মাথা কাটার গুজব ছড়িয়ে এবার ধরা জামায়াত নেতা

কুমিল্লা প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৩ জুলাই ২০১৯, ০০:১৭ | প্রকাশিত : ১২ জুলাই ২০১৯, ১৮:২৫

পদ্মাসেতু নির্মাণের জন্য এক লাখ মানুষের মাথা সংগ্রহের গুজব ছড়িয়ে কুমিল্লায় র‌্যাবের হাতে ধরা পড়েছেন একজন জামায়াত নেতা। নাম  হায়াতুন্নবী। তিনি ‘নবী লাকসাম’ নামে একটি ফেসবুক পেজ থেকে এই গুজব ছড়াতেন বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীটি।

শুক্রবার লাকসাম উপজেলার আশাথী গ্রাম থেকে ধরা হয় হায়াতুন্নবীকে। তিনি ওই গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে।

কুমিল্লায় র‌্যাব-১১ এর ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার প্রণব কুমার ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আমারা খোঁজ নিয়ে দেখেছি, হায়াতুন্নবী একজন জামায়াত নেতা। সেই উপজেলার পূর্ব লাকসাম এলাকার সভাপতি ছিলেন। তিনি জামায়াতের একজন কট্টরপন্থী নেতা হিসেবে পরিচিত। তার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হচ্ছে সরকারের উন্নয়নমূলক কাজে ব্যাঘাত ঘটানো। তাই বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ ফেসবুকে গুজব এবং বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে আসছেন।’

রাজনৈতিক পরিচয় ঢাকতে হায়াতুন্নবী বর্তমানে নিজেকে বিএনপির কর্মী বলে থাকেন বলেও জানিয়েছে র‌্যাব।

র‌্যাবের কোম্পানি কমান্ডার প্রণব কুমার জানান, ফেসবুক আইডি খুলে হায়াতুন্নবী জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করতে পদ্মা সেতু নিয়ে গুজব ছড়িয়েছেন। এছাড়া ফেসবুকের এ আইডি ব্যবহার করে বিভিন্ন সময়ে সে সরকারবিরোধী অপপ্রচার চালিয়ে আসছিলেন।

পদ্মাসেতুর জন্য মানুষের মাথা সংগ্রহের গুজব গত কিছুদিন ধরে এত বেশি ছড়াচ্ছে যে সরকারকে রীতিমতো বিবৃতি দিয়ে বলতে হয়েছে এসব মিথ্যা। ফেসবুক ও ইউটিউবে পুরনো এবং অন্য ঘটনার ছবি জোড়া দিয়ে প্রচার করা হচ্ছে, দেশে ৪২টি দল বের হয়েছে মানুষের মাথা সংগ্রহে। কোথাও কোথাও ধরাও পড়েছেন কেউ কেউ।

পুলিশ সতর্ক করে বলেছে, যারা এসব গুজব ছড়াচ্ছে, তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে এরই মধ্যে ছয় জনকে আটক করা হয়েছে। এদের একটি বড় অংশ বিএনপি এবং জামায়াতের সদস্য বলে তথ্য মিলেছে।

ঢাকাটাইমস/১২জুলাই/প্রতিনিধি/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :