তৃতীয় ধাপের ভোটগ্রহণ সম্পন্ন, চলছে গণনা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২৯ মে ২০২৪, ১৮:৩৩ | প্রকাশিত : ২৯ মে ২০২৪, ১৮:০৪
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের একটি ভোটকেন্দ্র, সকাল নয়টায়

ব্যালটে ‘ভুল’ প্রতীক, প্রার্থীর ভোট বর্জন, বুথে একাধিক এজেন্ট, ব্যালট ছিনতাই, জালভোট, ককটেল বিস্ফোরণ এবং প্রার্থীর ওপর হামলার অভিযোগ নিয়ে শেষ হয়েছে ষষ্ঠ উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপের ভোটগ্রহণ। বুধবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত দেশের ৮৭ উপজেলায় জনপ্রতিনিধি বেছে নিতে ভোট দেন ভোটাররা। বিচ্ছিন্ন অনিয়ম হলেও ভোটারদের মধ্যে আমেজ দেখা গেছে। নিজের পছন্দের প্রার্থীকে জনপ্রতিনিধি হিসেবে বেছে নিতে ভোট দিতে এসেছিলেন শতবর্ষী ব্যক্তিও।

শুরুর চার ঘণ্টায় ৮৭ উপজেলায় ভোট পড়েছে ২০ শতাংশের কম। দুপুরে নির্বাচন কমিশন থেকে এই তথ্য জানিয়ে আরও বলা হয়, চার ঘণ্টায় কোথাও ১৬ শতাংশ, কোথাও ১৭ শতাংশ, আবার কোথাও ২০ শতাংশ ভোট পড়েছে। বিকালে সিইসি জানান, ৩৫ শতাংশ ভোট পড়েছে।

সংশ্লিষ্ট খবর: ৩৫ শতাংশ ভোট পড়েছে: সিইসি

ভাইস চেয়ারম্যান ভোট স্থগিত

বরাদ্দ প্রতীকের সঙ্গে ব্যালট পেপারে ছাপানো প্রতীকের মিল না থাকায় বগুড়া সদর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোটগ্রহণ স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে।

বগুড়ার জেলা প্রশাসক ও নির্বাচনে আপিল গ্রহণকারী কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘বগুড়া সদর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে ইফতারুল ইসলাম মামুনকে আইসক্রিম প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু প্রতীক বরাদ্দের দিন তাকে কাঠিযুক্ত আইসক্রিমের যে ছবি দেখানো হয়েছিল গতকাল ভোটগ্রহণকালে ব্যালটে তার পরিবর্তে অন্য ধরনের আইসক্রিম প্রতীক দেখা গেছে। পরে ওই প্রার্থী নিজেও আমাদের কাছে অভিযোগ করেন। এরপর বিষয়টি আমরা নির্বাচন কমিশনে অবহিত করলে কর্তৃপক্ষ ওই পদে ভোটগ্রহণ স্থগিতের নির্দেশ দেন।’

ইফতারুল ইসলাম

প্রার্থীর ভোট বর্জন

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই শাহাদাত হোসেনসহ (টেলিফোন) দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। অপর প্রার্থী হলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল (দোয়াত কলম)।

দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে ভোট ডাকাতি, কেন্দ্র দখল, জাল ভোটসহ এজেন্ট বের করে দেওয়ার অভিযোগ তুলে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন তারা।

প্রিসাইডিং কর্মকর্তা প্রত্যাহার

ভোট গ্রহণে অনিয়মের অভিযোগে বগুড়া শহরের জুবিলী ইন্সটিটিউশনের দুটি কেন্দ্রের দুই প্রিসাইডিং কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তারা হলেন, বগুড়া জুবিলী ইন্সটিটিউশনের পূর্ব ভবনের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মতিউর রহমান এবং একই প্রতিষ্ঠানের পশ্চিম ভবনের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মো. আবু সালেহ।

একটি বুথে একজন প্রার্থীর দুজন এজেন্ট থাকায় বগুড়া জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল ইসলাম ওই দুটি কেন্দ্র পরিদর্শনের সময় তাদের বিরুদ্ধে ওই ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

ব্যালট ছিনতাই, ভোট বন্ধ

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলা কাশিয়াইশ ইউনিয়নের পূর্ব পিঙ্গলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দোয়াত-কলম প্রতীকের ব্যালট পেপার ছিনতাইয়ের অভিযোগে একটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ সাময়িক বন্ধ করে নির্বাচন কমিশন। জেলা প্রশাসক আবুল বশর মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ভোটকেন্দ্র বন্ধ ঘোষণা করেন এবং ওই কেন্দ্রের দায়িত্বরত প্রিসাইডিং অফিসার মো. শহীদুল্লাহ রায়হানকে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন।

কেন্দ্রের পাশে ককটেল বিস্ফোরণ

দুপুর তিনটার দিকে পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার পিয়ারাখালী সরকার প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করে ভোটার উপস্থিতি কমানোর লক্ষ্যে ভোটকেন্দ্রের পাশেই একটি ফাঁকা জায়গায় ককটেল বিস্ফোরণ করেছে দুর্বৃত্তরা। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

জালভোট দিয়ে আটক

ফেনী সদর উপজেলার পিটিআই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জালভোট দেওয়ার অভিযোগে এক সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারকে প্রত্যাহার ও এক পোলিং অফিসারকে আটক করা হয়েছে।

প্রার্থীর ওপর হামলা

রংপুর সদর উপজেলার মোবারক হোসেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে চেয়ারম্যান প্রার্থী ইকবাল হোসেনের ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। তবে প্রতিপক্ষ চেয়ারম্যান প্রার্থী ডা. দেলোয়ার হোসেন অভিযোগ অস্বীকার করেন।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা কথা রটিয়ে ফায়দা নেওয়ার চেষ্টা চলছে।’ কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা মোস্তাফিজার রহমান বলেন, ‘চেয়ারম্যান প্রার্থী কেন্দ্র পরিদর্শনে গেলে উত্তেজনা দেখা দিয়েছিল।’

বৃষ্টিতে ভোটারের লাইন

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় কয়েকটি কেন্দ্রে দেখা গেছে, সকাল থেকেই মেঘলা আকাশ। কোথাও কোথাও হালকা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি পড়ছে। তবে বৃষ্টি উপেক্ষা করেই ভোটকেন্দ্রে আসছেন ভোটাররা।

এসেছিলেন শতবর্ষীও

ভাঙা চেহারার গড়ন। সাদা চুল-দাড়ি। হাতে ভর দেওয়ার লাঠি। যেন ভেঙেচুরে পড়ে যাচ্ছেন। তবুও নিজের ভোট দিতে কেন্দ্রে এসেছেন এক বৃদ্ধ। বয়স ১০৪ বছর। এই বৃদ্ধকে দেখা গেছে কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ধামতী ইউনিয়নের ধামতী হাবিবুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে। সকাল সাড়ে ৯টায় তিনি মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে এসে ভোট দিয়েছেন।

নাতীর হাত ধরে আরেক শতবর্ষী

বয়সের ভারে নুয়ে পড়েছে শরীর। জোর নেই হাতে-পায়ে। অন্যের সাহায্য ছাড়া হাঁটতে পারেন না। তবুও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নিজের ভোটাধিকার প্রয়োগের জন্য ভোটকেন্দ্রে ছুটে এসেছেন ১০৫ বছরের বৃদ্ধা জাহানারা বেগম তুলোন। তাকে দেখে উদ্বুদ্ধ হচ্ছে তরুণ ভোটাররা। ভোটকেন্দ্রে থাকা মানুষ বলছে, এমন প্রবীণ ভোটারদের কাছ থেকে শেখার আছে অনেক কিছু।

বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় সিট আলোকডিহি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে গিয়ে দেখা যায় জাহানারা বেগম তুলোন তার নাতির সঙ্গে ইজিবাইকে ভোটকেন্দ্রে এসেছেন ভোট দিতে।

আরও পড়ুন: স্থগিত হওয়া ২৩ উপজেলায় ভোট কবে, জানাল ইসি

(ঢাকাটাইমস/২৯মে/এসআইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

জাতীয় এর সর্বশেষ

প্রতি ১০ শিশুর ৯ জনই নিজ পরিবারে সহিংসতার শিকার: ইউনিসেফ

জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা, উপনেতাকে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ শুভেচ্ছা

বাংলাদেশের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে ইউএইর বিনিয়োগ চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

ঈদে ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তায় প্রস্তুত ফায়ার সার্ভিস

সরকারি জায়গা দখল: অবশেষে হোটেল ওলিও থেকে ৮০ কোটি টাকার সম্পত্তি উদ্ধার

ঈদে রেলসেবায় এবারও ‘গোল্ডেন এ প্লাস’ পাওয়ার আশা জিল্লুল হাকিমের

কমিউটার ট্রেনের টিকিটের জন্য হাহাকার, ভোগান্তির শেষ নেই

বাংলাদেশে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে একসঙ্গে কাজ করে যাব: ডোনাল্ড লু

বায়ু দূষণ রোধ করতে না পারলে সবাইকে ভুগতে হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

ঈদে শিডিউল বিপর্যয় এড়াতে মৈত্রী ও বন্ধন এক্সপ্রেস চলাচল শুক্রবার থেকে বন্ধ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :