পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক সংঘর্ষের ঘটনায় কমিটি গঠন

পটুয়াখালী প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ জুন ২০১৯, ২৩:১৩

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় নির্মাণাধীন পায়রা ১৩২০ মেগাওয়াট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে বাংলাদেশি ও চীনের শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষে দুজন নিহতের ঘটনায় তিনটি পৃথক কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৭ দিনের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন দেয়ার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। 

বুধবার দুপুরে বিদ্যুত ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নছরুল হামিদ বিপুর উপস্থিতিতে মন্ত্রণালয় ও বিসিপিসিএল কর্মকর্তাদের সাথে জরুলি সভা হয়। সভায় এ ঘটনার প্রকৃত কারণ জানতে এসব কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়। পাশাপাশি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুরো এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী।

তিনি জানান, প্রকল্প এলাকা এখন পুরোপুরি প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। প্রকল্পে কর্মরত বাংঙালিদেরকে আলাদা ও চীনা নাগরিকদের আলাদা রাখার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে প্রশাসন। পাশাপাশি অসন্তোষের মূল কারন জানতে জেলা প্রশাসনের একটি তদন্ত কমিটি, পুলিশের একটি তদন্ত কমিটি ও বিসিপিসিএল এর একটি তদন্ত কমিটি কাজ করছে।

পুলিশ সুপার মো. মইনুল হাসান জানান, প্রকল্পের ভেতরে পর্যাপ্ত পুলিশ ও আর্মড পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি বর্তমানে পুলিশের নিয়ন্ত্রণে। পুলিশের একটি তদন্ত কমিটি এ উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতি মোকাবেলায় কাজ করছে।

নাম প্রকামে অনিচ্ছুক প্রকল্পের একটি সূত্র জানিয়েছে, প্রকল্প এলাকা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে থাকলেও দুই পক্ষের মধ্যে থমথমে ভাব বিরাজ করছে। পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত প্রকল্পের সকল কাজ বন্ধ থাকবে বলেও জানায় সূত্রটি। 

মঙ্গলবার বিকাল ৪ টার দিকে কাজ করা অবস্থায় ব্রয়লার থেকে পড়ে সাবিন্দ্র দাস (৩৩) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়। এ ঘটনার জের ধরে সেখানকার পরিস্থিতি উত্তপ্ত হতে শুরু করে। দুই দেশের শ্রমিকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়াসহ তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভিতরে ক্যান্টিন, অফিস, প্রশিক্ষণ কেন্দ্র মূল গেইট ও ওয়েল্ডার ভাঙচুর করা হয়। এ সময় দুই পক্ষের প্রায় ৩০ জন শ্রমিক আহত হন। এদের মধ্যে গুরুতর আহত অবস্থায় ৮ জনকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার ভোররাতে চীনা নাগরিক জাং ইয়ান ফাং (২৬) মারা যান।

হাসপাতালে ভর্তি অন্যান্য আহত চীনা শ্রমিকরা হলেন ক্সুগান (৫৪), লিন ইউং লিন (৪০), মুজাং হাং (৩৫), জাহাং সেনং (৬০)। আহত বাংলাদেশি শ্রমিকরা হচ্ছেন মো. আলতাফ হোসেন (৪৪), মো. মোস্তাফিজুর রহমান (৪৮) এবং মাহবুব আলম (২৫)।

এছাড়াও গুরুতর জখম হয়েছেন বিসিপিসিএল এর সিকিউরিটি অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান ও পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী রেজওয়ান ইকবাল খান।

শেবাচিম হাসপাতালের চিকিৎসক মাহবুবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসন এদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। আহত অন্যান্যরা চিকিৎসাধীন রয়েছে। এদিকে রাতে জেলা প্রশাসন এবং র‌্যাব, আর্মডপুলিশ যৌথ ভাবে বিদ্যুত কেন্দ্রের ভিতরের বিক্ষুদ্ধ সকল শ্রমিকদের নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে বলে কলাপাড়া থানা পুলিশ নিশ্চিত করেছে। এজন্য টিয়ারসেল নিক্ষেপ করতে হয়েছে।

ঢাকাটাইমস/১৯জুন/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :