে কাজে আপনাদেরকে সাথে নিয়ে সুন্দর সমাজ সভ্যতা গড়ে তোলার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, আজকে এই সমাজ ও রাষ্ট্র পরিবর্তনে আমাদের কাজ করার লোকের প্রয়োজন। সমাজে কথা বলার সাথে সাথে ইনসাফপূর্ণ কাজ করার মধ্য দিয়ে সেসব লোক ইকামাতে দ্বীনের বিজয়কে ত্বরান্বিত করবেন। আমরা সমাজে কথাও বলবো কাজও করবো ইনশাআল্লাহ। কেবল সহজ সুন্নাত পালন করে মুসল্লি দাবি নয় বরং কঠিন অবস্থাতেও রাসূলের (সা.) সুন্নাত আঁকড়ে ধরে আমরা সত্যিকার ঈমানদার পরিচয় দিতে চাই।

সহযোগী সমাবেশে উপস্থিত অসংখ্য সদস্যকে কর্মী হিসেবে ঘোষণা করেন মহানগরী সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ।

ঢাকাটাইমস/২২মে/জেবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

রাজনীতি এর সর্বশেষ

ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ বিএনপি এবং যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত

সরকারের দুঃশাসনে জনগণের ঈদ আনন্দ আজ ম্লান: সালাম

জনগণের কাছে সরকারের ন্যূনতম মূল্য নেই: আমিনুল হক

মহিলা দলের নেতাকর্মীদের ঈদ উপহার দিলেন বিএনপি নেতা বকুল

হরিজনদের উচ্ছেদ করে ভাগ বাটোয়ারা করলে তা হবে ডাকাতি: জিএম কাদের

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ কৃষক দলের পূর্ণাঙ্গ আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা

সংসদে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বক্তব্যের প্রতিবাদ মির্জা ফখরুলের

অঢেল সম্পদের মালিক ঝিনাইদহ জেলা আ.লীগের সম্পাদক কে এই মিন্টু?

গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে: দুদু

সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করতে হবে: ফারুক

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :