গাজায় রেড ক্রসের কার্যালয়ের কাছে ইসরায়েলি হামলা, নিহত ২২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ২২ জুন ২০২৪, ১৫:০০

গাজা উপত্যকায় আন্তর্জাতিক মানবিক সহায়তা সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব রেড ক্রসের (আইআরআইসি) কার্যালয়ের কাছে গোলা হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। এতে নিহত হয়েছেন অন্তত ২২ জন, আহত হয়েছেন আরও ৪৫ জন। নিহতদের সবাই ওই কার্যালয় চত্বরের আশপাশে আশ্রয় নিয়েছিলেন।

এক বিবৃতিতে আইআরআইসি জানিয়েছে, ‘শুক্রবার সন্ধ্যায় ভারী-ক্যালিবার প্রজেক্টাইলগুলো রেড ক্রসের অফিস এবং আবাসিক ভবনের কয়েক মিটারের মধ্যে অবতরণ করে। এতে আইসিআরসি কার্যালয়ের কাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এই কার্যালয় চত্বরের আশপাশে শত শত বাস্তুচ্যুত ফিলিস্তিনি আশ্রয় নিয়েছিলেন। তাদের মধ্যে অনেকে আমাদের ফিলিস্তিনি সহকর্মীও ছিলেন।’

আইআরআইসি বলছে, সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী- এই হামলায় নিহত হয়েছেন ২২ জন এবং আহত হয়েছেন আরও ৪৫ জন। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েক জনের অবস্থা গুরুতর, তাদের কাছকাছি রেড ক্রসের ফিল্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’

বিবৃতিতে আরও একবার গাজার বেসামরিক নাগরিক ও মানবিক সহায়তা সংস্থাগুলোর কার্যালয়ে হামলা থেকে বিরত থাকতে যুদ্ধরত সব পক্ষকে আহ্বানও জানিয়েছে আইআরআইসি।

এদিকে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, এই হামলা ইসরায়েলি সেনাবাহিনী চালিয়েছে এমন কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। তবে ঘটনাটি তদন্ত করছে আইডিএফ।

অন্যদিকে হামাস পরিচালিত গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বিভিন্ন পরিসংখ্যান দিয়ে বলেছে, গোলাগুলিতে ২৫ জন নিহত এবং ৫০ জন আহত হয়েছে। এই হামলার জন্য ইসরায়েলকে দায়ী করেছে তারা।

উল্লেখ্য, গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে নজিরবিহীন হামলা চালায় ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস। এদিন ইসরায়েলের উত্তরাঞ্চলীয় ইরেজ সীমান্ত দিয়ে ইসরায়েলে প্রবেশ করে অতর্কিত হামলা চালায় হামাস যোদ্ধারা। পাশাপাশি ইসরায়েল থেকে প্রায় ২৪০ জনকে জিম্মি হিসেবে গাজায় নিয়ে যায় হামাস।

তারপর ওই দিন থেকেই গাজায় অভিযান শুরু করে ইসরায়েলি বিমানবাহিনী। পরে ২৮ অক্টোবর থেকে অভিযানে যোগ দেয় স্থল বাহিনীও। প্রায় ৮ মাস ধরে ইসরায়েলি হামলায় গাজায় ৩৭ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছে ৭০ শতাংশেরও বেশি নারী ও শিশু। এছাড়া আহত হয়েছেন ৮৫ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি।

(ঢাকাটাইমস/২২জুন/এমআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :