নির্ভীক ও সৎ লোক তৈরিতে খালেদার ব্যর্থতা দেখছেন গয়েশ্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:৩৬ | প্রকাশিত : ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:৩১

বিএনপিতে নির্ভীক ও সৎ সাহসী লোক তৈরিতে দলটির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ব্যর্থতা দেখছেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। আর এ কারণে বর্তমানে সংকট মোকাবিলা করতে ভয় পেতে হচ্ছে বলেও মনে করছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য।

গতকাল শুক্রবার ‘খালেদা জিয়া-তৃতীয় বিশ্বের কণ্ঠস্বর’ বইয়ের প্রকাশনা উৎসবে বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘খালেদা জিয়ার একটা ব্যর্থতা আছে যা আমি আগেও একদিন তাকে বলেছিলাম। আজকেও বলতে চাই- তা হলো তিনি তার চারপাশে নির্ভীক, সৎ, সাহসী লোক তৈরি করতে পারেননি। এই কারণে আমরা সংকট মোকাবিলা করতে ভয় পাচ্ছি। আর সরকার প্যারোলে মুক্তি নিয়ে উসকানি দেওয়ার সাহস পাচ্ছে।’

বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়ে বইটি লিখেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমদ ও কবি আবদুল হাই শিকদার। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে বইটির প্রকাশনা উৎসবের আয়োজন করে শত নাগরিক কমিটি।

গয়েশ^র বলেন, ‘আজকে বিএনপি থেকে নির্বাচিতরা বলছেন, এলাকার মানুষের চাপ আছে শপথ নেওয়ার বিষয়ে। কিন্তু শুনতে চেয়েছিলাম, তারা বলবেন খালেদা জিয়া আগে মুক্ত হবেন। এরপর দলীয় সিদ্ধান্ত হলে সংসদে যাওয়ার বিষয়ে বিবেচনা করবো।’

‘নির্বাচিতদের সংসদে যাওয়ার প্রশ্নই আসে না’

৩০ ডিসেম্বরের ভোটে বিএনপি থেকে নির্বাচিতদের সংসদে যাওয়ার কোনও প্রশ্নই আসেন না বলে মন্তব্য করে দলটির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য মওদুদ আহমদ বলেন, ‘আমাদের দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে সামনে রেখে স্থায়ী কমিটি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

‘নির্বাচিতরা কেউ শপথ নেবেন না আর এটা তাদের জানিয়েও দেওয়া হবে। ফলে এখন থেকে ফিরে যাওয়া বা পরিবর্তনের কোনও প্রশ্নই ওঠে না। এই বিষয়টি এখানে নিষ্পত্তি হয়ে যাওয়া দরকার।’

মওদুদ আরও বলেন, ‘আমরা অনেকে হতাশ হয়ে যাই। দেশে তো আরও কোনও রাজনীতি নেই। এ সরকার দেশে বিরোধী দল রাখতে চায় না। তারপরও আমাদের মহাসচিব প্রতিদিন কিছু না কিছু বলে জানান দেন আমরা বিরোধী দল আছি।’

সরকারের নির্যাতন ও অত্যাচার বিএনপিকে আরও মুজবত করে দিয়েছে মন্তব্য করে ১০০ বছরেও বিএনপির কিছু হবে না বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন বিএনপির এ নেতা।

দল চালাতে নেতাদের ক্ষমতা দিতে বললেন জাফরুল্লাহ

লন্ডন থেকে নয় স্থানীয় আদেশে দল চালাতে হবে অভিমত দিয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা বুদ্ধিজীবী ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘এখানে বিএনপির যেসব নেতা আছেন তারা কি নিজেদের মতো করে চলতে পারছেন নাকি তাদের হাত পা বেঁধে দেওয়া হয়েছে।’

‘তাদের ক্ষমতা দিতে হবে দল চালানোর জন্য। লন্ডন-আমেরিকা থেকে আদেশে দল চালানো যাবে না। স্থানীয় আদেশে দল চালাতে দিতে হবে।’

নব্বইয়ের ছাত্রনেতাদের নেতৃত্বে চান খন্দকার মাহবুব

দলের বয়স্কদের সরিয়ে নব্বইয়ের ছাত্রনেতাদের নেতৃত্বে আনার তাগিদ দিয়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘আমাদের মতো বয়স্কদের দলের নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দিতে হবে। নব্বইয়ের ছাত্রনেতা ও তরুণদের দলের নেতৃত্বে এনে রাজপথে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।’

কবে থেকে আন্দোলন হবে তার সিদ্ধান্ত এখনই যেন নেওয়া হয় তার জোর দেন তিনি।

বইটির যৌথ লেখকদের একজন কবি আব্দুল হাই শিকদার বলেন, ‘বই প্রকাশনা উৎসব আজ প্রতিবাদ সমাবেশে পরিণত হযেছে। এই বইয়ের নাম খালেদা জিয়া নিজে পছন্দ করে দিয়েছেন। অনেকগুলো নাম নিয়ে তার কাছে গিয়েছিলাম, সেখান থেকে তিনি এই নামটি পছন্দ করেন।’

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকাটাইমস/১৯এপ্রিল/ডিএম

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :